• ব্রেকিং নিউজ

    মুক্তিযুদ্ধের চেতনা যার মধ্যে আছে, সে কখনোই দেশের দায়িত্বে অবহেলা করতে পারে না-জেলা প্রশাসক কাজী আবু তাহের।

    জাজিরায় শিশু ও নারী উন্নয়নে সচেতনতামূলক ওরিয়েন্টেশন কর্মশালা

    রুদ্রবার্তা প্রতিবেদক

    প্রকাশিত: ১৭ জানুয়ারি ২০১৯ সময়: ৮:০৬ পূর্বাহ্ণ 297 বার

    জাজিরায় শিশু ও নারী উন্নয়নে সচেতনতামূলক ওরিয়েন্টেশন কর্মশালা

    শরীয়তপুরের জাজিরা উপজেলা প্রশাসনের সার্বিক সহযোগিতায় জেলা তথ্য অফিসের আয়োজনে বুধবার ১৬ জানুয়ারি সকাল সাড়ে ১০টায় “শিশু ও নারী উন্নয়নে সচেতনতামূলক যোগাযোগ কার্যক্রম (৫ম পর্যায়)” শীর্ষক প্রকল্পের অধীনে নেতৃস্থানীয় ব্যক্তিবর্গের ওরিয়েন্টেশন কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়।
    জাজিরা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা প্রশান্ত কুমার বিশ্বাসের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন, শরীয়তপুর জেলা প্রশাসক কাজী আবু তাহের।
    জেলা তথ্য অফিসার মুহাম্মদ জালাল উদ্দিনের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, জাজিরা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মাহমুদুল হাসান ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজি: পংকজ চন্দ্র দেবনাথ। এছাড়া আরও উপস্থিত ছিলেন, জাজিরা উপজেলার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, সদস্য, শিক্ষক-শিক্ষিকা, ধর্মীয় ব্যক্তিত্ব, সাংবাদিক, এনজিও কর্মী, গ্রামীণ সমবায় সমিতি, ক্রীড়া সংগঠনের সদস্যবৃন্দ ও সমাজের গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।
    কর্মশালায় আলোচনার বিষয়বস্তু ছিল, ১৫টি জীবন তথ্য ও একটি কঐঐচ, শিশু ও নারীর অধিকার, শিশুর যথাযথ বিকাশ অটিজম ও শিশুর মানসিক স্বাস্থ্য, জন্ম নিবন্ধন, শিক্ষা, নারীর ক্ষমতায়ন, নারীর সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচী, শিশুর পানিতে ডুবা প্রতিরোধ, পরিবেশ সুরক্ষা ও দূর্যোগকালীন নারী ও শিশুর সচেতনতা, জেন্ডার সমতা, নিরাপদ মাতৃত্ব, শিশু ও নারী নির্যাতন প্রতিরোধ, মাদক ও জঙ্গিবাদ প্রতিরোধ এবং নিরাপদ সড়ক ইত্যাদি।
    বিষয়বস্তুর আলোকে প্রধান অতিথির বক্তব্যে কাজী আবু তাহের বলেন, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা যার মধ্যে আছে, সে কখনোই দেশের দায়িত্বে অবহেলা করতে পারে না। সে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করে দেশের কাজে নিয়োজিত করার ক্ষেত্রে কখনোই কুন্ঠিত হতে পারে না। আজকের প্রজন্মের প্রতিটি ছাত্র-ছাত্রীকেই একেকজন মুক্তিযুদ্ধা হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। কারন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, জাতির পিতার যে স্বপ্ন ছিলো- বাংলাদেশের মানুষ শিক্ষা পাবে, স্বাস্থ্য পাবে, চিকিৎসা পাবে, খাদ্য পাবে, বস্ত্র পাবে, উন্নত জীবনের অধিকারী হবে। সেই স্বপ্ন বাস্তবায়নের কাজ তিনি হাতে নিয়েছেন। বাংলাদেশকে ইতোমধ্যেই তিনি উন্নয়নশীল দেশে পরিণত করতে পেরেছেন। স্বপ্ন দেখিয়েছেন ভিশন ২০২১। ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশে রূপান্তরিত হবে এবং ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত হবে। প্রধানমন্ত্রী জাতির পিতার স্বপ্ন বাস্তবায়নে দ্রুত গতিতে সামনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছেন আর এই অগ্রগতিকে ধরে রাখতে এবং দেশকে অর্থনৈতিকভাবে মুক্ত করতে আজকের তরুণ প্রজন্মকে, প্রতিটি ছাত্র-ছাত্রীকে অর্থনৈতিক মুক্তির সংগ্রামে একেক জন মুক্তিযুদ্ধা হিসেবে গড়ে ওঠতে হবে। সমাজে নারী-পুরুষ কোন ভেদাভেদ থাকবে না। সংসারে ছেলে হলে যেমন সবাই খুশি হবে মেয়ে হলেও সবাই সমানভাবেই খুশি হবে। আমরা চাই দেশে কোন নারী নির্যাতন থাকবে না। আজ এখানে যে চল্লিশ জন উপস্থিত রয়েছেন আমি চাই জাজিরা উপজেলায় এই চল্লিশ জনের প্রত্যেকে একেকজন যোদ্ধা হিসেবে তৈরি হবে। যারা জাজিরা উপজেলায় নারী নির্যাতন বলেন, মাদক নিয়ন্ত্রণ বলেন, সবকিছুতেই আপনারা মডেল হিসেবে কাজ করবেন। আমি সেই বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান যেই বাংলাদেশ স্বপ্ন দেখেছিলেন। বাংলাদেশ হবে ক্ষুধা ও দারিদ্রমুক্ত সুখী সমৃদ্ধ একটি বাংলাদেশ। সেই বাংলাদেশ বিনির্মাণে আপনারা সকলেই যে যার অবস্থান থেকে এগিয়ে আসবেন। এই আহ্বান জানিয়ে আমি আমার বক্তব্য শেষ করছি।

    :: শেয়ার করুন ::

    Comments

    comments

    সংবাদটি ফেইসবুকে শেয়ার করুন

    দৈনিক রুদ্রবার্তা/শরীয়তপুর/১৭ জানুয়ারি ২০১৯/


    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২
    ১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
    ২০২১২২২৩২৪২৫২৬
    ২৭২৮২৯৩০৩১  
  • ফেসবুকে দৈনিক রুদ্রবার্তা

  • error: নিউজ কপি করা নিষেধ!!