শুক্রবার, ১৯শে আগস্ট, ২০২২ ইং, ৪ঠা ভাদ্র, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২১শে মুহাররম, ১৪৪৪ হিজরী
শুক্রবার, ১৯শে আগস্ট, ২০২২ ইং

কালকিনিতে হত্যার ঘটনা নিয়ে দু’পক্ষের মাঝে দফায়-দফায় সংঘর্ষে আহত-১২

কালকিনিতে হত্যার ঘটনা নিয়ে দু’পক্ষের মাঝে দফায়-দফায় সংঘর্ষে আহত-১২

একটি হত্যার ঘটনা নিয়ে মাদারীপুরের কালকিনিতে দু’পক্ষের মাঝে দফায়-দফায় সংঘর্ষ, বাড়ীঘর ভাংচুরের ঘটনা ঘটে। এতে করে উভয় পক্ষের মহিলাসহ কমপক্ষে ১২ জন আহত হয়। আহতদের স্থানীয় লোকজন উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসহ বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করে। এদিকে হত্যার ঘটনায় নিহতের পরিবার থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। পরে থানা পুলিশ মোঃ সোবাহান মুন্সী নামের একজন আসামীকে গ্রেফতার করেন। ১৯ জুন বুধবার ভোরে উপজেলার আলীনগর এলাকার কোলচুরি সস্থাল গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। তবে ঘটনার পর থেকে ওই এলাকায় পুলিশ মোতায়ন রয়েছে।
এলাকা, ভুক্তভোগী ও পুলিশ সুত্রে জানা গেছে, দীর্ঘদিন ধরে ওই এলাকায় বর্তমান ইউপি সদস্য নান্নু মোল্লা ও একই গ্রামের মাহাবুব বেপারীর মধ্যে বিরোধ চলে আসছে। এরই জের ধরে গত সোমবার সকালে জিয়াউল মোল্লা নামের এক যুবককে একা পেয়ে মাহাবুব বেপারীর লোকজন দেশীয় অস্ত্র দিয়ে কুঁপিয়ে হত্যা করেন। এ হত্যার ঘটনার পর থেকে উভয় পক্ষের লোকজনের সাথে দফায়-দফায় সংঘর্ষ, বাড়ীঘর ভাংচুর ও লুট পাটের ঘটনা ঘটে। এতে করে উভয় পক্ষের মহিলাসহ কমপক্ষে ১২ জন আহত হয়। আহতের স্থানীয় লোকজন উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসহ বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এদিকে নিহত জিয়াউলের চাচা মকবুল মোল্লা বাদি হয়ে কালকিনি থানায় একটি হত্যা মামলা তদায়ের করেন। পরে কালকিনি থানা পুলিশ মোঃ সোবাহান মুন্সী নামের একজন আসামীকে গ্রেফতার করেন। অপরদিকে খবর পেয়ে কালকিনি থানার ওসি মোঃ মোফাজ্জেল হোসেন সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে আলীনগর এলাকার ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ হাফিজুর রহমান মিলনের সহযেগীতায় এনায়েতনগর এলাকার পশ্চিম দরীরচর গ্রামের মিরাজুল হাওলাদের বাড়ী থেকে লুটকৃত ১২ টি গরু ও ৬টি ছাগল উদ্ধার করে। তবে ঘটনার পর থেকে ওই স্থানে পুলিশ মোতায়ন রয়েছে।
ভুক্তভোগী হাকিম তালুকদার, জামাল ও কামালসহ বেশ কয়েকজনে অভিযোগ করে বলেন, আমরা নিরহ মানুষ আমাদের বসতবাড়ীতে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করেছেন নান্নু মেম্বারের লোকজন। আমরা হামলাকারীদের বিচার চাই।
আলীনগর এলাকার ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ হাফিজুর রহমান মিলন বলেন, এ হামলার তীব্র নীন্দা জানাই। যারা মুল অপরাধী তাদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় এনে বিচারের দাবী জানাই। তবে যারা নীরহ লোকজনের বাড়ীঘর ভাংচুর ও লুটপাট করছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য প্রশাসনের দৃষ্টি কামনা করছি।
এ ব্যাপারে কালকিনি থানার ওসি মোঃ মোফাজ্জেল হোসেন বলেন, হত্যার ঘটনায় মামলা হয়েছে। আমরা একজন আসামীকে গ্রেফতার করছি। লুট-পাটের ঘটনা শুনে সাথে সাথে পুলিশ পাঠিয়েছি। এখন পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। পাশাপাশি ঘটনার সাথে যারা জড়িত বাকী আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। এবং আমরা লুটকৃত ১২ টি গরু ও ৬ টি ছাগল উদ্ধার করেছি।


error: Content is protected !!