• ব্রেকিং নিউজ

    ডোমসার ইউপি’র উদ্যোক্তাকে মারপিটের প্রতিবাদে মানববন্ধন

    রুদ্রবার্তা প্রতিবেদক

    প্রকাশিত: ২৬ অক্টোবর ২০১৮ সময়: ৮:২১ পূর্বাহ্ণ 632 বার

    ডোমসার ইউপি’র উদ্যোক্তাকে মারপিটের প্রতিবাদে মানববন্ধন

    শরীয়তপুর সদরের ডোমসার ইউনিয়ন পরিষদের উদ্যোক্তা আল আমিন হোসেনকে স্থানীয় আসাদুজ্জামান এরশাদের বিরুদ্ধে মারপিট করার অভিযোগ উঠেছে। এর প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার দুপুর সোয়া ১২টার দিকে ইউনিয়ন পরিষদের সামনে মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করা হয়েছে।
    শরীয়তপুর সদরের পালং মডেল থানা ও স্থানীয় সূত্র জানায়, গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সদর উপজেলার ডোমসার ইউপি কার্যালয়ে যান স্থানীয় আসাদুজ্জামান এরশাদ। তিনি ওই পরিষদের উদ্যোক্তার কাছে একটি জন্ম সনদ চান। এর বিপরীতে উদ্যোক্তা তার কাছে ৫০টাকা সরকারি ফি দাবি করেন। এ নিয়ে দুজনের সাথে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে আসাদুজ্জামান তাকে মারধর করেন। এ ঘটনা নিয়ে পরের দিন উদ্যোক্তা আল আমীন পালং মডেল থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। মারধরের ঘটনার পর ইউনিয়ন পরিষদের সকল কার্যক্রম বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।
    এ ঘটনার প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার দুপুরে পরিষদের সামনে মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করা হয়। ডোমসার ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক, ইউপি চেয়ারম্যান, ইউপি সকল সদস্য, কর্মরত সরকারি-বেসরকারি কর্মকর্তা ও কর্মচারিরা মানববন্ধনে অংশ নেন।
    মানববন্ধনে ডোমসার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি চাঁন মিয়া মাদবর, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মনায়েম খান, ইউপি প্যানেল চেয়ারম্যান মো. আমির হোসেন সিকদার, মো. আ: মতিন ছৈয়াল, রেনু বেগম, ইউপি সদস্য মো. মোস্তফা খান, মো. মতিউর রহমান মাদবর, মো. রফিকুল ইসলাম মুন্সী, মো. মোদাচ্ছের মাদবর, মো. আলী আকবর বেপারী, মো. কবির মাদবর, মো. রোস্তম মাদবর, সচিব মামুন সরদার প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।
    উদ্যোক্তা আল আমীন হোসেন বলেন, আসাদুজ্জামান এরশাদের কাছে সরকারি ফি চাওয়ায় মারধর করেছে। আমি আতঙ্কিত হয়ে থানায় অভিযোগ করেছি।
    ইউপি প্যানেল-১ চেয়ারম্যান মো. আমির হোসেন সিকদার বলেন, এরশাদ ঢালী বিভিন্ন সময় সরকারি কাজে বাঁধা প্রদান করেন। গত সোমবার সন্ধ্যায় ইউনিয়ন পরিষদের উদ্যোক্তা আল আমীন হোসেনকে যেভাবে মেরেছে এটা মেনে নেয়া যায় না। তাই এরশাদের দৃষ্টান্তমূলক বিচার দাবী করছি।
    ইউপি চেয়ারম্যান চাঁন মিয়া মাদবর বলেন, পরিষদের ভেতরে এভাবে হামলার ঘটনাটি সহ্য করা যায় না। আমরা ওই এরশাদের বিচার দাবী করছি। ওই ঘটনায় ইউনিয়ন পরিষদের সকল কার্যক্রম বন্ধ করা হেেয়ছে।
    অভিযুক্ত আসাদুজ্জামান এরশাদ বলেন, অন্যায়ভাবে সরকারি ফি’র বাইরে টাকা আদায় করে। আমার কাছেও টাকা চাইছিল, তাই আমি প্রতিবাদ করেছি। কাউকে মারধর করা হয়নি, আমার নামে বদনাম ছড়াচ্ছে।
    পালং মডেল থানার উপপরিদর্শক শেখ নজরুল ইসলাম বলেন, ইউনিয়ন পরিষদের একজন উদ্যোক্তাকে মারধরের অভিযোগ পাওয়া গেছে। সাধারণ ডায়েরী নথিভুক্ত করা হয়েছে। বিষয়টি তদন্ত করা হচ্ছে।

    :: শেয়ার করুন ::

    Comments

    comments

    সংবাদটি ফেইসবুকে শেয়ার করুন

    দৈনিক রুদ্রবার্তা/শরীয়তপুর/২৬ অক্টোবর ২০১৮/


    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
  • ফেসবুকে দৈনিক রুদ্রবার্তা

  • error: নিউজ কপি করা নিষেধ!!