Saturday 15th June 2024
Saturday 15th June 2024

Notice: Undefined index: top-menu-onoff-sm in /home/hongkarc/rudrabarta.net/wp-content/themes/newsuncode/lib/part/top-part.php on line 67

মজিদ জরিনা ফাউন্ডেশন স্কুল এন্ড কলেজে অনলাইনে চলছে ক্লাস পরীক্ষা

মজিদ জরিনা ফাউন্ডেশন স্কুল এন্ড কলেজে অনলাইনে চলছে ক্লাস পরীক্ষা

শরীয়তপুর জেলার স্বনামধন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান মজিদ জরিনা ফাউন্ডেশন স্কুল এন্ড কলেজে থেমে নেই শিক্ষাকার্যক্রম, নিয়মিত অনুষ্ঠিত হচ্ছে ক্লাস ও পরীক্ষা। বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে সারা দেশের সকল ধরনের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। এর মধ্যে সংসদ টেলিভিশনের মাধ্যমে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে রুটিন করে স্কুল ও কলেজ পর্যায়ের ক্লাস অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এর বাইরে সারা দেশে কিছু শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নিজস্ব উদ্যোগে অনলাইনে তাদের শিক্ষার্থীদের ক্লাস পরীক্ষা চালিয়ে যাচ্ছে, এদের মধ্যে অন্যতম শরীয়তপুরের মজিদ জরিনা ফাউন্ডেশন স্কুল এন্ড কলেজ।

মার্চে সারাদেশে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ হওয়ার পর থেকে এ প্রতিষ্ঠানের ভেরিফাইড ফেসবুক পেইজ (Facebook // MazidJarina Foundation School and College)ও Zoom app সহ কলেজের নিজস্ব ওয়েবসাইটে (www.mjfsc.edu.bd) এ ক্লাস ও পরীক্ষা অব্যাহত রেখেছে।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে কলেজটির অধ্যক্ষ ফরিদ আল হোসাইন আমাদেরকে জানান, এ প্রতিষ্ঠানটি শরীয়তপুর জেলার সর্বাধুনিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, করোনা মহামারীর কারণে আমরা শিক্ষার্থীদের বর্তমান পরিস্থিতিতে পড়াশোনার ক্ষতি পুষিয়ে নিতে অনলাইনে ক্লাস ও পরীক্ষা চালু রেখেছি। এপ্রিল থেকে আমরা অনলাইনে সিলেবাস অনুযায়ী ক্লাস নিয়েছি। ১ জুলাই থেকে মিড সেমিস্টার পরীক্ষা শুরু করেছি, আমাদের ওয়েবসাইট থেকে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকগণ প্রশ্ন পাচ্ছেন, অভিভাবকগণ ইনভিজিলেশন করে ছেলে মেয়েদের পরীক্ষা নিতে সহযোগিতা করছেন। সকল পরীক্ষা শেষে আমরা বিশেষ ব্যবস্থায় খাতা মূল্যায়ণ ও ফলাফল দেয়ার পরিকল্পনা করেছি। ইতোমধ্যে একাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের পূর্বের সকল পরীক্ষার ফলাফল বিবেচনায় দ্বাদশ শ্রেণিতে প্রমোশন দেয়া হয়েছে। আগামী ১৪ জুলাই থেকে তাদের ২য় বর্ষের ক্লাস অনলাইনে শুরু হবে।

তিনি বলেন, এ সকল কার্যক্রমে আমরা সম্মানিত অভিভাবকদের সহযোগিতা পাচ্ছি, অভিভাবকগণ মোবাইলে তাদের সন্তুষ্টির কথা জানিয়েছেন। আমি সার্বক্ষণিক অনলাইনে শিক্ষকদের সাথে শিক্ষার্থীদের পড়াশোনা এগিয়ে নিতে মিটিং করছি এবং প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দিচ্ছি। আমাদের শিক্ষক-শিক্ষিকাগণ তাদের নিজ নিজ ঘরে থেকেই শিক্ষার্থীদের অনলাইনে ক্লাস নিচ্ছেন ও মোবাইলে সবসময় অভিভাবকদের সাথে যোগাযোগ রেখেছেন। আমাদের একটা পরিসংখ্যানে আমরা দেখেছি শতকরা ৮০ ভাগ শিক্ষার্থী পড়াশোনায় আমাদের অনলাইন সুবিধা নিতে পেরেছে, বাকীরা মোবাইল ফোন না থাকা, নেটওয়ার্ক ও পারিবারিক সমস্যার কারণে পরিপূর্ণভাবে অনলাইন ক্লাসের আওতায় আসতে পারে নাই। আমরা আশা করছি তারাও অতি দ্রুত এ সমস্যা কাটিয়ে উঠবে।

তিনি আরো বলেন, এ প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতাও গভর্নিং বডির সম্মানিত সভাপতি বাংলাদেশ পুলিশের সাবেক আইজিপি জনাব একেএম শহীদুল হক বিপিএম, পিপিএম সব সময় আমাদের খোঁজখবর নিচ্ছেন। তিনি মাঝে মাঝে শিক্ষার্থী ও শিক্ষকদের সাথে যুক্ত হয়ে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দিচ্ছেন।

সবশেষে, প্রতিষ্ঠানটির অধ্যক্ষ সার্বিকভাবে অভিভাবকদের সহযোগিতা চেয়েছেন। তিনি বলেন, আমি চাই সকল অভিভাবক তার সন্তানের সুস্বাস্থ্যের প্রতি সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিবেন। কোনো অবস্থায় সন্তান যেন বাহিরে না যায়, এ ব্যাপারে সজাগ থাকবেন।
শিক্ষার্থীরা বাড়িতে থেকে পড়াশোনা করবে এ ব্যাপারে প্রত্যেকে নিজ সন্তানের প্রতি যত্নশীল থাকবেন।