বৃহস্পতিবার, ২৭শে জানুয়ারি, ২০২২ ইং, ১৩ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৪শে জমাদিউস-সানি, ১৪৪৩ হিজরী
বৃহস্পতিবার, ২৭শে জানুয়ারি, ২০২২ ইং

ডামুড্যায় প্রেমিকের শাস্তি চেয়ে প্রেমিকার আত্মহত্যা

ডামুড্যায় প্রেমিকের শাস্তি চেয়ে প্রেমিকার আত্মহত্যা

প্রেমিকের ছবিযুক্ত চিরকুট লিখে আত্মহত্যা করেছে রাবেয়া আক্তার (১৮) নামের এক তরুণী। ডামুড্যা থানা পুলিশ তরুণীর মরদেহ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করেছে। তরুণীর লিখিত চিরকুটও যাচাই কাজ শুরু করেছে পুলিশ।

জানাগেছে, রাবেয়া শরীয়তপুরের ডামুড্যা উপজেলার কনেশ্বর ইউনিয়নের সুতলকাঠি গ্রামের বিল্লাল সরদারের মেয়ে। ডামুড্যা পৌরসভার কুলকুড়ি গ্রামে বোনের বাড়িতে বেড়াতে গিয়ে রাবেয়া আত্মহত্যা করে। ১৩ ডিসেম্বর রোববার ভোরে সংবাদ পেয়ে শরীফ মঞ্জিল থেকে রাবেয়ার মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। একই সাথে রাবেয়ার লিখে যাওয়া চিরকুট ও তার প্রেমিকের ছবি উদ্ধার করা হয়।

চিরকুটে লেখা ছিল, আমি রাবেয়া। আমার মৃত্যুর জন্য জাকির, তার বাবা-মা, বড় ভাই, ভাবী ও বোন দায়ী। জাকির আমাকে এই পৃথিবীতে বাঁচতে দেয়নি তাই আমি জাকিরের কঠিন শাস্তি চাই। আমিও চাই না জাকির পৃথিবীতে বেচে থাকুক। জাকির আমাকে মরতে বাধ্য করেছে। টিরকুটের সাথে জাকিরের ছবিও সংযুক্ত ছিল।

শরীফ মঞ্জিলের মালিক ফারুখ শাহ, ডামুড্যা থানা পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, রাবেয়া কয়েকদিন পূর্বে তার বোনের শ্বশুর বাড়িতে বেড়াতে আসে। ১২ ডিসেম্বর রোববার রাতে খাবার খেয়ে একটি কক্ষে রাবেয়া ঘুমিয়েছিল। সোমবার সকালে প্রতিবেশীরা ফ্যানের সাথে রাবেয়ার মরদেহ ঝুলতে দেখে পুলিশকে খবর দেয়।

ডামুড্যা থানা অফিসার ইনচার্জ শরীফ আহমেদ বলেন, মরদেহ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে। অভিযোগ পেলে মামলা নেয়া হবে। ময়না তদন্ত প্রতিবেদন হাতে পেলে আইনী কার্যক্রম শুরু হবে। জানাগেছে জাকির নামে একটি ছেলের সাথে রাবেয়ার প্রেমের সম্পর্ক ছিল। রাবেয়ার লিখে যাওয়া চিরকুটটি যাচাই চলছে।