• ব্রেকিং নিউজ

    জাজিরার দুর্বাডাঙ্গা আবুবকর সিদ্দিকিয়া দারুসসুন্নাহ দাখিল মাদরাসার সুপার নিয়োগে ছলচাতুরি

    রুদ্রবার্তা প্রতিবেদক

    প্রকাশিত: ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ সময়: ৭:৪২ পূর্বাহ্ণ 46 বার

    জেলার জাজিরা উপজেলার দুর্বাডাঙ্গা আবুবকর সিদ্দিকিয়া দারুসসুন্নাহ দাখিল মাদরাসার সুপার নিয়োগ নিয়ে ছলচাতুরি ও অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। ইতোপূর্বে স্থানীয় ও জাতীয় পত্রিকায় একাধিকবার নিয়োগ আহবান করেও সুপার নিয়োগ দিতে পারেনি কর্তৃপক্ষ। নিয়োগের ক্ষেত্রে অনিয়ম ও ছলচাতুরির আশ্রয় গ্রহন করায় এ সমস্যা হচ্ছে বলে জানান ভুক্তোভোগীরা।
    মাদরাসূত্র জানায়, গত ৫ মে স্থানীয় দৈনিক হুংকার ও যুগান্তর পত্রিকায় মাদরাসার ভারপ্রাপ্ত সুপার গোলাম ফারুক একজন সুপার নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেন। নিয়োগ আহবান বিধিমোতাবেক না হওয়ায় তা বাতিল বলে গণ্য হয়। নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি বাতিলের কারণ হিসেবে জানা গেছেন মাদরাসার ভারপ্রাপ্ত সুপার ওই মাদরাসার সহ-সুপার। তিনি ভারপ্রাপ্ত সুপার হিসেবে সুপার নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি পত্রিকায় প্রকাশ করে নিজেই আবার প্রার্থী হন। পরবর্তীতে একই মাসের ২৭ তারিখ মাদরাসা ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি সুপার নিয়োগের জন্য পুনরায় স্থানীয় ও জাতীয় পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেন। সেই বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী ৭ জন সুপার পদে আবেদন দাখিল করেন। প্রাথমিক বাছাইতে কামাল হোসেন নামে এক প্রার্থীর আবেদন বাতিল হয়। বৈধ আবেদন পত্র বলে গৃহিত হয় নিজ মাদরাসার সহ-সুপার (ভারপ্রাপ্ত সুপার) গোলাম ফারুক, আবুল বাশার, মো. মজিবুর রহমান, আব্দুল সবুর, মোস্তফা কামাল ও আতিয়ার রহমান নামে ৬ জনের।
    পরবর্তীতে মোস্তফা কামাল ও আতিয়ার রহমানকে বাদ দিয়ে অপর ৪ জনকে নিয়োগ পরীক্ষায় অংশগ্রহনের জন্য কার্ড ইস্যু করেন নিয়োগ কমিটি। গত ২৭ সেপ্টেম্বর জাজিরা উপজেলা নির্বাহী অফিসার এর কার্যালয় অথবা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তার কার্যালয়ে নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা উল্লেখ থাকলেও মাদরাসার সহ-সুপার গোলাম ফারুক (বর্তমান সুপার প্রার্থী) এর পরামর্শ ক্রমে মাদরাসা ভবনে নিয়োগ পরীক্ষার প্রস্তুতি গ্রহন করেন। মাদরাসা ভবনে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হলে অনিয়ম হওয়ার আশঙ্কা থাকতে পারে বলে ৪ জন পরীক্ষার্থীর দুই জনই উপস্থিত হয়নি। তাই এবারও কর্তৃপক্ষ সুপার নিয়োগ করতে পারেনি।
    মাদরাসা ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আব্দুল রাজ্জাক বেপারী বলেন, সুপার নিয়োগের জন্য ঢাকা থেকে এসেছি। তিন জনের কম প্রার্থী উপস্থিত থাকায় পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়নি। পরবর্তীতে পুনরায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে সুপার নিয়োগ করা হবে।
    মাদরাসার ভারপ্রাপ্ত সুপার মৌলভী শিক্ষক হারুন উর রশিদ বলেন, একজন দক্ষ সুপার নিয়োগের জন্য প্রক্রিয়া চলছে। পরীক্ষার সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছিল। এবার কাঙ্খিত প্রার্থী উপস্তিত না হওয়ায় নিয়োগ পরীক্ষা বাতিল করা হয়েছে। পরবর্তীতে নিয়োগ প্রক্রিয়া বিধি মোতাবেক সম্পন্ন করা হবে।

    :: শেয়ার করুন ::

    Comments

    comments

    সংবাদটি ফেইসবুকে শেয়ার করুন

    দৈনিক রুদ্রবার্তা/শরীয়তপুর/২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯/


    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০৩১  
  • ফেসবুকে দৈনিক রুদ্রবার্তা

  • error: নিউজ কপি করা নিষেধ!!