শুক্রবার, ১৭ই সেপ্টেম্বর, ২০২১ ইং, ২রা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১০ই সফর, ১৪৪৩ হিজরী
শুক্রবার, ১৭ই সেপ্টেম্বর, ২০২১ ইং
শরীয়তপুরে ৬ কোটি ৬৪ লাখ টাকা ব্যয়ে সাবমেরিন ক্যাবলের মাধ্যমে বিদ্যুৎ পৌছে দেওয়া হয় চরবাসীর ঘরে।

পদ্মার দুর্গম চরে বিদ্যুৎ উদ্বোধন করছেন ইকবাল হোসেন অপু এমপি

পদ্মার দুর্গম চরে বিদ্যুৎ উদ্বোধন করছেন ইকবাল হোসেন অপু এমপি

শরীয়তপুরের জাজিরা উপজেলার পূর্ব নাওডোবা ইউনিয়নের অফগ্রীড চর এলাকায় বিদ্যুতায়নের শুভ উদ্বোধন করেছেন শরীয়তপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের কার্যনির্বাহী পরিষদের সদস্য ইকবাল হোসেন অপু।
শনিবার (২৮ আগষ্ট) পূর্ব নাওডোবা ইউনিয়নের পদ্মার দুর্গম চরের পাইনপাড়া আহাম্মদ মাঝি কান্দি এলাকায় বিদ্যুতায়নের শুভ উদ্বোধন অনুষ্ঠানের আয়োজন করে শরীয়তপুর পল্লি বিদ্যুৎ সমিতি।

৬ কোটি ৬৪ লাখ টাকা ব্যয়ে সাবমেরিন ক্যাবলের মাধ্যমে বিদ্যুৎ পৌছে দেওয়া হয় ওই চরবাসীর ঘরে।
সাংসদ ইকবাল হোসেন অপু বিদ্যুতের সুইচ অন করে বাতি জ্বালিয়ে চরের ১৭৭টি পরিবারে বিদ্যুতের সংযোগের উদ্বোধন করেন। মাঝির ঘাট থেকে পদ্মার তলদেশ দিয়ে সাবমেরিন কেবলের মাধ্যমে জাজিরার চরে বিদ্যুতের এ লাইন নেওয়ার ব্যবস্থা করে শরীয়তপুর পল্লি বিদ্যুৎ সমিতি।

অনুষ্ঠানে ইকবাল হোসেন অপু এমপি বলেন, বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনা চরের মানুষের কথা ভাবেন। তিনি সাবমেরিন কেবলের মাধ্যমে চরের মানুষের জন্য বিদ্যুৎ সংযোগের ব্যবস্থা করেছেন। নানা প্রাকৃতিক দুর্যোগের সঙ্গে লড়াই করে চরের মানুষ সবার জন্য খাবার উৎপাদন করেন শেখ হাসিনা সেটা জানেন। সেই কষ্টে থাকা মানুষদের নাগরিক সুবিধা পৌঁছে দেওয়া সরকারের দায়িত্ব। বিদ্যুৎসেবা পেয়েছে; শিক্ষা, চিকিৎসা, যোগাযোগসহ অন্য সব সুবিধাও চরের মানুষ পাবে।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন শরীয়তপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জেনারেল ম্যানেজার মো: জুলফিকার রহমান। তিনি বলেন, পদ্মা নদীর তলদেশ দিয়ে বিদ্যুতের লাইন নেওয়া অনেক চ্যালেঞ্জের ছিল। চরে সঞ্চালন লাইন বসানো অনেক কঠিন। নদীভাঙনে নানা প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবিলা করে কাজ করতে হচ্ছে। স্বল্প সময়ে আমরা চরের অন্তত তিনশো পরিবারে বিদ্যুৎ সংযোগ দিতে পারবো।
এসময় জাজিরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এড জাহাঙ্গীর হোসেন, সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা, জাজিরা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জিএম নুরুল হক, নাওডোবা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মোসলেম মাদবর সহ নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

শরীয়তপুর পল্লীবিদ্যুৎ সমিতি ও স্থানীয় সূত্র জানা যায়, শরীয়তপুর জেলার ওপর দিয়ে পদ্মা নদী প্রবাহিত হয়েছে। পদ্মা নদী ভেদরগঞ্জের কাচিকাটা, নড়িয়ার চরআত্রা, নওপারা ও জাজিরার কুন্ডেরচর ইউনিয়নসহ পূর্বনাওডোবার পাইনপাড়া আহাম্মদ মাঝি গ্রামটি বিচ্ছিন্ন করেছে। পাইনপাড়া চরে নৌপথে যাতায়াত করতে হয়। এই চরে বিদ্যুৎ সংযোগ পৌঁছে দেওয়ার উদ্যোগ নেন শরীয়তপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের কার্যনির্বাহী পরিষদের সদস্য ইকবাল হোসেন অপু। কিন্তু শরীয়তপুর থেকে পদ্মা নদী পেরিয়ে চরে বিদ্যুৎ দেওয়া সম্ভব হচ্ছিল না। গত বছর সংসদ ইকবাল হোসেন অপু এ গ্রামটি পরিদর্শনের পরে উক্ত চরে বিদ্যুৎ নেওয়ার কাজ শুরু হয়।
জাজিরার মঙ্গল মাঝিরঘাট থেকে পাইনপাড়া গ্রামে যেতে পদ্মা নদীর দূরত্ব এক কিলোমিটার। ওই এক কিলোমিটার নদীর তলদেশ দিয়ে সাবমেরিন কেবলের সাহায্যে বিদ্যুৎ আনা হয় এই সাবস্টেশনটি। সেখান থেকে ১০০০ লাইনের মাধ্যমে চরে বিদ্যুৎ সরবরাহ করা যাবে। আপাতত ১৭৭ পরিবারকে বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়া হয়েছে। শনিবার পূর্বনাওডোবা ইউনিয়নের পাইনপাড়া গ্রামের ১৭৭ পরিবারকে বিদ্যুৎসংযোগ দেওয়া হলো। ওই চরগুলোতে আরও প্রায় ১৫০ পরিবারকে বিদ্যুৎসংযোগ দেওয়া হবে।

পাইনপাড়া গ্রামের জালালউদ্দিন বলেন, এটি পদ্মানদীর একটি চর। চারদিক দিয়ে পদ্মা নদী। নৌপথ ছাড়া যাতায়াতের কোনো ব্যবস্থা নেই। এমন দুর্গম চরে বিদ্যুতের আলো জ্বলবে, এটা কখনো ভাবতে পারিনি। আমরা শেখ হাসিনা ও এমপির কারনে ঘরে বিদ্যুতের আলো পেয়েছি। এজন্য আমরা চরবাসী খুশি।