শরীয়তপুর বৃহস্পতিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ইং, ১৪ ফাল্গুন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
আজ বৃহস্পতিবার | ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ইং

যে নেতার জীবনী সকল তরুণকে অনুপ্রেরণা দেয়

শনিবার, ০৯ নভেম্বর ২০১৯ | ৮:২২ পূর্বাহ্ণ | 139 বার

যে নেতার জীবনী সকল তরুণকে অনুপ্রেরণা দেয়

ছোটবেলা থেকে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ লালন করে স্কুল ছাত্রনেতা থেকে হয়েছেন জাতীয় নেতা। যা সকলের জন্য অনুপ্রেরণামূলক। এ কে এম এনামুল হক শামীম শরীয়তপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য, পানি সম্পদ মন্ত্রনালয়ের উপমন্ত্রী। তিনি দায়িত্ব গ্রহনের ১০ মাসের মধ্যেই নড়িয়া- সখিপুর নদী রক্ষা বাধ প্রকল্প বাস্তবায়ন, ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ, রাস্তা-ঘাট নির্মাণ, হাসপাতাল নির্মাণ, স্কুল এমপিও ভুক্তকরন, মসজিদ নির্মাণ এবং উন্নয়ন কাজের জন্য স্থানীয় জনগনের নিকট শ্রদ্ধা এবং ভালোবাসার আরেক নামে পরিণত হয়েছেন এ কে এম এনামুল হক শামীম। এছাড়াও তিনি তাঁর মায়ের নামে প্রতিষ্ঠিত “বেগম আশ্রাফুন্নেসা ফাউন্ডেশন” এর দ্বারা নদী ভাঙ্গন কবলিত মানুষদের, অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থদের, বন্যা এবং ঘূর্নিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে সাহায্যের করেছেন। এই জনপ্রিয় রাজনীতিবিদের জীবনী নিচে তুলে ধরা হলোঃ-
প্রারম্ভিক জীবন- এ কে এম এনামুল হক শামীম ১৯৬৫ সালের ১০ নভেম্বর শরীয়তপুর জেলার ভেদরগঞ্জ উপজেলার সখিপুর থানার চর গোপালপুর ইউনিয়নের মালতকান্দি গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতার নাম আবুল হাসেম মিয়া ও মাতার নাম আশ্রাফুন নেছা। শামীম নোয়াখালীর এ এম উচ্চ বিদ্যালয় থেকে মাধ্যমিক এবং ঢাকা রেসিডেনসিয়াল মডেল কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক সম্পন্ন করে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন।
রাজনৈতিক জীবন- শামীম শিক্ষার্থী থাকাকালীন বাংলাদেশ ছাত্রলীগে যোগদানের মাধ্যমে রাজনীতিতে প্রবেশ করেন। ১৯৭৯ এম এ উচ্চ বিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক, ১৯৮৪ সালে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক, ১৯৮৬ সালে সাধারণ সম্পাদক ও ১৯৮৮ সালে বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি নির্বাচিত হন। ১৯৮৯ সালে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (জাকসু) সহ-সভাপতি (ভিপি) নির্বাচিত হন। পরের বছর ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য, ১৯৯২ সালে সিনিয়র সহ-সভাপতি ও ১৯৯৪ সালে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি নির্বাচিত হন। ২০০২ সালে আওয়ামী লীগের পর্যবেক্ষক সদস্য হিসেবে যোগদানের মাধ্যমে তিনি মূল রাজনীতিতে প্রবেশ করেন। ২০১২ সালের ফেব্রুয়ারিতে প্রথমবার ও ডিসেম্বরে দ্বিতীয়বারেরমত আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য হন এবং ২০১৬ সালের অক্টোবরে আওয়ামী লীগের ২০তম সম্মেলনে তিনি কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত হন।
২০১৮ সালে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে শামীম শরীয়তপুর-২ আসন থেকে আওয়ামী লীগের মনোনয়নে প্রথমবারেরমত সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। নির্বাচনের পর আওয়ামী লীগ সরকার গঠন করলে তিনি ৭ জানুয়ারি ২০১৯ সালে শেখ হাসিনার চতুর্থ মন্ত্রীসভায় পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রীর দায়িত্ব পান।
ব্যক্তিগত ও পারিবারিক জীবন- তিনি ব্যক্তিগত জীবনে বিবাহিত এবং তার দুই মেয়ে রয়েছে। তার দাদা রওশন আলীও একজন জনপ্রতিনিধি ছিলেন। তাঁর স্ত্রী তাহমিনা খাতুন সরকারের একজন উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তা। তাঁর ছোট ভাই এ কে এম আমিনুল হক বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর একজন বিগ্রেডিয়ার জেনারেল। শামীম পোর্ট সিটি ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, চট্টগ্রাম এর প্রতিষ্ঠাতা ও বোর্ড অব ট্রাস্টিজের চেয়ারম্যান। এছাড়াও তিনি অসংখ্য সামাজিক, ধর্মীয় ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা।

:: শেয়ার করুন ::

Comments

comments


সর্বশেষ  
জনপ্রিয়  
ফেইসবুক পাতা

error: কপি করা নিষেধ!!