মঙ্গলবার, ২০শে এপ্রিল, ২০২১ ইং, ৭ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৮ই রমজান, ১৪৪২ হিজরী
মঙ্গলবার, ২০শে এপ্রিল, ২০২১ ইং

ভেদরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সরকারি জমি ইজারা নিয়ে শর্তভঙ্গ

ভেদরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সরকারি জমি ইজারা নিয়ে শর্তভঙ্গ

শরীয়তপুর জেলার ভেদরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সরকারি জমি ইজারা নিয়ে শর্তভঙ্গ করে জমি ও সরকারী বিদ্যুৎ তছরূপের অভিযোগ পাওয়া গেছে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ও ইজারাদারের যোগসাজসেই এই অনিয়ম সংগঠিত হয়েছে বলেও অভিযোগ রয়েছে।

স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের অফিস সূত্র জানায়, ২ বছর পূর্বে ৫ বছরের চুক্তিতে হাসপাতালের প্রায় ৬ বিঘা জমি স্থানীয় মাসুদ হাওলাদার নামে এক ব্যক্তিকে ৩০ হাজার টাকার বিনিময়ে লিজ দেন শরীয়তপুর জেলার ভেদরগঞ্জ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। শর্ত থাকে লিজকৃত জমিতে মাসুদ নার্সারী ও শাক-সব্জি চাষাবাদ করবে। মাসুদ হাওলাদার মসজিদ কমিটির সভাপতি ও উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ মেঘনাদ সাহার যোগসাজসে লিজের শর্ত ভঙ্গ করে লিজকৃত জমিতে ৩টি পুকুর খনন করে। পুকুরের পাড়ে করে চাষাবাদ। পাশাপাশি সরকারি বিদ্যুৎ তছরূপ করে সেই আবাদকৃত ফসল ও খননকৃত পুকুরে পানি সরবরাহ করে থাকেন। এই জন্যে প্রতিমাসে প্রায় ৩ হাজার টাকা পরিমাণ অতিরিক্ত বিদ্যুৎ বিল গুনতে হচ্ছে সরকারকে।

দায়িত্বরত জুনিয়র ম্যাকানিক ফজলুল হক বেপারী বলেন, মূল মিটারের বিদ্যুৎ ব্যবহার করে হাসপাতাল কোয়াটারের গভীর নলকুপ থেকে পানি উঠিয়ে পুকুর ভরাট করাসহ ফসলে নিয়মিত পানি দিয়ে আসছে। এতে প্রতিমাসে প্রায় ৩ হাজার টাকা বেশী বিদ্যুৎ বিল আসছে। কর্তৃপক্ষকে একাধিকবার অবগত করার পরেও কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করছে না।

মসজিদ কমিটির সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম রাড়ী বলেন, মসজিদ কমিটির পক্ষ থেকে নার্সারী ও ফসল চাষাবাদের জন্য মাসুদকে জমি লিজ দেয়া হয়। জমিতে পুকুর খনন ও ফসল উৎপাদনের জন্য সরকারি বিদ্যুৎ ব্যবহারের বিষয়ে আমি কিছুই জানি না। এই বিষয়ে সভাপতি অবগত আছে কি না তাও আমার জানা নাই।

ইজারাদার মাসুদ হাওলাদার বলেন, ফসল উৎপাদনের জন্যই পুকুর খনন করেছি। আমার জানামতে হাসপাতাল কোয়াটারের বিদ্যুৎ ব্যবহার করে মটর চালিয়ে পানি উঠাই। তবে বিদ্যুতের সংযোগ মেইন মিটার থেকে নেয়া হয়েছে কিনা তা খোঁজ নিয়ে দেখব।

মসজিদ কমিটির সভাপতি উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. মেঘনাদ সাহা বলেন, মসজিদের উন্নয়নে জমি লিজ দিয়ে টাকা মসজিদ তহবিলে জমা করেছি। তবে লিজকৃত জমিতে পুকুর খনন করা ঠিক হয় নাই। সরকারি বিদ্যুৎ ব্যবহার করে মটর চালালে তার কাছ থেকে বিল আদায় করব।