মঙ্গলবার, ৭ই এপ্রিল, ২০২০ ইং, ২৪শে চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
আজ মঙ্গলবার | ৭ই এপ্রিল, ২০২০ ইং

শরীয়তপুর পৌরশহর এলাকায় জীবানুনাশক স্প্রে ছিটানো হচ্ছে

বৃহস্পতিবার, ২৬ মার্চ ২০২০ | ২:৩৭ অপরাহ্ণ | 143Views

শরীয়তপুর পৌরশহর এলাকায় জীবানুনাশক স্প্রে ছিটানো হচ্ছে

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে শরীয়তপুর পৌরসভার পক্ষ থেকে পৌর এলাকায় জীবানুনাশক স্প্রে ছিটানো শুরু করা হয়েছে। বুধবার (২৫ মার্চ) সকাল ১০টা থেকে এ কার্যক্রম শুরু হয়ে প্রতিনিয়ত চলতে থাকবে। এছাড়া বৃহস্পতিবার (২৬ মার্চ) এসডিএসের উদ্যোগেও রাজধানী থেকে ফিরে আসা জনসাধারণসহ চলমান যানবাহনে জীবানুনাশক স্প্রে ছিটিয়ে দেন।
এদিকে, শরীয়তপুরে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে রাখতে মাঠে জেলা, উপজেলা প্রশাসন ও পুলিশ তৎপর রয়েছে। এ দিকে গতকাল থেকে জরুরী প্রয়োজনীয় সেবা প্রতিষ্ঠান/দোকান ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ব্যাতিত সব কিছু বন্ধ করে দিয়েছে প্রশাসন। নিয়ন্ত্রিত রয়েছে যানবাহনও। তাছাড়াও জেলা প্রশাসনের সাথে সমন্বয় করে পরিস্থিতি মোকাবেলায় কাজ করছে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী।
অন্যদিকে, শরীয়তপুর জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের তথ্যানুযায়ী বুধবার বিকেল ৫টা পর্যন্ত ৩৫৫ জন প্রবাসী হোম কোয়ারেন্টাইনে আছেন। সিভিল সার্জন কার্যালয়ের মেডিকেল অফিসার (রোগ নিয়ন্ত্রণ) ডা. আব্দুর রশিদ জানিয়েছেন, জেলায় ইতালিসহ বিভিন্ন দেশ থেকে ফেরা ৫৫ জন প্রবাসী হোম কোয়ারেন্টাইনে আছেন। গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে ২৮ জন হোম কোয়ারেন্টাইনের আওতায় এসেছেন ও ১৪ দিন হোম কোয়ারেন্টাইনের মেয়াদ শেষ করায় ৩৩ জনকে অবমুক্ত করা হয়েছে। উপজেলা ভিত্তিক সদর উপজেলায় ৭৪ জন, ডামুড্যায় ৪২ জন, গোসাইরহাটে ২৩ জন, ভেদরগঞ্জে ৫০ জন, নড়িয়ায় ১২৩ জন এবং জাজিরা উপজেলায় ৪৩ জন হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন। জেলায় সর্বমোট ৬১৭ জন হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকাদের মধ্য থেকে ২৬২ জনকে অবমুক্ত করা হয়েছে।
তবে আইসোলেশন বা প্রাতিষ্ঠানিক হোম কোয়ারেন্টাইনে কেউ নেই। এখনো পর্যন্ত জেলায় করোনা ভাইরাস আক্রান্ত বা সন্দেহজন কেউ সনাক্ত হয়নি। তবে ইতিমধ্যেই জেলায় ৩০টি আইসোলেশন শয্যা ও ১০০টি কোয়ারেন্টাইন শয্যা প্রস্তুত রাখা হয়েছে। যা প্রস্তুতি চলছে।


-Advertisement-
সর্বশেষ  
জনপ্রিয়  

ফেইসবুক পাতা

-Advertisement-
-Advertisement-
error: Content is protected !!