বুধবার, ৫ই অক্টোবর, ২০২২ ইং, ২০শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৯ই রবিউল-আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরী
বুধবার, ৫ই অক্টোবর, ২০২২ ইং

জাজিরায় গভীর নলকুপে বিষ ঢেলে কন্ঠস্বর নকল করে প্রতিপক্ষকে ফাঁসানোর চেষ্টা

জাজিরায় গভীর নলকুপে বিষ ঢেলে কন্ঠস্বর নকল করে প্রতিপক্ষকে ফাঁসানোর চেষ্টা

শরীয়াতপুর জেলার জাজিরা উপজেলার মুলনা ইউনিয়নে ছাব্বিশ পাড়া গ্রামের মৃত হামিদ খানের ছেলে তমিজ খান ( ৬৭) কে এলকার দলাদলির কারনে তার কন্ঠস্বর নকল করে প্রতিপক্ষের লোকজন ফাসানোর চেষ্টা করছে।
এব্যাপারে তমিজ খান জেলা পুলিশ সুপার বরাবর একটি দরখাস্ত দিয়েছন সুষ্ঠু তদন্তের জন্য।

তমিজ খানের অভিযোগ থেকে জানা যায়, স্থানীয় নুরজামাল সিকদার ও তার লোক জন স্থাীয় ইলিয়াস জমাদ্দারের বাড়ীর টিউবওয়েলে বিষ ঢেলে তাদের সহ এলাকার অন্যান্য লোকদেরকে হত্যা করার অপচেষ্টা চালায়।

বিষয়টি তমিজ খান জাজিরা থানা কর্তৃপক্ষকে অবগত করিলে, জাজিরা থানার ওসি ( তদন্ত) এম এ মজিদ বকুল তাহার সংগীয় ফোর্স নিয়া সরেজমিনে তদন্ত করেন। পরবর্তীতে তদন্তের ৩ দিন পরে উক্ত ঘটনাটি ধামাচাপা দেওয়ার জন্য ১ নং বিবাদী নুরজামাল অন্যান্য বিবাদীদের সহযোগিতায় তমিজ খানের কন্ঠ স্বর নকল করিয়া ইলিয়াস জমাদ্দারের টিউবওয়েলে বিষ ঢালার কথা রেকর্ড করে বিবাদী তুষার হাওলাদার ও সুমন চৌকিদারের ফেসবুক আইডিতে প্রচার করে প্রোপাগান্ডা ছড়াচ্ছে।

বিষয়টি তমিজ খান অবগত হতে পেরে মৌখিক ভাবে জাজিরা থানার ওসি কে অবগত করে। বিবাদীগন তমিজ খানের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র মুলক ভাবে হয়রানি ও হেয়প্রতিপন্ন করার লক্ষে বিভিন্ন মামলা মোকাদ্দমায় জড়ানোর জন্য ষড়যন্ত্র করে আসতেছে।

২৬ এপ্রিল রবিবার মুলনা ইউনিয়নের গজনাইপুর গ্রামে সরেজমিনে গিয়ে কথা হয়, ইলিয়াস জমাদ্দারের স্ত্রী রোজিনা বেগমের সাথে তিনি বলেন, আমাদের টিউবওয়েলের কাছে নুরজামাল সিকদার আসার পর আমাদের টিউবওয়েল থেকে বিষের গন্ধ আসে। তারপর আমার স্বামী বাড়ি এসে কল চাপ দিলে সাদা পানি পরে। আমাদের কলে নুরজামালই বিষ দিছে আমি তার বিচার চাই।

টিউবওয়েলের মালিক ইলিয়াস জমাদ্দার বলেন, নুরজামালই আমার কলে বিষ দিয়াছে, আমার সাথে কারো শত্রুতা নাই। নুরজামাল আমার কলের কাছে আসার পরই আমার কল থেকে বিষের গন্ধ আসছে। আমার একটি গরু, চারটি ছাগল রয়েছে এখন আতংকে আছি কখন কেউ আবার গরু ছাগল বিষ দিয়ে মেরে না ফেলে। আমি খুব গরীব আতংকে দিন কাটাচ্ছি।

একই এলকার মেম্বার লাভলু বলেন, আমি আর তমিজ খান বাজারের দিকে যাচ্ছিলাম তখন দেখি মানুষের হট্রগল। গিয়ে শুনি ইলিয়াসের কলে নুরজামাল সিকদার বিষ দিয়েছে, আর এই ঘটনার তিন দিন পর নুরজামাল তমিজ খানের কন্ঠ নকল করে একটি বয়েস ক্লিপ অনলাইনে ছড়ানো হয়েছে,যাহা সম্পুর্ন মিথ্যা বানোয়াট।

এব্যাপারে পুলিশ সুপার বরাবর একটি দরখাস্ত দেওয়া হয়েছে। টিউবওয়েলে বিষ দেওয়া প্রসঙ্গে তমিজ খান বলেন, ইলিয়াসের কলে বিষ দিয়েছে নুরজামাল এব্যাপারে ইলিয়াসের বউ স্বাক্ষী আছে, এরপর আমি থানায় জানাই, থানা থেকে পুলিশ এসে তদন্ত করে গেছে। তদন্তের তিন দিন পর নুরজামাল আমার কন্ঠ নকল করে তুষার ও সুমনের ফেসবুক আইডিতে ছড়ায়। এব্যাপারে আমি পুলিশ সুপার ও জেলা প্রশাসকের বরাবর একটি দরখাস্ত করেছি, যাতে সুষ্ঠু তদন্ত করে। সুষ্ঠু বিচার চাই।

এবিষয়ে জাজিরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আজহার উদ্দিন বলেন, মুলনা ইউনিয়ন একটি দলাদলি গ্রুপিং অঞ্চল,এখানে একটি মহল নিজেদের স্বার্থ সিদ্ধির জন্য বিভিন্ন ভাবে ইন্ধন যোগায়, বিশেষ করে গজনাইপুর, ডোন বোয়ালিয়া, ছাব্বিশ পাড়া, চরধুপিয়া, কাউয়াদি। গজনাইপুরের টিউবওয়েলে বিষ ঢালার ব্যাপারে কেউ এখনো অভিযোগ দেয়নি, দিলে অবশ্যই আইনগত ব্যবস্থা নিবো।


error: Content is protected !!