সোমবার, ১৪ই জুন, ২০২১ ইং, ৩১শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৪ঠা জিলক্বদ, ১৪৪২ হিজরী
সোমবার, ১৪ই জুন, ২০২১ ইং

মাদারীপুরের মোস্তফাপুর বাজারে তিন অসাধু আম ব্যবসায়ীকে জরিমানা

মাদারীপুরের মোস্তফাপুর বাজারে তিন অসাধু আম ব্যবসায়ীকে জরিমানা

এলিট ফোর্স র‌্যাব তার সৃষ্টির সূচনালগ্ন থেকেই সন্ত্রাস, চাঁদাবাজ, চোরাচালান, মাদক ও অসাধু ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে আপোষহীন অবস্থানে থেকে দেশ ও জনগণের জন্য নিরলস ভাবে কাজ করে আসছে। তাছাড়া এই পবিত্র মাহে রমজান মাসে র‌্যাব তথা আইন-শৃংখলা বাহিনী নিয়মিত মোবাইল কোর্ট পরিচালনার মাধ্যমে ‘ভোক্তা অধিকার ও সংরক্ষণ আইন ২০০৯ বাস্তবায়ণে প্রসংশনীয় কার্যক্রম পরিচলনা করে আসছে যা দেশব্যাপী সমাদৃত। র‌্যাব-৮, মাদারীপুর গোয়েন্দা নজরদারীর মাধ্যমে মাদারীপুরের মোস্তফাপুর ফলের আড়তের কিছু অসাধু ব্যবসায়ী সম্পর্কে তথ্য পায় এবং তাদের ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করতে তৎপরতা শুরু করে।

এরই ধারাবাহিকতায় র‌্যাব-০৮, সিপিসি-০৩ মাদারীপুর ক্যাম্পের একটি বিশেষ আভিযানিক দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে যে, মাদারীপুর জেলার সদর থানাধীন মোস্তফাপুর বাজারে ফলের আড়তে বিপুল পরিমাণ ভেজাল, অস্বাস্থ্যকর ও ক্যামিকেল মিশ্রিত আম মজুদ ও বিক্রি করা হচ্ছে। উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাবের আভিযানিক দলটি শনিবার (৮ মে) সকাল সাড়ে ১০ টা হতে দুপুর সোয়া ১ টা পর্যন্ত ফলের আড়তে অভিযান পরিচালনা করে আড়তের অসাধু ব্যবসায়ী মোস্তফাপুর গ্রামের মৃত হাসেন উদ্দিন বেপারীর ছেলে আঃ মান্নান বেপারী(৭০), ঝিকরহাটি গ্রামের মোঃ আক্তার খার ছেলে মোঃ রহমতুল্লাহ (২৮) ও ঝিকরহাটি গ্রামের মৃত আব্দুল আজিজ খার ছেলে মোঃ সেলিম খা (৩৯) এর ফলের আড়ত হতে ভেজাল অস্বাস্থ্যকর এবং মানব দেহের জন্য ক্ষতিকারক রাসায়নিক সম্বলিত ৮০ কেজি আম উদ্ধার করা হয়। অপরিপক্ক এবং রাসয়নিক মিশ্রিত আম পাকিয়ে বিক্রি করছিল যা জনস্বাস্থের জন্য ক্ষতিকর।

এ সময় র‌্যাবের সহযোগিতায় ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে মাদারীপুর জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সহকারি কমিশনার ও এক্সকিউটিভ ম্যাজিষ্ট্রেট ফাতেমা জান্নাত, কৃষিকর্মকর্তা এবং ভোক্তা অধিকারের প্রতিনিধিদের উপস্থিতিতে উক্ত অসাধু ব্যবসায়ীগণকে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষন আইন ২০০৯ এর ৪২ ধারা মোতাবেক ৫ হাজার টাকা করে সর্বমোট ১৫ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করেন।

পরবর্তীতে উদ্ধারকৃত ভেজাল, অস্বাস্থ্যকর ও ক্ষতিকারক ক্যামিকেল সম্বলিত আম কৃষি কর্মকর্তার মাধ্যমে ধ্বংস করা হয়।

এ সময় র‌্যাব-৮, সিপিসি-৩, মাদারীপুর ক্যাম্পের কোম্পানী অধিনায়ক অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জমির উদ্দিন আহমেদ ও অপারেশনাল টিম উপস্থিত ছিলেন।

র‌্যাব-৮ এর এধরনের কার্যক্রম ভবিষ্যতেও অব্যাহত থাকবে।