• ব্রেকিং নিউজ

    জাজিরায় বিভিন্ন স্থানে একাধিক অবৈধ ড্রেজার চালাচ্ছেন কিছু অসাধু চক্র

    রুদ্রবার্তা প্রতিবেদক

    প্রকাশিত: ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ সময়: ৬:৪২ পূর্বাহ্ণ 293 বার

    জাজিরায় বিভিন্ন স্থানে একাধিক অবৈধ ড্রেজার চালাচ্ছেন কিছু অসাধু চক্র

    শরীয়তপুরের জাজিরা উপজেলার বিভিন্ন স্থানে একাধিক অবৈধ ড্রেজার চলমান রয়েছে। এসব ড্রেজার চালাচ্ছেন কিছু অসাধু চক্র। যার ফলে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে সাধারন মানুষ। আর সরকারের রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে অসাধু চক্রগুলো।
    জাজিরা উপজেলার সেনেরচর ইউনিয়নের করিম উদ্দিন মাদবর কান্দির মাঝ দিয়ে বয়ে যাওয়া পদ্মা নদীর শাখায় এবং বড় গোপালপুর ও জয়নগর ইউনিয়নের হাজি মাদবরের গ্রামের মাঝ দিয়ে বয়ে যাওয়া আড়িয়াল খা’র শাখা নদী থেকে দীর্ঘদিন যাবৎ অবৈধ ড্রেজার দিয়ে বালু উত্তলণ করছেন। যার ফলে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছেন নদীর দু’পারের মানুষ, হারাচ্ছেন ফসলি জমি। এ যেনো দেখার কেউ নাই।
    গত সোমবার ওই এলাকাগুলোতে প্রবেশ করলে দেখা যায় এমন ঘটনা। স্থানীয় মানুষের সাথে আলাপ করে জানা যায়, সেনেরচর করিম উদ্দিন মাদবর কান্দির গ্রামের ফরমান সিকদারের ছেলে এক সময়কার দিনমজুর দিলু শিকদার ও ইছুব ফকির মিলে পাশাপাশি একই সাথে দুইটি ড্রেজার চালাচ্ছেন। যার ফলে নদীর উপড়ে ব্রীজটি হুমকির মুখে আছে। অপরদিকে জয়নগর ইউনিয়নের হাজি কান্দি গ্রামের নদী থেকে একই কয়দায় দুইটি ড্রেজার দিয়ে বালু উত্তলণ করছেন স্থানীয় বাবুল ফকির, সেরাজুল ও সোহাগ মিলে দিনের পর দিন।
    এতে করে চলমান ড্রেজার এর কারণে আশপাশে থাকা ব্রীজটির গোড়ার বালু সরে ব্রীজের পিলার ভেঙ্গে যাওয়ার সম্ভাবনায় আতংকে আছে এলাকার জনগণ। জানা যায়, বছরের পর বছর ধরে চলছে এমন অপকর্মটি, যা ভাবিয়ে তুলছে এলাকার জমি হারানো মানুষদের ভয়ভীতি। ড্রেজারের কবলে ক্ষতিগ্রস্থ লোকজনের সাথে আলাপ করলে তারা বলেন, দিলু সিকদার, বাবুল ফকির, সেরাজুর, সোহাগসহ নাম না জানা একাধিক চক্র এভাবেই চোখের সামনে রমরমাট ব্যবসা চালাচ্ছেন। এতে করে সরকার তার রাজস্ব হারাচ্ছে, আমরা দিন দিন ক্ষতির দিকে ঝুকছি। এর আগেও উপজেলা প্রশাসন কে অভিযোগ করেও কোন সুফল পাওয়া যায়নি। কিন্তু সকল বাঁধা উপেক্ষা করে এই চক্রটি চালাচ্ছে তাদের বিশাল ব্যবসা। এই অত্যাচারের হাত থেকে রক্ষা না করলে অচিরেই আমরা হারাবো মাটির শক্তি। আর সাধারণ মানুষ মনে করেন অবৈধ চক্রগুলোকে মোবাইল কোর্টের আওতায় আনা হলে বন্ধ হতে পারে এমন অপকর্ম। এবং সেই সাথে বাঁচবে সরকারের রাজস্ব।
    এ ব্যাপারে জাজিরা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা প্রশান্ত কুমার বিশ^াসকে মুঠোফোনে বিষয়টি জানালে তিনি দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানান।

    :: শেয়ার করুন ::

    Comments

    comments

    সংবাদটি ফেইসবুকে শেয়ার করুন

    দৈনিক রুদ্রবার্তা/শরীয়তপুর/১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯/


    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত


    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫
    ১৬১৭১৮১৯২০২১২২
    ২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
    ৩০৩১  
  • ফেসবুকে দৈনিক রুদ্রবার্তা

  • error: নিউজ কপি করা নিষেধ!!