বৃহস্পতিবার, ৬ই মে, ২০২১ ইং, ২৩শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৪শে রমজান, ১৪৪২ হিজরী
বৃহস্পতিবার, ৬ই মে, ২০২১ ইং

শ্রমিক সংকটের কারণে কৃষকের পাকা ধান কেটে বাড়ি পৌছে দিল ছাত্রলীগ

শ্রমিক সংকটের কারণে কৃষকের পাকা ধান কেটে বাড়ি পৌছে দিল ছাত্রলীগ

করোনা ভাইরাসের প্রভাবে শ্রমিক সংকটের কারণে পাকা ধান কাটতে পারছেন না অনেক কৃষক। এই অবস্থায় শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলার দিশাহারা কৃষকদের পাশে দাঁড়িয়েছেন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

বুধবার (২৮ এপ্রিল) সকাল থেকে উপজেলার ভূমখাড়া ইউনিয়নের নয়াকান্দি ও বান্দের পাড়া গ্রামের কৃষক সেন্টু ঢালী ও ওয়াহাব মুন্সির ৮০ শতক জমির বোরো ধান কেটে বাড়ি পৌছে দেন তারা।

দেশের এই সংকটময় মুহূর্তে কৃষকদের পাশে দাঁড়িয়ে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা যে দায়িত্ববোধের পরিচয় দিয়েছেন সে কারণে খুশি এলাকাবাসী ও কৃষকরা।

কৃষক সেন্টু ঢালী বলেন, ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা যদি আমার ধান কেটে না দিতেন তাহলে শ্রমিকের অভাবে হয়তো আমি আমার ধান বাড়িতে তুলতে পারতাম না। আমি ছাত্রলীগ নেতাদের প্রতি কৃতজ্ঞ।

নড়িয়া উপজেলা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক আসাদুজ্জামান বিপ্লব বলেন, করোনা পরিস্থিতির কারণে নড়িয়ায় ধান কাটার শ্রমিক সংকট দেখা দিয়েছে। শ্রমিক না পাওয়ায় নিজ জমির পাকা ধান কাটতে পারছেন না কৃষকরা। এই অবস্থায় আমরা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা কৃষকদের পাশে থেকে স্বেচ্ছাশ্রমে ধান কেটে দিচ্ছি।

শরীয়তপুর জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপসহকারী কৃষি অফিসার বৃষ্ণ পদ বিশ্বাস বলেন, এ বছর শরীয়তপুরে বোরো আবাদের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছিল ২৪ হাজার ৪৮০ হেক্টর জমিতে। আবাদ হয়েছে ২৪ হাজার ৫১০ হেক্টর জমিতে। এ বছর লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে বোরো ধানের আবাদ হয়েছে। ফলনও হয়েছে ভালো।
এদিকে, বোরো মৌসুমে ২৭ টাকা কেজিতে দুই হাজার ৪১৮ মেট্রিক টন ধান কিনবে বলে জানিয়েছেন জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক অফিসের উপখাদ্য পরিদর্শক গোবিন্দ পাল।