বৃহস্পতিবার, ১১ই আগস্ট, ২০২২ ইং, ২৭শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৩ই মুহাররম, ১৪৪৪ হিজরী
বৃহস্পতিবার, ১১ই আগস্ট, ২০২২ ইং

শরীয়তপুর সদরে বঙ্গবন্ধুর শাহাদাত বার্ষিকী

শরীয়তপুর সদরে বঙ্গবন্ধুর শাহাদাত বার্ষিকী

সদর উপজেলা ও শরীয়তপুর পৌরসভা আওয়ামী লীগ ও সকল অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের আয়োজনে সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৩ তম শাহাদাত বার্ষিকী পালন উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। আর এই আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল ঘিরে জনসমুদ্রে পরিণত হয়েছে শরীয়তপুর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার চত্বর ও শরীয়তপুর পৌরসভা অডিটোরিয়াম চত্বর। জনতার চাপে শরীয়তপুর-ঢাকা মহাসড়কে যান চলাচল থমকে যায়।
রোববার (২৬ আগস্ট) সকাল ১০টা থেকে বিভিন্ন উপজেলা, পৌরসভা, ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড থেকে আগত মিছিলে মিছিলে জনসমুদ্রে পরিণত হয় অনুষ্ঠানস্থল। পরে দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।
আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য জননেতা ইকবাল হোসেন অপু।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে ইকবাল হোসেন অপু বলেন, শেখ হাসিনা মানে উন্নয়ন, উন্নয়ন মানে শেখ হাসিনা। বঙ্গবন্ধুর কন্যা প্রধানমন্ত্রী থাকলে দেশের মানুষ তিন বেলা খেতে পায়, স্বাধীন ভাবে চলতে পারে।
তিনি বলেন, শোককে শক্তি হিসেবে পুরণ করে জাতির জনকের স্বপ্ন পূরণে সকল ভেদাভেদ ভূলে গিয়ে বঙ্গবন্ধুর কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আবারও আগামী নির্বাচনে জয়লাভ করে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে হবে।
শরীয়তপুর সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক মোল্লার সভাপতিত্বে ও শরীয়তপুর পৌরসভা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাকসুদুর রহমান বাচ্চু মুন্সীর সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, সাবেক এমপি ও জেলা পরিষদের সাবেক প্রশাসক মাস্টার মজিবুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি ও শরীয়তপুর পৌরসভার সাবেক মেয়র আব্দুর রব মুন্সী, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও সদর উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আবুল ফজল মাস্টার, জাজিরা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি মোবারক আলী শিকদার, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আবুল হাসেম তপাদার, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি ও শরীয়তপুর পৌরসভার সাবেক চেয়ারম্যান নূর মোহাম্মদ কোতোয়াল, শরীয়তপুর পৌরসভার মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য রফিকুল ইসলাম কোতোয়াল, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক ও জাজিরা উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ মোশাররফ হোসেন আকন।
এ সময় জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও জেলা পরিষদ সদস্য কামরুজ্জামান উজ্জল, জেলা আওয়ামী লীগের শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক শফিকুল ইসলাম রাড়ী, সদস্য ও সরকারি কৌশলী অ্যাডভোকেট আলমগীর মুন্সী, অ্যাডভোকেট জহিরুল ইসলাম, জেলা যুবলীগের সভাপতি এমএম জাহাঙ্গীর, সাধারণ সম্পাদক নুহুন মাদবর, সদর উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান গোলাম মোস্তফা, শরীয়তপুর পৌরসভার প্যানেল মেয়র ও আন্ত: জেলা বাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. বাচ্চু বেপারী, জেলা সেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি এনামুল হক মুন্সী, সাধারণ সম্পাদক তাইজুল ইসলাম সরকার, সদর উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক বিল্লাল হোসেন দিপু মিয়া, জেলা জাতীয় শ্রমিক লীগের যুগ্ম আহবায়ক এসএম শফিকুল ইসলাম স্বপন, আওয়ামী লীগ নেত্রী সামিনা ইয়াসমিন, জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহবায়ক রাশেদুজ্জামান রাশেদ, ঢাকা কলেজ শাখা ছাত্রলীগের আহবায়ক কমিটির সদস্য ওমর ফারুক পাঙ্কু, জেলা ছাত্রলীগের নেতা আসাদুজ্জামান শাওনসহ জেলা মুক্তিযোদ্ধাগণ, জেলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, ছাত্রলীগ, শ্রমিক লীগ, কৃষকলীগ এবং সকল অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।
আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল শেষে স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আত্মার মাগফেরাত কামনায় বিশেষ দোয়ার আয়োজন করা হয়। পরে সকলের উপস্থিতিতে উন্নত মানের তবারক বিতরণ করা হয়।


error: Content is protected !!