সোমবার, ১৪ই জুন, ২০২১ ইং, ৩১শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৪ঠা জিলক্বদ, ১৪৪২ হিজরী
সোমবার, ১৪ই জুন, ২০২১ ইং

শরীয়তপুরের সেই মতি-রাশিদার ঘর দেখতে গেলেন ইকবাল হোসেন অপু এমপি

শরীয়তপুরের সেই মতি-রাশিদার ঘর দেখতে গেলেন ইকবাল হোসেন অপু এমপি

ঘর নেই, সিমেন্টের বস্তা, পলিথিন আর বাঁশের তৈরি ছাপড়ার নিচে দুই বছর বসবাস করেছেন শরীয়তপুর সদর উপজেলার চন্দনকর গ্রামের মতি বেপারী ও রাশিদা বেগম দম্পতি। তাদের ভাগ্যে জোটেনি সরকারি কোনো সাহায্য বা ঘর। এ বিষয়ে সাংবাদিকরা নিউজ করলে বিষয়টি নজরে আসে শরীয়তপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য ও কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সদস্য ইকবাল হোসেন অপু এবং প্রশাসনের কর্তাব্যক্তিদের।

পরে সংসদ সদস্য ইকবাল হোসেন অপুর উদ্যোগে ঘর তোলার জন্য সেই মতি-রাশিদা দম্পত্তিকে সরকারী ত্রাণ তহবিল থেকে তিন বান্ডেল টিন ও নগদ ১৮ হাজার টাকা দেয়া হয়। সেই টিন ও টাকা দিয়ে ছোট একটি ঘর তোলেন মতি-রাশিদা।

বুধবার (১৯ মে) দুপুরে মতি-রাশিদার সেই সরকারী অনুদানে তৈরী ঘর দেখতে যান সংসদ সদস্য ইকবাল হোসেন অপু। তিনি মতি-রাশিদার ঘরে ঢুকে তারা কি অবস্থায় আছেন তা স্বচক্ষে ঘুরে ঘুরে দেখেন। এসময় তিনি মতি বেপারী ও রাশিদা বেগমকে পাকা ঘর নির্মাণ করে দেওয়ার আশ্বাস দেন।

ইকবাল হোসেন অপু বলেন, পত্রিকায় নিউজ দেখে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল থেকে তাৎক্ষনিক মতি বেপারীকে টিনের ঘর তুলে দেওয়ার ব্যবস্থা করি। আজকে এসেছি প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া মতি বেপারীর সেই ঘর দেখতে। ভবিষ্যতে মতি বেপারীকে সরকারী পাকা ঘর দেওয়া হবে।

এ সময় সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এড. জাহাঙ্গীর হোসেন, সদর পৌরসভা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আমির হোসেন খান সহ আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।