রবিবার, ১৭ই জানুয়ারি, ২০২১ ইং, ৩রা মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৪ঠা জমাদিউস-সানি, ১৪৪২ হিজরী
রবিবার, ১৭ই জানুয়ারি, ২০২১ ইং

ভেদরগঞ্জে সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে খাস জমিতে বালু ভরাটের অভিযোগ

ভেদরগঞ্জে সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে খাস জমিতে বালু ভরাটের অভিযোগ

শরীয়তপুর জেলার ভেদরগঞ্জ উপজেলায় সখিপুর থানার চরসেনসাস ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডে শরীয়তপুর আলুর বাজার ফেরিঘাটের নদীর পাড় বেড়াচাক্কি গ্রামে সরকারি খাস জমিসহ কৃষি জমি জবরদখল করে বালু ভরাটের অভিযোগ উঠেছে একটি ভূমিদস্যু বাহিনীর বিরুদ্ধে। সরকারি নোটিশ পাওয়া শর্তেও অবাধে ড্রেজিং ব্যবস্থার মাধ্যমে বিশাল ডগ (টার্মিনাল) নির্মাণ করে যাচ্ছে একটি ভূমিদস্যু বাহিনী।

এ বিষয়ে গত ২৩ ডিসেম্বর চরসেনসাস ইউনিয়ন (ভূমি) সহকারী কর্মকর্তা মোহাম্মদ শাহ্ আলম খাস জমি দখল করার অপরাধে ঐ আট জনকে অভিযুক্ত করে অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞার একটি নোটিশ প্রদান করেন তিনি। পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত ঐ স্থানের ড্রেজার দিয়ে বালু ভরাট করার কথা বলেন। ২৪ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ড্রেজার দিয়ে বালু ভরাট করার কাজ চলমান।

মানছেন না অভিযুক্ত মনির হোসেন, সোহেল বালা, দুলাল খা, জলিল মিয়া, নাসির আহম্মেদ, সোবাহান বেপারী, হালিম খাঁ ও আনোয়ারা বেগম।

মুঠোফোনে অভিযুক্ত দুলাল খাঁর সাথে আলাপকালে তিনি বিষয়টি এড়িয়ে লাইনটি কেটে দেন। সোহেল বালাকে একাধিকবার ফোন করলে তিনি কলটি রিসিভ করেন নি।

এ বিষয়ে চরসেনসাস ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জিতু মিয়া বেপারী বলেন, এখানে সরকারি খাস জমিতে ডগ টার্মিনাল তৈরি করছে। এতে পাশে কৃষি জমির আবাদি চাষী কৃষকদের ক্ষতি হচ্ছে। এ ব্যপারে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হউক।

এ বিষয়ে বিআইডব্লিউটিএ উপ-সহকারী প্রকৌশলী শহীদ বলেন, ফেরি চলাচল সচল রাখার জন্য ড্রেজিং করা খুবই দরকার তাই আমি ঐখানে মাটি দিচ্ছি। গত ২৪ ডিসেম্বর পর্যন্ত ড্রেজারটি চালান বলে জানান।

ভেদরগঞ্জ উপজেলা সহাকারী কমিশনার (ভূমি) শংকর চন্দ্র বৈদ্য বলেন, এ ব্যাপারে অভিযুক্ত ব্যক্তিদের নোটিশ দেয়া হয়েছে। কাজ বন্ধ করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। তারপরেও কাজ করলে পরবর্তীতে আইনগত ভাবে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।