Tuesday 25th June 2024
Tuesday 25th June 2024

Notice: Undefined index: top-menu-onoff-sm in /home/hongkarc/rudrabarta.net/wp-content/themes/newsuncode/lib/part/top-part.php on line 67

ছোট বিরোধ নিষ্পত্তির জন্য আদালতে না: শরীয়তপুর গ্রাম আদালত

ছোট বিরোধ নিষ্পত্তির জন্য আদালতে না: শরীয়তপুর গ্রাম আদালত

শরীয়তপুর জেলা পর্যায়ে গ্রাম আদালত কার্যক্রমের অগ্রগতি পর্যালোচনা ও করণীয়’ শীর্ষক অর্ধ-বার্ষিক সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত। 

বাংলাদেশে গ্রাম আদালত সক্রিয়করণ ৩য় পর্যায় প্রকল্প স্থানীয় সরকার বিভাগ, স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় আয়োজনে ও জেলা প্রশাসকের সহযোগিতায় ২জুন রবিবার সকাল ১০ টায় জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে এই সভা অনুষ্ঠিত হয়।

শুরুতেই শরীয়তপুর ৬টি উপজেলায় ৬৫ টি ইউনিয়ন সক্রিয়করণ করার লক্ষে জেলা পর্যায়ে গ্রাম আদালত কার্যক্রম সম্পর্কে তথ্য মনিটরে দেখিয়ে উপস্থাপন করেন বাংলাদেশ গ্রাম আদালত সক্রিয়করণ ৩য় পর্যায়ে প্রকল্পের ডিস্ট্রিক্ট ম্যানেজার আল ফারুক গাজী। 

এসময় প্রধান অতিথি,জেলা প্রশাসক,মুহাম্মদ নিজাম উদ্দীন আহাম্মেদ বলেন, এই প্রকল্পের মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে বাংলাদেশের গ্রামীণ এলাকার জনগণ বিশেষত; নারী, জাতিগত সংখ্যালঘু এবং সুবিধাবঞ্চিত গোষ্ঠীর মানুষের ন্যায়বিচারের সুযোগ বৃদ্ধি করা। এবং গ্রামের মানুষের কাছে বিচারটা সহজে তা পৌঁছে দেয়ায়  আমাদের এই প্রকল্পের উদ্দেশ্য। ২০০৬ সালে এই আইনটা হয়েছে। ইতিমধ্যে অনেক কাজ হয়েছে। তারপরও আমাদের এখানে কিছু সমস্যা রয়ে গেছে। আমাদের অনেক ইউনিয়ন পরিষদের ভবণ নেই। একারণে আমাদের এজলাস তৈরি করা খুবই জরুরি। এজলাস স্থাপন করার পর তাদেরকে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা এবং  যে প্রক্রিয়ার আদালত পরিচালিত হবে সেই সম্পর্কে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, মেম্বারদের আবগত করা । সেটাই হচ্ছে আমাদের মূল লক্ষ। পাশাপাশি জনগণের কাছে ম্যাসেজটা পৌঁছে দেয়া। যে, ছোট-খাটো বিরোধ নিষ্পত্তির জন্য আপনার আদালতে যাওয়ার দরকার নেই। আপনি গ্রাম আদালতে মামলা দিয়ে এই সেবাটা পেতে পারেন। এবং সেখানে আপনার ন্যায় বিচার না পেলে আপনি আপিলও করতে পারেন। সেই কারণে আমরা চাচ্ছি, গ্রাম আদালতটাকে আরও জনপ্রিয় করা। মানুষের কাছে ম্যাসেজটা পৌঁছে দেয়া যে,সেবাটা আপনার দ্বারগোড়াই আছে। আপনারা যদি ইউনিয়ন পরিষদে জান৷ ইউনিয়ন পরিষদের মাধ্যমে সেবাটা পান সেই উদ্দেশ্য আজকের সমন্বয় সভা। আমাদের ইউনিয়ন পরিষদের সকল সচিব এবং যারা আছেন সবাইকে প্রশিক্ষণের আওতায় আনবো। ফলে সামনে মানুষের বিচার প্রাপ্তি সহজ হবে। সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে বক্তব্য শেষ করেন।

অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন,শরীয়তপুর স্থানীয় সরকার উপপরিচালক মোছা: তাছলিমা আকতার। 

আরো উপস্থিত ছিলেন, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মইনউদ্দিন, গোসাইরহাট উপজেলা নির্বাহী অফিসার আহমেদ সাব্বির সাজ্জাদ, ভেদরগঞ্জ ইউএনও রাজিবুল ইসলাম। এছাড়াও জেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের সচিব ও  হিসাব সহকারীগণ সহ প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়া সাংবাদিকগণ৷