Friday 24th May 2024
Friday 24th May 2024

Notice: Undefined index: top-menu-onoff-sm in /home/hongkarc/rudrabarta.net/wp-content/themes/newsuncode/lib/part/top-part.php on line 67

নড়িয়ায় মৃত ব্যক্তির নামে তালিকা করে ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন করার চেষ্টা !

নড়িয়ায় মৃত ব্যক্তির নামে তালিকা করে ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন করার চেষ্টা !

পঞ্চপল্লী গুরু রাম উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচনে অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এতে এলাকার লোকজন বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছে। অভিযোগের ভিত্তিতে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান জেলা প্রশাসক বরাবর নির্বাচন বন্ধের জন্য একটি আবেদন করেন।
শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলার বিঝারী ইউনিয়নের পঞ্চপল্লী গুরু রাম উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচনে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। জানা গেছে, আগামী ২৫ জুলাই বিদ্যালয়টির ব্যবস্থাপনা কমিটির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনে একাধিক মৃত ব্যক্তিকে শিক্ষার্থীদের অভিভাবক করে ভোটার করা হয়েছে। ফলে নির্বাচন প্রশ্নবিদ্ধ হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। বিদ্যালয়ের সভাপতি নুরুল ইসলাম ঢালী স্থায়ীভাবে সৌদি আরবে বসবাস করেন। তিনি প্রবাসে থেকেও পর পর দুইবার বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি হিসিবে বহাল আছেন। এমনকি তিনি এ বছরেও বিদেশে অবস্থান করে বিনা প্রতিদ্বন্দিতায় নির্বাচিত হওয়ার পায়তারা চলছে। এ অনিয়মের অভিযোগ এনে বিঝারী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক হাওলাদার সম্প্রতি শরীয়তপুর জেলা প্রশাসক বরাবরে নির্বাচন বন্ধের দাবীতে একটি আবেদন করেছেন।
সোমবার বিকালে ভুয়া ভোটার তালিকায় ২৫ জুলাই এর নির্বাচন বন্ধের দাবীতে বিক্ষোভ মিছিল করেছে বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রী, অভিভাবক ও এলাকাবাসী। বিক্ষোভ মিছিলটি বিদ্যালয় চত্ত্বর থেকে বের হয়ে বিঝারী পঞ্চপল্লী বাজার প্রদক্ষিণ করে বিদ্যালয় মাঠে এসে সংক্ষিপ্ত সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়।
ভুয়া ভোটার তালিকা প্রনয়ণসহ নানাবিধ অনিয়ম করে নির্বাচন পরিচালনার অভিযোগ উঠেছে উক্ত বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক গৌতম চন্দ্র দাস এর বিরুদ্ধে। ভোটার তালিকার ৫৪৯ নং ভোটার হচ্ছেন রাজ্জাক মোল্লা। কিন্তু চূড়ান্তÍ প্রার্থী তালিকায় দেখা গেছে অনিয়মের আশ্রয় নিয়ে রাজ্জাক মোল্লার নামের পরিবর্তে মোয়াজ্জেম বেপারীর নাম বসানো হয়েছে। ভোটার তালিকা থেকে বাদ পড়েছে, সুমাইয়া আক্তার রোল-১৮৫, নবম শ্রেণী, তামান্না রোল-৯৮ নবম শ্রেণী, রাব্বি তালুকদার রোল-১৫৮ অষ্টম শ্রেণী এবং ঐ তালিকায় মৃত দুলাল বেপারী ও মৃত রিপন দেওয়ান সহ একাধিক মৃত ব্যক্তির নাম রয়েছে। এছাড়াও দক্ষিণ মগর গ্রামের রাশিদা বেগম ও ভড্ডা গ্রামের ঝুমা রাণী দে’কে অভিভাবক সদস্য প্রার্থী থেকে জোর পূর্বক প্রার্থীতা প্রত্যাহার করিয়ে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে।
কোন রকম প্রমাণ না রেখে প্রত্যেক প্রার্থীর কাছ থেকে বিনা রশিদে ৫ হাজার করে নগদ টাকা গ্রহণ ও ৬ জন আজীবন দাতা সদস্যদের কাছ থেকে বিনা রশিদে ২ লক্ষ করে মোট ১২ লক্ষ টাকা নেয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।
প্রধান শিক্ষক গৌতম চন্দ্র দাস জানায়, আমি প্রত্যেক প্রার্থীর কাছ থেকে ৫ হাজার করে টাকা নিয়েছি এটা সত্য। তবে তাদেরকে কোন রশিদ দেইনি আমি একটি খাতায় তুলে রেখেছি। সেই টাকা নির্বাচনী কাজে খরচ করা হবে। আমরা যে ভোটার তালিকা করেছি তাতে ভুলত্রুটি থাকতে পারে। ভোটার তালিকায় অনেকের নামের বানান ভুল হয়েছে। কারো বাবা ও কারো মায়ের নামে ভুল। এটা সংশোধন করার জন্য আমরা ৫ দিন সময় নিয়েছিলাম। কোন ছাত্র-ছাত্রী বা কোন অভিভাবক না আসার কারনে সংশোধন করা সম্ভব হয়নি।
প্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা মোয়াজ্জেম বেপারী বলেন, ভোটার তালিকায় আমার নাম নাই। কিন্তু তারপরও চূড়ান্ত বৈধ প্রার্থীর তালিকায় আমার নাম কিভাবে আসলো আমি জানি না।
প্রিজাইডিং অফিসার উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা গোলাম ফারুক বলেন, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের কাছ থেকে যে ভোটার তালিকা পেয়েছি সে তালিকা অনুযায়ী আমি প্রার্থীদের চূড়ান্ত বৈধ তালিকা প্রনয়ন করি। তবে ভোটার তালিকার ব্যাপারে আমি কিছু জানিনা। তাছাড়া তালিকা নিয়ে যদি কোন অনিয়ম হয়ে থাকে এতে আমার কোন দায় দায়িত্ব নাই। নির্বাচন হউক বা না হউক এতে আমার কিছু আসে যায় না। এটা কমিটির ব্যাপার।
বিঝারী ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক জানান, মৃত ব্যক্তিদের নামে ভুয়া ভোটার তালিকা এবং ভোটার তালিকায় নাম নাই এমন ব্যক্তির প্রার্থীতা বৈধ ঘোষনা করা হয়েছে। এ ব্যাপারে শরীয়তপুর জেলা প্রশাসকের বরাবর একটি আবেদন দায়ের করি। তারই পরি-প্রেক্ষিতে সোমবার বিকালে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) উক্ত বিষয় তদন্ত করেন। তবে এ ব্যাপারে প্রধান শিক্ষক কোন সু-নির্দিষ্ট জবাব দিতে পারেনি। তিনি আরো জানান, আমার করা অভিযোগের প্রেক্ষিতে বিজ্ঞ আদালত ৫ দিনের জন্য নির্বাচন স্থগিত করে সংশ্লিষ্ট বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক, প্রিজাইডিং অফিসার, সভাপতিকে কারন দর্শানোর নির্দেশ দিয়েছেন।