শুক্রবার, ২২শে জানুয়ারি, ২০২১ ইং, ৮ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৯ই জমাদিউস-সানি, ১৪৪২ হিজরী
শুক্রবার, ২২শে জানুয়ারি, ২০২১ ইং

সমাপ্ত হলো পদ্মাসেতুর জাজিরা প্রান্তের সংযোগ সুপার টি-গার্ডার স্থাপন

সমাপ্ত হলো পদ্মাসেতুর জাজিরা প্রান্তের সংযোগ সুপার টি-গার্ডার স্থাপন

পদ্মাসেতুর জাজিরা প্রান্তের সংযোগ সেতুর (ভায়াডাক্ট) সবগুলো সুপার টি-গার্ডারের কাজ সম্পন্ন হয়েছে। গত ২১ ডিসেম্বর মূল সেতুর পিলারের ওপর সর্বশেষ টি-গার্ডার বসিয়ে জাজিরা প্রান্তের সেতুর গোঁড়া (ভায়াডাক্ট) যুক্ত করা হয়। এখন পায়ে হেটে মূল সেতুতে প্রবেশ করা যাবে।

সেতুতে গাড়ি উঠানামার জন্য টি-গার্ডার বসাতে সময় লেগেছে দেড় বছরের বেশি। এসব গার্ডার জাজিরা ও মুন্সিগঞ্জের মাওয়া প্রান্তে প্রস্তুত করা হয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন প্রকল্পের নির্বাহী প্রকৌশলী দেওয়ান আব্দুল কাদের। তিনি জানান, দুই প্রান্তের প্রায় ৩ কিলোমিটার সংযোগ সেতুর জন্য ৪৩৮টি সুপার টি গার্ডার স্থাপন হবে। এর মধ্যে ৪১৪ টিই তৈরী সম্পন্ন হয়েছে। বাকী রয়েছে মাত্র ১৪টি। যার মধ্যে ৩৪৪টি সুপার টি-গার্ডার স্থাপন হয়েছে। অগ্রগতি ৭৯ শতাংশ। চলতি বছর নভেম্বর পর্যন্ত ৩০৮ টি সুপার টি-গার্ডার স্থাপন করা সম্ভব হয়েছিল। আর চলতি ২১ ডিসেম্বর পর্যন্ত স্থাপন করা হয়েছে আরও ৩৬টি। এরই মধ্যে জাজিরা প্রান্তের ২৩৪ টি সুপার টি-গার্ডারের সবগুলোই স্থাপন হয়েছে। মাওয়া প্রান্তের ২০৪টি টি-গার্ডারের মধ্যে স্থাপন হয়েছে ১১০টি। আরও ৯৪টি স্থাপন বাকী রয়েছে।

পদ্মাসেতুর সংযোগ সেতুর জাজিরা প্রান্তের সবকটি সুপার টি গার্ডার বসে যাওয়ায় সেতুর কাজের আরেকটি বিশেষ ধাপ এগিয়ে গেলো। তাই সেতুতে কর্মরতদের মধ্যে আনন্দ লক্ষ্য করা গেছে। এর আগে সেতুর দুই প্রান্তে ৪২টি করে ৮৪টি রেলওয়ে গার্ডারই স্থাপন সম্পন্ন হয়। পদ্মা সেতুর ৪২টি খুঁটিরে সবগুলো অর্থ্যাৎ মোট ৪১ টি স্প্যান বসে যাওয়ায় এখন চলছে রোড ও রেল স্লাব বসানোর কাজ। সেতুর উপরে রোডওয়ে স্লাব বসবে ২৯১৭টি। এরই মধ্যে তৈরী হয়েছে ২৮৮৫টি। যার মধ্যে স্থাপন করা হয়েছে ১৩৬৬টি রোডওয়ে স্লাব । পদ্মার ভাঙ্গনে বিলীন হয়ে যাওয়া ১২৬টি রোডওয়ে স্লাব নতুন করে তৈরি করতে হচ্ছে। যার মধ্যে ১১১টি তৈরি সম্পন্ন হয়েছে। বিলীন হওয়া ১৫টি ছাড়াও আরও ১৭টি স্লাব তৈরি কাজ চলছে বলে জানান প্রকল্পের এই প্রকৌশলী।

অন্যদিকে একই তালে চলছে সেতুর নিচতলার রেলওয়ে স্লাব বসানোর কাজ । মোটি ২৯৫৯টি রেলওয়ে স্লাবের সবগুলোই তৈরি সম্পন্ন হয়েছে। যার মধ্যে স্প্যানের স্থাপন হয়েছে ২০১৪টি রেলওয়ে স্লাব বসানোর কাজ। অর্থ্যাৎ দুই তৃতীয়াংশেরও বেশি রেলওয়ে স্লাব স্থাপন শেষ হয়েছে। ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ এ বহুমুখী সেতুর মূল আকৃতি হবে দোতলা। কংক্রিট ও স্টিল দিয়ে নির্মিত হচ্ছে পদ্মা সেতুর কাঠামো। সেতুর ওপরের অংশে যানবাহন ও নিচ দিয়ে চলবে ট্রেন। মূল সেতু নির্মাণের জন্য কাজ করছে চীনের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান চায়না মেজর ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানি (এমবিইসি) ও নদী শাসনের কাজ করছে দেশটির আরেকটি প্রতিষ্ঠান সিনো হাইড্রো করপোরেশন।