শরীয়তপুর রবিবার, ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ইং, ১০ ফাল্গুন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
আজ রবিবার | ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ইং

শরীয়তপুরে কীর্তিনাশা নদী থেকে চোরাই মাটিসহ ৪ টি ট্রলার জব্দ

শুক্রবার, ১৭ জানুয়ারি ২০২০ | ৬:৫৩ পূর্বাহ্ণ | 178 বার

শরীয়তপুরে কীর্তিনাশা নদী থেকে চোরাই মাটিসহ ৪ টি ট্রলার জব্দ

শরীয়তপুর সদর উপজেলার আংগারিয়া ইউনিয়নের ভাষানচর এলাকার কীর্তিনাশা নদী থেকে চোরাই মাটিসহ চারটি ট্রলার জব্দ করেছে আংগারিয়া ফাঁড়ি পুলিশ। বৃহস্পতিবার (১৬ জানুয়ারি) ভোরে অভিযান চালিয়ে নদীর তীর থেকে চুরি করে মাটি কাটা অবস্থায় এই ট্রলার জব্দ করা হয়। এ সময় ট্রলার মালিক ও মাটি কাটা শ্রমিকরা পালিয়ে যায়। ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে আটককৃত ট্রলার ও ট্রলার মালিকদের জেল জরিমানার আওতায় আনা হবে জানিয়েছেন দায়িত্বরত পুলিশ।
আংগারিয়া ফাঁড়ি সূত্র জানায়, আংগারিয়া ইউনিয়নের ভাষানচর এলাকায় কীর্তিনাশা নদীর তীর ঝুঁকিতে ফেলে কতিপয় অসাধু মাটি ব্যবসায়ী রাতের আধারে চুরি করে মাটি কেটে নেয় বলে অভিযোগ ছিল। অভিযোগের ভিত্তিতে গত ডিসেম্বর মাসে গভীর রাতে অভিযান পরিচালনা করে তিনটি ট্রলার জব্দ করে ভ্রাম্যমান আদালতে উপস্থাপন করা হয়। ভ্রাম্যমান আদালত তাদের ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করে নদীর তীর থেকে মাটি না কাটার জন্য সতর্ক করে। আবার জানা যায় সেই চক্রটি পুনরায় সক্রীয় হয়ে নদীর তীর থেকে মাটি কাটছে।
বৃহস্পতিবার (১৬ জানুয়ারী) ভোরে আংগারিয়া পুলিশ ফাড়ির ইনচার্জ মিন্টু মন্ডল এর নির্দেশনায় ফকরুল ইসলামের নেতৃত্বে এটিএসআই আকরামুজ্জামান ও সালাহউদ্দিনের সহায়তায় আবার অভিযান পরিচালনা করা হয়। এ সময় নদীর তীর থেকে অবৈধভাবে মাটি কাটারত অবস্থায় ৪ টি ট্রলার জব্দ করা হয়।
জানা গেছে, কামাল দেওয়ানের ১ টি, ইকবাল মাদবরের ২ টি ও মনির কাজীর ১ টি ট্রলার। এ সময় ট্রলার মালিক ও মাটি কাটার শ্রমিকরা পালিয়ে যায়। আটককৃত ট্রলার ভ্রাম্যমান আদালতে উপস্থাপন করা হবে।
এলাকাবাসী জানায়, এই চক্রটি প্রতিবছর নদীর তীর থেকে রাতের আঁধারে মাটি কাটে। এতে এলাকায় নদী ভাঙ্গন শুরু হয়েছে। দাঁদপুর এলাকায় স্থানীয় সরকার প্রকৌশল বিভাগের কার্পেটিং রাস্তা নদীগর্ভে বিলিন হয়েছে। উত্তর ভাষানচর এলাকার একটি গ্রামের প্রায় ৫০ টি বসত বাড়ি নদী ভাঙ্গনের ঝুঁকিতে রয়েছে। এখন নদীর উপর নির্মিত নতুন সেতুটিও ঝুঁকির মুখে। নদীর তীরের মাটি চোর চক্রটি নিয়ন্ত্রণ না করা গেলে নদীর তীরবর্তী রাস্তা ঘাট, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও বসত বাড়ি রক্ষা করা সম্ভব হবে না।
অভিযান পরিচালনাকারী এসআই ফকরুল ইসলাম বলেন, গভীর রাতে আংগারিয়া ইউনিয়নের কীর্তিনাশা নদী তীরের বিভিন্ন এলাকা থেকে এই চক্রটি রাতের আধারে চুরি করে মাটি কাটে। ইতোপূর্বে এই চক্রটির বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করা হয়। তখন তিনটি ট্রলার রেখে পালিয়ে যায়। আবারও সেই চোর চক্রটি সক্রিয় হয়। এবারের অভিযানে ৪ টি ট্রলার জব্দ করা হয়েছে। আটককৃত ট্রলার ভ্রাম্যমান আদালতে উপস্থাপন করা হবে।

:: শেয়ার করুন ::

Comments

comments


সর্বশেষ  
জনপ্রিয়  
ফেইসবুক পাতা

error: কপি করা নিষেধ!!