• ব্রেকিং নিউজ

    শরীয়তপুরে গণধোলাইতে এক ডাকাত নিহত আটক-৩

    রুদ্রবার্তা প্রতিবেদক

    প্রকাশিত: ০৬ নভেম্বর ২০১৮ সময়: ৭:৪৩ পূর্বাহ্ণ 693 বার

    শরীয়তপুরে গণধোলাইতে এক ডাকাত নিহত আটক-৩

    শরীয়তপুরে একরাতে তিন বাড়িতে ডাকাতি করে ফেরার পথে জনতার হাতে দুই ডাকাত ধরা পরে। এ সময় উত্তেজিত জনতার গণধোলাইতে এক ডাকাত নিহত হয়েছে।
    নিহত ডাকাত সবুজ হাওলাদার (২৭) বরগুনা সদর উপজেলার লতাবাড়িয়া (বড়ইতলা) গ্রামের ইয়াকুব আলী হাওলাদারের ছেলে। অপর ডাকাত তুহিন কাজী (২৫) মারাত্মক আহত হয়েছে। আহত তুহিন কাজী মাদারীপুর জেলার কালকিনি উপজেলার ঠেঙ্গামারা গ্রামের মৃত রহিম কাজীর ছেলে।
    পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পৌরসভার আমতলী গ্রামের চান্দু মুন্সীসহ ২ জনকে আটক করেছে। এ সময় ডাকাতি হওয়া কিছু জিনিসপত্রসহ ২টি ককটেল বোমা উদ্ধার করে পুলিশ।
    পালং মডেল থানা ও ক্ষতিগ্রস্থ পরিবার সূত্র জানায়, রোববার (শনিবার দিবাগত) রাত অনুমান ২টার দিকে সঙ্ঘবদ্ধ ডাকাত দল শরীয়তপুর পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ডের হুগলি গ্রামের জসিম ঢালীর বাড়ির কেচি গেইট ভেঙ্গে ঘরে প্রবেশ করে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে বাড়ির লোকজনের হাত-পা বেঁধে প্রায় ১০ ভরি স্বর্ণালংকার ও নগদ ৪০ হাজার টাকা লুট করে নেয়। একই সময় ডাকাত দলের কতিপয় সদস্য জসিম ঢালীর বাড়িতে অবস্থান করে পাহাড়া দেয়। বাড়িরে লোকজন শোড়চিৎকার করতে না পারে। অন্যান্য ডাকাত সদস্যরা প্রতিবেশী অরুন সাহা ও স্বপন সাহার ঘরে একই কায়দায় ঘরের দরজা ভেঙ্গে ডাকাতি করে। স্বপণ সাহার স্ত্রী ডাকাতের উপস্থিতি টেরপেয়ে প্রতিবেশী সাহার তপন সাহার মোইবালে ফোন করে কথা বলার পূর্বেই ডাকাত দল ঘরে প্রবেশ করে। মোইবালে ঘরের লোকজনের কান্নার শব্দ পেয়ে প্রতিবেশী তপন সাহা ও তার ছেলে রাজন স্বাপন সাহার বাড়িতে আসলে ডাকাতদল তাদেরকেও হাত-পাঁ বেঁধে জিম্মি করে ফেলে। পরে ডাকাতরা ২টি ঘরে ডাকাতি করে নগদ প্রায় ১ লাখ ৫০ হাজার টাকা ও প্রায় ১৫ ভরি স্বর্ণালংকার নিয়ে যায়।
    ডাকাতি করে ফেরার পথে রুদ্রকর ইউনিয়নের মাকশাহার এলাকায় ডাকাত দলের দুই সদস্য জনতার হাতে ধরা পরে। উত্তেজিত জনতার গণধোলাইতে দুই ডাকাত মারাত্মক আহত হয়। পালং মডেল থানা পুলিশ সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে ডাকাতদের উদ্ধার করে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডাকাত সুজন হাওলাদারকে মৃত্যু ঘোষণা করে। গ্রেফতারকৃত ডাকাত তুহির কাজীর স্বীকারোক্তি অনুযায়ী আমতলী গ্রামের চান্দু মুন্সীর বাড়িতে অভিযান চালিয়ে ডাকাতি হওয়া স্বর্ণলংকারের ভাঙ্গাচূড়া কিছু ও দুইটি তাজা ককটেল বোমা উদ্ধার করে। পরে বাড়ির মালিক চান্দু মুন্সী সহ দুই জনকে জিজ্ঞাসা বাদের জন্য আটক করা হয়। এ বিষয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।
    অরুন সাহা জানায়, রাত দুইটার দিকে আমাদের বাড়ির দুইটি ঘরের দরজা ভেঙ্গে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে হাত-পাঁ বেঁধে মুখোশধারী ডাকাতদল প্রায় ১৫ ভরি স্বর্ণালংকার ও নগদ ১ লাখ ৫০ হাজার টাকা নিয়ে যায়।
    পালং মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মো. মনিরুজ্জামান বলেন, ডাকাত দলের দুই সদস্য জনতার হাতে ধরা পরে। গণধোলাইতে এক ডাকাতের মৃত্যু হয়েছে। অপর ডাকাতের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী পৌরসভার আমতলী গ্রামের চান্দু মুন্সীর বাড়িতে অভিযান চালিয়ে ডাকাতি হওয়া স্বর্ণালংকারের ভাঙ্গাচূড়া কিছু অংশ ও দুইটি তাজা বোমা উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি ও তদন্ত সাপেক্ষে অপরাপর ডাকাতদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

    :: শেয়ার করুন ::

    Comments

    comments

    সংবাদটি ফেইসবুকে শেয়ার করুন

    দৈনিক রুদ্রবার্তা/শরীয়তপুর/০৬ নভেম্বর ২০১৮/


    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
  • ফেসবুকে দৈনিক রুদ্রবার্তা

  • error: নিউজ কপি করা নিষেধ!!