• ব্রেকিং নিউজ

    জাজিরায় ১৩টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে তালাবদ্ধ করে রাখার অভিযোগ চেয়ারম্যানের ছেলের বিরুদ্ধে

    রুদ্রবার্তা প্রতিবেদক

    প্রকাশিত: ১৮ জানুয়ারি ২০১৯ সময়: ৯:১৩ অপরাহ্ণ 79 বার

    জাজিরায় ১৩টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে তালাবদ্ধ করে রাখার অভিযোগ চেয়ারম্যানের ছেলের বিরুদ্ধে

    শরীয়তপুরের জাজিরা উপজেলার বিকেনগর ইউনিয়নের বিকেনগর আনন্দ বাজারে ১৩টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান তালাবদ্ধ করে রাখার অভিযোগ উঠেছে চেয়ারম্যানের ছেলে মো. আজাদুল ইসলাম (মাসুম বেপারীর) বিরুদ্ধে। বুধবার সন্ধ্যায় মাসুুম শতাধিক লোকজন নিয়ে ওই ব্যবসা প্রতিষ্ঠান তালাবদ্ধ’র পাশাপাশি নিজের নামে সাইনবোর্ড ঝুলিয়ে দেয় বলে জানান ভুক্তোভোগীরা।
    স্থানীয় ও বাজার ব্যবসায়ীরা জানায়, জাজিরা-কাঁঠলবাড়ি ফেরিঘাট সড়কের পাশে প্রায় ৩০ বছর পূর্বে বিকেনগর আনন্দ বাজারটি গড়ে উঠে। বাজারটিতে ব্যবসায় প্রচার প্রসারের জন্য বিভিন্ন ধরনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বাড়তে থাকে। এতো বছর যাবত ওই বাজার ব্যবসায়িরা ভালো ভাবেই ব্যবসা করে আসছিলেন। কিন্তু হঠাৎ করে বুধবার সন্ধ্যায় মাদারীপুর জেলার সিবচর উপজেলার কাদিরপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. জাহাঙ্গীর বেপারীর ছেলে আজাদুল ইসলাম (মাসুম বেপারী) শতাধিক লোকজনসহ দেশীয় অস্ত্র নিয়ে বিকেনগর আনন্দ বাজারের পশ্চিম ও পূর্ব পাশের ডায়াগনস্টিক সেন্টার, দর্জি, সেলুন, মদি, পান, হোটেল, হার্টওয়ার, লেপ-তোসক ও চায়ের দোকানসহ ১৩টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান তালাবদ্ধ করে দেয় ও নিজের নামে সাইনবোর্ড ঝুলিয়ে দেয় । পরে ভুক্তভোগীরা বিকেনগর আনন্দ বাজার বনিক সমিতির সভাপতি সাইদুল সরদারকে বিষয়টি মৌখিকভাবে জানালে তিনি কোন ব্যবস্থা নেননি।
    তবে অভিযুক্ত চেয়ারম্যানের ছেলে আজাদুল ইসলাম (মাসুম বেপারী) বলছেন, জাজিরা উপজেলার বিকেনগর ইউনিয়নের ৯৮নং বড়কৃষ্ণনগর মৌজার ১৯৪নং এসএ ও ৫৩৩১ নং খতিয়ানে ৩৩ শতাংশ জমির পৈত্রিকসূত্রে মালিক তিনি। ৩৩ শতাংশ জমির মধ্যে ওই ১৩টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। গত ছয় মাস যাবত ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলো সরিয়ে নেয়ার জন্য বললেও তার কথা ব্যবসায়ীরা শুনেননি। তাই ১৩টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান তালাবদ্ধ করে দিয়েছেন তিনি।
    বাজারের বেপারী ভ্যারাইটিজ স্টোরের মালিক মোকলেছ বেপারী । তিনি অভিযোগ করে বলেন, ৩০ বছর ধরে আমি বিকেনগর আনন্দ বাজারে সরকারি খাস জমিতে মুদি ব্যবসা পরিচালনা করে আসছি। কিন্তু হঠাৎ প্রভাব খাটিয়ে বুধবার সন্ধ্যায় মাসুম বেপারী ৯০/১০০ লোকজন নিয়ে আমার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান তালাবদ্ধ করে দেন। এ ঘটনার পর বাজার বনিক সমিতির সভাপতিকে বিষয়টি জানালে তিনি কোন ব্যবস্থা নেননি। তাই বৃহস্পতিবার বিকালে মাসুম বেপারীর বিরুদ্ধে জাজিরা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও জাজিরা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসিল) বরাবর একটি অভিযোগ দায়ের করেছি।
    বাজারের মিষ্টির দোকান মোক্তার ছৈয়ালের। তিনি অভিযোগ করে বলেন, আমি ৮ বছর ধরে এ বাজারে মিষ্টির ব্যবসা করে আসছি। বুধবার সন্ধ্যায় মাসুম বেপারীরর নেতৃত্বে ৮০/৯০ জন লোক আমার দোকানে গিয়ে আমাকে দোকান থেকে বের করে দেয়। বের করে দিয়ে দোকান তালা মেরে বন্ধ করে দিয়েছে।
    বাজারের চায়ের দোকান জলিল দেওয়ানের। তিনি বলেন, আমি এই বাজারে চা বিক্রি করি। চা বিক্রি করে আমার স্ত্রী, ছেলে-মেয়েদের নিয়ে কোন রকমে বেঁচে আছি। কিন্তু গতকাল থেকে আমার দোকানটা বন্ধ। দোকান বন্ধ থাকলে সংসার নিয়ে চলাটা মসকিল।
    এ ব্যাপারে বিকেনগর আনন্দ বাজার বনিক সমিতির সভাপতি ও বিকেনগর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান সাইদুল সরদার বলেন, ব্যবসায়ীরা বিষয়টি মোবাইলের মাধ্যমে আমাকে জানিয়েছে। ইউএনও ও ওসি স্যারের সাথে এ ব্যাপারে কথা বলেছি। সমাধান করার চেষ্টা করবো।
    জাজিরা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. বেলায়েত হোসেন বলেন, দোকান বন্ধ সম্পর্কে ব্যবসায়ীরা বৃহস্পতিবার বিকেলে একটি লিখিত অভিযোগ করেছে। তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।
    এ ব্যাপারে জাজিরা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) প্রশান্ত কুমার বিশ্বাস বলেন, ব্যবসায়ীরা আমার কাছে অভিযোগটি নিয়ে এসেছিল। পরে জাজিরার ওসিকে আমি ঘটনাস্থলে পাঠিয়েছি। সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে বিষয়টি দেখা হবে।
    জাজিরা থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বেলায়েত হোসেন বলেন, এ ব্যপারে ইউএনও অফিসের মাধ্যমে অভিযোগ আসছে উভয় পক্ষের লোকজনদেররকে কাগজ নিয়ে আসতে বলা হয়েছে।

    :: শেয়ার করুন ::

    Comments

    comments

    সংবাদটি ফেইসবুকে শেয়ার করুন

    দৈনিক রুদ্রবার্তা/শরীয়তপুর/১৮ জানুয়ারি ২০১৯/


    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত


    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫
    ১৬১৭১৮১৯২০২১২২
    ২৩২৪২৫২৬২৭২৮  
  • ফেসবুকে দৈনিক রুদ্রবার্তা

  • error: নিউজ কপি করা নিষেধ!!