বৃহস্পতিবার, ৯ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ ইং, ২৬শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৭ই রজব, ১৪৪৪ হিজরী
বৃহস্পতিবার, ৯ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ ইং

বাংলাদেশের প্রতিটি গ্রাম একদিন ডিজিটাল পল্লী হবেঃনাহিম রাজ্জাক

বাংলাদেশের প্রতিটি গ্রাম একদিন ডিজিটাল পল্লী হবেঃনাহিম রাজ্জাক

নাহিম রাজ্জাক এমপি বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ যেমন একদিন অবিশ্বাস্য ছিল তা আজ বাস্তবায়ন হয়েছে। তেমনি বাংলাদেশের প্রতিটি গ্রাম একদিন ডিজিটাল পল্লী হবে এবং ঘরে ঘরে গড়ে উঠব ডিজিটাল উদ্যোক্তা। ই-ক্যাবের উদ্যোগে যেভাবে ডিজিটাল কোরবানি হাটে পশু বিক্রি হয়েছে সেটাও আমাদেরকে ডিজিটাল কমার্সে আশার আলো দেখায়।
প্রতিবেশী দেশগুলোকে পেছনে ফেলে করোনার অচলাবস্থায় ‘ই-কমার্স’ এর ‘ডিজিটাল’ কনসেপ্ট বাংলাদেশকে অনেকদূর এগিয়ে নিয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন নাহিম রাজ্জাক এমপি।ই-কমার্সের বিস্তৃতি ঘটেছে পাঁচ বছর আগেই। আমি আশা করছি, ডিজিটাল পল্লীর মাধ্যমে শরীয়তপুরের বিভিন্ন পণ্য কেনা বেচা বাংলাদেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে ভীষণভাবে সমাদৃত হবে,করোনাকালীন সময়ে ই-কমার্স সেবা দিয়ে এ খাতের উদ্যোক্তারা প্রমাণ করেছে ই-কমার্স আমাদের জীবনের অংশ হয়ে গেছে, নারী উদ্যোক্তারা অনলাইনকে বিকল্প মাধ্যম হিসেবে ব্যবহার করে যেভাবে ঘুরে দাড়িয়েছে তা সব সময়ের জন্য একটা উদাহরণহয়ে থাকবে নাহিম রাজ্জাক এমপি।

মঙ্গলবার ৬ ডিসেম্বর ডিজিটাল কমার্স মেলার উদ্বোধন করতে গিয়েএকথা বলেন। ই-কমার্স উদ্যোক্তারা ই-ক্যাবের সঙ্গে যুক্ত থেকে যেভাবে সেবা দিয়েছে তাতে আস্থার জায়গাটা বেশ শক্তিশালী হয়েছে।বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের বিজনেস প্রমোশন কাউন্সিল ও ই-ক্যাবের যৌথ উদ্যোগে ডামুড্যা উপজেলা অডিটোরিয়ামে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ডামুড্যা উপজেলা নির্বাহী অফিসার হাছিবা খানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, শরীয়তপুর -৩ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব নাহিম রাজ্জাক এমপি, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, শরীয়তপুর জেলা প্রশাসক পারভেজ হাসান।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে শরীয়তপুর জেলা প্রশাসক মোঃ পারভেজ হাসান বলেন, বাংলাদেশের প্রতিটি গ্রামই একদিন ডিজিটালহবে।ডিজিটাল বাংলাদেশ যেমন একদিন অবিশ্বাস্য ছিল তা আজ বাস্তবায়ন হয়েছে,তেমনি বাংলাদেশের প্রতিটি গ্রাম একদিনডিজিটাল পল্লী হবে এবং ঘরে ঘরে গড়ে উঠব ডিজিটাল উদ্যোক্তা।

অনুষ্ঠানেমূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ই-ক্যাবের সাধারন সম্পাদক, জেনারেল মোহাম্মদ আব্দুল ওয়াহেদ তমাল.স্বাগত বক্তব্য দেন ইব্রাহিম খলিল প্রেসিডেন্ট ডিজিটাল পল্লী ফাউন্ডেশন, মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন জাহিদুজ্জামান ভাইস প্রেসিডেন্ট ডিজিটাল পল্লী ফাউন্ডেশন, এসময় উপস্থিত ছিলেন ডামুড্যা উপজেলার সহকারী কমিশনার ভূমি সবিতা সরকার,ডামুড্যা উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর পঃ কর্মকর্তা ডাঃ শেখ মোহাম্মদ মোস্তফা খোকন, ডামুড্যা উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা হুমায়ুন কবির বাচ্ছু ছৈয়াল, ডামুড্যা পৌরসভার মেয়র রেজাউল করিম রাজা ছৈয়াল, ডামুড্যা উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুর রশিদ গোলন্দাজ, ডামুড্যা উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান খাদিজা খানম লাভলী, ডামুড্যা থানার অফিসার ইনচার্জ শেখ শরীফুল আলম, ডামুড্যা উপজেলার সমাজসেবা কর্মকর্তা ওবায়দুের রহমান,মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা ফাতেমা নাহিয়ান, বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বৃন্দ।


error: Content is protected !!