• ব্রেকিং নিউজ

    শরীয়তপুর-চাঁদপুর আঞ্চলিক মহাসড়কের কাজ দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে

    রুদ্রবার্তা প্রতিবেদক

    প্রকাশিত: ১৪ নভেম্বর ২০১৮ সময়: ৮:২৮ পূর্বাহ্ণ 768 বার

    শরীয়তপুর-চাঁদপুর আঞ্চলিক মহাসড়কের কাজ দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে

    শরীয়তপুর-চাঁদপুর আঞ্চলিক মহাসড়কের মনোহর বাজার থেকে ইব্রাহিমপুর ফেরি ঘাট পর্যন্ত ৪০ কিলোমিটার সড়ক। শরীয়তপুর সড়ক ও জনপথ বিভাগ ৩টি প্যাকেজের মাধ্যমে প্রায় ৪০ কোটি টাকা ব্যয়ে এ আঞ্চলিক মহাসড়কের কাজ শুরু করেছে। আগামি জানুয়ারি মাসের মধ্যে সড়কটির কাজ শেষ হবে বলে আশা করছেন সড়ক ও জনপথ বিভাগ। তাই দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে শরীয়তপুর-চাঁদপুর আঞ্চলিক মহাসড়কের কাজ।
    শরীয়তপুর সড়ক ও জনপদ বিভাগ এবং স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, দেশের পূর্বাঞ্চলের চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের সাথে দক্ষিণাঞ্চলের মংলা-বেনাপোল বন্দরসহ বরিশাল, খুলনা ও ঢাকা বিভাগের ২১ জেলার যোগাযোগের সহজ সড়ক পথ শরীয়তপুর-চাঁদপুর আঞ্চলিক মহাসড়ক। সহজ এবং কম সময়ে যোগাযোগের জন্য ২০০০ সালে শরীয়তপুর-চাঁদপুর ফেরি সার্ভিসের মাধ্যমে এ আঞ্চলিক মহাসড়কের সূচনা হয়। এতে দেশের পূর্বাঞ্চলের সাথে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের সড়ক পথে ২০০ থেকে ২৫০ কিলোমিটার রাস্তা কমে যায়।
    দেশের দক্ষিণাঞ্চলের সাথে পূর্বাঞ্চলের সহজ যোগাযোগ সচল রাখতে ২০১৪ সালে প্রায় ২১ কোটি টাকা ব্যয়ে শরীয়তপুর-চাঁদপুর আঞ্চলিক মহাসড়কের ৪০ কিলোমিটার সড়কের উন্নয়ন কাজ করা হয়। পরে দুরপাল্লার যান চলাচলের ফলে ৬ মাসের মধ্যে বিভিন্ন পয়েন্টে খানাখন্দের সৃষ্টি হয়।
    এরপর ২০১৬ সালে আংগারিয়া বাজার থেকে শুরু করে ইব্রাহিমপুর ফেরীঘাট পর্যন্ত বিভিন্ন স্থানে ৩ কোটি টাকা ব্যায়ে মেরামত করা হয়। চলতি অর্থ বছরে সড়কটি পুনরায় মেরামতের জন্য ৩৭ কোটি ৫৯ লাখ টাকা ব্যয়ে ৩টি প্যাকেজে সংস্কার কাজ শুরু হয়েছে। আগামী জানুয়ারি মাসের মধ্যে সড়কটির কাজ শেষ হবে বলে ধারণা করছেন শরীয়তপুর সড়ক ও জনজথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী।
    সরেজমিনে দেখা গেছে, শরীয়তপুর-চাঁদপুর আঞ্চলিক মহাসড়কের শরীয়তপুর পৌরসভার মনোহর বাজার থেকে বুড়িরহাট হয়ে ভেদরগঞ্জের নারায়নপুর পর্যন্ত প্রথম ও দ্বিতীয় প্যাকেজে সড়কের সংস্কার কাজ শেষ পর্যায়। তৃতীয় প্যাকেজের কাজও শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছেন জেলা সড়ক ও জনপথ বিভাগের কর্তৃপক্ষ।
    শরীয়তপুর-চাঁদপুর আঞ্চলিক মহাসড়কের চরসেনসাস এলাকার আব্দুর রহমান মিয়া, আনোয়ার হোসেন, রাজিব হোসেন, মন্নান মিয়া জানান, আমাদের চলাচলের জন্য কোন সড়ক ছিল না। এক সময় আমরা পায়ে হেঁটে চলাচল করতাম। এই এলাকাসহ ২১ জেলার কথা চিন্তা করে আওয়ামী লীগ সরকার শরীয়তপুর-চাঁদপুর আঞ্চলিক মহাসড়কটি তৈরি করেন।
    রিকসা চালক মতিন আহম্মেদ বলেন, সড়কটি মেরামত হচ্ছে বলে আমরা রিকসা চালাতে পারছি। মেরামত না হলে ঘরে বসে থাকতে হতো। মেরামত কাজ শরু করায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানাই।
    চরসেনসাস ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান জিতু মিয়া বেপারী বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা দেশরতœ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আছেন বলেই দেশের শিক্ষা, চিকিৎসা, সড়কসহ সব ক্ষেত্রে উন্নয়ন হচ্ছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আছেন বলেই খুব দ্রুত শরীয়তপুর-চাঁদপুর আঞ্চলিক মহাসড়কটি সংস্কার কাজ চলছে। দেশের উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে আওয়ামী লীগ সরকার আবার ক্ষমতায় আসবে ইন্সআল্লাহ্।
    শরীয়তপুর-চাঁদপুর ফেরিঘাটের বিআইডব্লিউটিসির ম্যানেজার আব্দুস সাত্তার বলেন, শরীয়তপুর ইব্রাহীমপুর-চাঁদপুর হরিণাঘাট এই নৌ-রুটে দেশের বৃহত্তর চারটি বিভাগের ২১টি জেলার যাত্রিবাহী ও পন্যবাহী যানবাহন চলাচল করে। যানবাহন পারাপারে ৪টি ফেরি ব্যবহৃত হয়। এ রুটে ৪টি ফেরি চলাচলের ফলে প্রতিদিন ৬ থেকে ৮ লাখ টাকা রাজস্ব আদায় হয়।
    শরীয়তপুর সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. জাকির হোসেন বলেন, শরীয়তপুর-চাঁদপুর আঞ্চলিক মহাসড়কটি মেরামতের জন্য ৩টি প্যাকেজে দরপত্র আহ্বান করার পর ৩টি প্যাকেজের কার্যাদেশ দেয়া হয়েছে। তিনটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান কাজ শুরু করেছে। আশা করছি আগামি দুই মাসের ভিতর সড়কটির কাজ শেষ করা সম্ভব হবে। এবার যে পদ্ধতিতে সড়কের কাজ করা হবে তাতে ৪ থেকে ৫ বছর যানবাহন চলাচল করতে পারবে। স্থায়ী ভাবে সমাধান করতে হলে সড়কটি পুনঃনির্মাণ প্রয়োজন। এজন্য একটি প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছে।

    :: শেয়ার করুন ::

    Comments

    comments

    সংবাদটি ফেইসবুকে শেয়ার করুন

    দৈনিক রুদ্রবার্তা/শরীয়তপুর/১৪ নভেম্বর ২০১৮/


    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
    ১০১১১২১৩১৪
    ১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
    ২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
    ২৯৩০৩১  
  • ফেসবুকে দৈনিক রুদ্রবার্তা

  • error: নিউজ কপি করা নিষেধ!!