বৃহস্পতিবার, ২৪শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং, ৯ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৭ই সফর, ১৪৪২ হিজরী
বৃহস্পতিবার, ২৪শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং

নড়িয়ায় ভুল চিকিৎসায় রোগী মৃত্যুর অভিযোগ

নড়িয়ায় ভুল চিকিৎসায় রোগী মৃত্যুর অভিযোগ

শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলায় একটি ক্লিনিকে চিকিৎসকের ভুল চিকিৎসায় এক রোগীর মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। শুক্রবার (১৩ মার্চ) সন্ধ্যায় ওই ঘটনার পর রোগীর স্বজন ও এলাকাবাসী বিক্ষোভ করে ওই ক্লিনিক ভাংচুর করে। নিহত আকলিমা বেগম (৪৩) উপজেলার ডিঙ্গামানিক ইউনিয়নের সালধ গ্রামের ইয়ার বক্স বেপারীর স্ত্রী।
নিহত আকলিমার মেয়ে আশামনি জানান, তাঁর মা আকলিমা বেশ কিছুদিন ধরে নাকের পলিপাস জনিত সমস্যায় ভুগছিলেন। গত মাসের শেষের দিকে ঘড়িসার আধুনিক হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারের নাক, কান ও গলা রোগ বিশেষজ্ঞ ও সার্জন চিকিৎসক মিজানুর রহমানকে দেখান। চিকিৎসক দেখে শুনে আকলিমাকে দুই সপ্তাহ পর আসতে বলেন। সে অনুযায়ি শুক্রবার সন্ধ্যায় তাঁকে ওই ক্লিনিকে নিয়ে আসে পরিবার। ক্লিনিকের চিকিৎসক মিজানুর রহমান পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে অপারেশনের জন্য অবশ করার জন্য একটি ইনজেকশন দেন। এর কিছুক্ষণের মধ্যে তাঁর মা’র অবস্থার অবনতি হয়। তার মাকে দেখতে চাইলে দেখতে দেন না চিকিৎসক। আড়াই ঘণ্টা পর চিকিৎসক বলে আকলিমার অবস্থা বেশি ভালো না তাকে ঢাকা নিয়ে যেতে হবে। ক্লিনিকের কর্তৃপক্ষ তারা দ্রুত তড়িঘড়ি করে একটি অ্যাম্বুলেন্স ডেকে আকলিমাকে উঠিয়ে দেয়। তখন তার মায়ের হাত ও পা ঠান্ডা হয়ে গেছে। তার মা আর বেঁচে নেই।
এদিকে ভুল চিকিৎসায় আকলিমা মৃত্যু হয়েছে দাবি করে নিহতের স্বজন ও এলাকাবাসী আধুনিক হাসপাতালের সামনে গিয়ে বিক্ষোভ শুরু করেন। একপর্যায়ে তাঁরা উত্তেজিত হয়ে ক্লিনিকে ভাংচুর চালান।
আধুনিক হাসপাতালের চিকিৎসক মিজানুর রহমানের মুঠোফোন বন্ধ থাকায় তাঁর বক্তব্য পাওয়া যায়নি।
আধুনিক হাসপাতালের শেয়ার হোল্ডার ও পরিচালক সেকেন্দার আলী হাওলাদার মুঠোফোনে বলেন, ওই রোগী নাকে পলিপাস ছিল। শুক্রবার সন্ধ্যায় তাকে চিকিৎসক অবশ করার জন্য ইনজেকশন পুশ করে। অপারেশন শেষে জ্ঞান ফিরলে সিটে অনেকক্ষণ বসে ছিল ওই রোগী। তবে তার অনেক শাসকষ্ট ছিল। শরীয়তপুরের পুলিশ সুপার এস.এম. আশরাফুজ্জামান বলেন, ওই ঘটনায় কেউ পুলিশের কাছে অভিযোগ নিয়ে আসেনি। অভিযোগ পেলে আমরা আইগত ব্যবস্থা নেব এবং আদালতে সরনাপন্ন হব। তবে নিহত আকলিমার পরিবারের সাথে আমার ফোনে কথা হয়েছে। ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে।