সোমবার, ২৩শে মে, ২০২২ ইং, ৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২২শে শাওয়াল, ১৪৪৩ হিজরী
সোমবার, ২৩শে মে, ২০২২ ইং

ফিটনেস বিহীন বিএনপি-জামাতের গণধিকৃত ঐকজোট আন্দোলন করতে পারবে না: এনামুল হক শামীম

ফিটনেস বিহীন বিএনপি-জামাতের গণধিকৃত ঐকজোট আন্দোলন করতে পারবে না: এনামুল হক শামীম

পানি সম্পদ উপমন্ত্রী একেএম এনামুল হক শামীম এমপি বলেছেন, আন্দোলন করার সক্ষমতা বহু আগেই হারিয়েছে বিএনপি। বিএনপি-জামাতের অবস্থাতো ফিটনেস ও লাইসেন্সবিহীন গাড়ির মতো। সাজাপ্রাপ্ত তারেক রহমান বিদেশে পলাতক থেকে ভিডিও কলে দলের নেতৃত্ব দেয়। যে দলের মধ্যেই যাদের ঐক্য নেই তারা আবার অন্যদের নিয়ে ঐক্য করবে কিভাবে? বিএনপি ও তার সমমানদের মধ্যে ঐক্যের চেয়ে বরং দূরত্বই বেশি দৃশ্যমান। তাই এককভাবে আন্দোলন করার সক্ষমতা হারিয়ে বিএনপি এখন অন্যদের দলে টানার চেষ্টা করছে।

বৃহস্পতিবার (২১ এপ্রিল) বিকাল ৩টায় শরীয়তপুরের নড়িয়ায় প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল, পানি উপমন্ত্রীর ঐচ্ছিক তহবিল হতে অর্থ বিতরণ এবং রত্নগর্ভা মা বেগম আশ্রাফুন্নেছা ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে ১ হাজার পরিবারকে ঈদ বস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
তিনি আরও বলেন, গত ১৩ বছরে বিএনপি বহুবার আন্দোলনের ডাক দিয়েছে। গত নির্বাচনের আগেও বিএনপির ঐক্যের নমুনাও দেশের মানুষ দেখেছে। বিএনপি ঐক্য দেখে জনগণের মাঝে হাস্যরসের সৃষ্টি হয়েছে। হতাশাগ্রস্ত বিএনপিই এখন গভীর সঙ্কটে আছে। আন্দোলন, নির্বাচন ও রাজপথে ব্যর্থ হয়ে তারা এখন দিশেহারা পথিক। আওয়ামীলীগকে আন্দোলনের ভয় দেখিয়ে লাভ নেই। আন্দোলন, লড়াই, সংগ্রামের মধ্য দিয়েই আওয়ামীলীগ এই অবস্থানে এসেছে। আওয়ামীলীগের শিকড় অনেক গভীরে।
এনামুল হক শামীম বলেন, বিএনপির অবিরাম মিথ্যাচার শুনতে শুনতে এখন তাদের থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে। বিএনপি ক্ষমতায় যাওয়ার হন্য মরিয়া হয়ে উঠেছে। তারা বিদেশী প্রভুদের কাছে ধরনা দিচ্ছে। কোনো লাভ হবে না, ক্ষমতায় যেতে হলে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন নির্বাচন কমিশনের অধীনেই নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে হবে। এ নিয়ে সংশয়ের কোনো অবকাশ নেই। বিএনপি মূলত নির্বাচন ও জনগণকে ভয় পায় তাই তারা জনগণের রায়ের প্রতি শ্রদ্ধাশীল নয়। তাই তারা অবৈধভাবে ক্ষমতায় আসার স্বপ্ন দেখে। সেই স্বপ্ন কখনো বাস্তবায়ন হবে না। এদেশের জনগণ একমাত্র বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বেই ঐক্যবদ্ধ। তাই এদেশের জনগণ আগামী নির্বাচনেও পঞ্চমবারের মতো আওয়ামীলীগকে ক্ষমতায় আনবে।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক অনল কুমার দে, কেন্দ্রীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি উপ কমিটির সদস্য জহির সিকদার, নড়িয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ রাশেদ উজ্জামান, নড়িয়া পৌরসভার মেয়র আবুল কালাম আজাদ, জেলা আওয়ামী ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক আলহাজ্ব খবিরুজ্জামান, সদস্য এনায়েত উল্যাহ মুন্সী, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক মাস্টার হাসানুজ্জামান খোকন, সহ-সভাপতি বাদশা শেখ, উপজেলা ভাইস-চেয়ারম্যান জাকির বেপারী, মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান নাজমা মোস্তফা প্রমূখ।