সোমবার, ১৪ই জুন, ২০২১ ইং, ৩১শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৪ঠা জিলক্বদ, ১৪৪২ হিজরী
সোমবার, ১৪ই জুন, ২০২১ ইং

যুবলীগের উদ্যোগে শরীয়তপুর কৃষকদের ধান কাটার উদ্বোধন করলেন ইকবাল হোসেন অপু এমপি

যুবলীগের উদ্যোগে শরীয়তপুর কৃষকদের ধান কাটার উদ্বোধন করলেন ইকবাল হোসেন অপু এমপি

চলতি মৌসুমে ইরি বোরো ধান কাটা মাড়াই শুরু হয়েছে। করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে শ্রমিক সংকট দেখা দিয়েছে। শরীয়তপুর জেলা যুবলীগের উদ্যোগে অসহায় কৃষকদের ধান কাটা ও মাড়াই করে দেওয়া হচ্ছে। কৃষকের ধান কেটে দিতে যুবলীগের প্রায় ১০০ জন নেতাকর্মী আজ মাঠে নেমেছে। আর এ ধানকাটার শুভ উদ্বোধন করেন শরীয়তপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী পরিষদের সদস্য ইকবাল হোসেন অপু।

বুধবার (১৯ মে) শরীয়তপুর সদর উপজেলার আঙ্গারিয়া ইউনিয়নের খায়ের চর এলাকার ৫০ একর একটি ইরি ব্লকের জমির পাকা ধান কেটে ঘরে তুলে দেওয়ার উদ্যোগ গ্রহণ করেন যুবলীগ কর্মীরা।

বুধবার দিনভর মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আহবানে সাড়া দিয়ে ইকবাল হোসেন অপু এমপি’র নির্দেশনায় জেলা যুবলীগের সভাপতি এম এম জাহাঙ্গীর মৃধা ও সাধারণ সম্পাদক নুহুন মাদবরের নেতৃত্বে সদর উপজেলা ও আঙ্গারিয়া ইউনিয়ন যুবলীগের নেতাকর্মীরা এ কাজ করেন।

দুর্যোগ মোকাবিলায় অসহায় কৃষকের জমি থেকে ধান কেটে বাড়িতে পৌঁছে দিতে শরীয়তপুরে বিভিন্ন কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির সদস্যরা কৃষকের ধান কেটে ঘরে তুলে দিচ্ছে। যুবলীগের এই কাজে উপকৃত হচ্ছেন কৃষকরা। জেলা যুবলীগের এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন স্থানীয় বিশিষ্টজনরা।

এ সময় এক কৃষক বলেন, এখন ধান কাটার মৌসুম চলছে। ধান কাটার শ্রমিক পাওয়া যাচ্ছে না। আবার শ্রমিক পাওয়া গেলেও মজুরি বেশি। ঝড়বৃষ্টি শুরু হলে ধানের ক্ষতি হয়ে যাবে এবং বিপদে পড়তে হবে। পরে যুবলীগের ভাইদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়। তারা ধান কেটে দিলেও কোনো মজুরি নেয়নি। আমার অনেক উপকার হয়েছে।

এ সময় ইকবাল হোসেন অপু এমপি বলেন, কৃষকরা কষ্ট করে তাদের সোনার ফসল ফলিয়েছে। করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে বোরো ধান কাটার ভরা মৌসুমে শরীয়তপুরে শ্রমিক সংকট দেখা দিয়েছে। শ্রমিক সংকটে কৃষকরা পাকা ধান নিয়ে দুশ্চিন্তায় আছেন। ধান কাটার খরচও পড়ছে বেশি। তাই অনেক দরিদ্র কৃষক ক্ষেতের পাকা ধান কেটে ঘরে তুলতে পারছেন না। আজ যুবলীগের নেতৃত্বে খায়ের চরে ধান কাটার উদ্বোধন করলাম। এ ধারা ধানকাটা শেষ না হওয়া পর্যন্ত অব্যাহত থাকবে।

এ সময় যুবলীগের নেতৃবৃন্দরা বলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ ও সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিলের নির্দেশে কৃষকদের সুবিধার জন্য ধান কেটে দিয়েছি। জেলার ৬টি উপজেলায় ধান কাটার জন্য যুবলীগ বিভিন্ন কমিটি গঠন করেছে। কৃষক ফোন করলেই কমিটির সদস্যরা ধান কেটে দিয়ে তাদের সহায়তা করবে।

এ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, শরীয়তপুর সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এডভোকেট জাহাঙ্গীর হোসেন, সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা, শরীয়তপুর পৌরসভার মেয়র এডভোকেট পারভেজ রহমান জন, প্যানেল মেয়র-১ মো: বাচ্চু বেপারী, শরীয়তপুর পৌরসভা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আমির হোসেন খান, সদর উপজেলা যুবলীগের সভাপতি বিল্লাল হোসেন দিপু মিয়া, সাধারণ সম্পাদক হোসেন সরদার, সদর পৌরসভা যুবলীগের সভাপতি জাহাঙ্গীর বেপারী ও সাধারণ সম্পাদক খোকন বেপারী সহ যুবলীগের প্রায় শতাধিক নেতাকর্মী।