বৃহস্পতিবার, ২৭শে জানুয়ারি, ২০২২ ইং, ১৩ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৪শে জমাদিউস-সানি, ১৪৪৩ হিজরী
বৃহস্পতিবার, ২৭শে জানুয়ারি, ২০২২ ইং
তিন জেলায় সাংগঠনিক সফরে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ

বিএমএসএফ কারো রক্তচক্ষুকে ভয় পায়না-

বিএমএসএফ কারো রক্তচক্ষুকে ভয় পায়না-
বিএমএসএফ কারো রক্তচক্ষুকে ভয় পায়না-

অসহায় নিপিড়িত অবহেলীত,নির্যাতিত সাংবাদিকদের পাশে থাকার জন্যই জন্ম হয়েছে বিএমএসএফ’র। কারও রক্ত চক্ষুকে ভয় পায় না বিএমএসএফ। গত ১০ বছরে রক্ত চক্ষু উপেক্ষা করে সাংবাদিকদের উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে বিএমএসএফ। ইতিমধ্যে মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম সাংবাদিকদের জন্য ঢাকায় শেল্টার হোম, পুরানো পল্টন এলাকা থেকে অফিস সরিয়ে বড় পরিসরে মতিঝিলস্থ এলাকায় কার্যালয় স্থানান্তরিত করা হয়।সাংবাদিক প্রশিক্ষন সহ সাংবাদিকদের সুরক্ষা আইন প্রনয়নের দাবী সহ নানা কর্মসুচি বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।
অবহেলীত,নির্যাতীত ও নিপিড়িত সাংবাদিকদের অধীকার নিয়ে কথা বলে বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম (বিএমএসএফ)। তৃনমূল সাংবাদিকদের বৃহৎ সংগঠন বিএমএসএফ এখন নির্যাতিত নিপীড়িত ও পেশাদার সাংবাদিকদের সংগঠন হিসেবে প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে হাঁটছেন। ব্রান্মনবাড়িয়া,কুমিল্লা ও ফেনী জেলা বিএমএসএফ কর্তৃক আয়োজিত পৃথক পৃথক মত বিনিময় সভায় কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ এসব কথা বলেন।
কুমিল্লা জেলা আহবায়ক কমিটির আহবায়ক জসিমউদ্দিন চাষীর সভাপতিত্বে এবং যুগ্ন আহবায়ক এম এইচ মহিউদ্দিন এর সঞ্চালনায় সভা অনুষ্টিত হয় এবং ফেনী জেলা বিএমএসএফ’র সাবেক সভাপতি জসিম মাহমুদের সভাপতিত্বে, কেন্দ্রীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক হাসনাত তুহিন’র সমন্বয়ে, প্রধান অতিথী ছিলেন সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি শহিদুল ইসলাম পাইলট, বিশেষ অতিথী ছিলেন সিনিয়র সহ সভাপতি সাইদুর রহমান রিমন। সভায় বক্তব্য রাখেন বিএমএসএফ’র প্রতিষ্ঠাতা সাধারন সম্পাদক আহম্মেদ আবু জাফর, সাংগঠনিক সম্পাদক ও চট্রগ্রাম বিভাগীয় সমন্বয়কারী এম এ আকরাম।
এ সময় উপস্হিত ছিলেন কেন্দ্রীয় কমিটির সহ সম্পাদক সোহাগ আরেফীন, সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল কবির সোহেল সর্দার, কেন্দ্রীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক হাসনাত তুহিন,অর্থ সম্পাদক শারমিন সুলতানা মিতু,উপ প্রচার সম্পাদক জুয়েল খন্দকার,কেন্দ্রীয় সদস্য তোফায়েল ইসলাম মিলন,ফেনী জেলা বিএমএসএফ’র সাবেক সভাপতি এম এ সাইদ খান, দাগনভূঞা উপজেলার সাবেক সভাপতি এম এ তাহের পন্ডিত, জহিরুল ইসলাম জাহাঙ্গীর, ছিদ্দিকুর রহমান,রফিকুল ইসলাম, আহমেদ হিমেল ও গাজী মো: হানিফ প্রমুখ।

এর আগে ব্রান্মনবাড়িয়ার রিপোটার্স ক্লাবে, আমিনুল ইসলাম আহাদের সঞ্চালনায় সকাল ১১ টায় অনুষ্টিত জেলা বিএমএসএফ নেতাকর্মীদের সাথে মত বিনিময় সভার মধ্যদিয়ে দিনের সাংগঠনিক কর্মসুচী শুরু হয়।এর পর কসবা উপজেলা বিএমএসএফ’র নেতৃবৃন্দের সাথেও কেন্দ্রীয় কমিটির মতবিনিময় সভা অনুষ্টিত হয়।
এ ছাড়া ব্রান্মনবাড়িয়ায় বিএমএসএফ এর কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আহাদের মাতার কবর জিয়ারত করেন নেতৃবৃন্দরা।
টানা ৩৬ ঘন্টা সাংগঠনিক সফরে কেন্দ্রীয় সভাপতি শহিদুল ইসলাম পাইলট সহ নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে তিন’টি জেলার নেতা কর্মীদের মাঝে প্রান চাঞ্চল্যতা ফিরে আসে।কেন্দ্রীয় কমিটির এই সফর কে মাইলফলক হিসেবে দেখছেন বিএমএসএফ’র সকল জেলার সদস্যরা।