সোমবার, ১৫ই আগস্ট, ২০২২ ইং, ৩১শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৭ই মুহাররম, ১৪৪৪ হিজরী
সোমবার, ১৫ই আগস্ট, ২০২২ ইং

শরীয়তপুরে সাড়ে ৮ বছর সততা ও নিষ্ঠার সাথে সরকারী দায়িত্ব পালন করেছেন উপজেলা প্রকৌশলী তৈয়বুর রহমান

শরীয়তপুরে সাড়ে ৮ বছর সততা ও নিষ্ঠার সাথে সরকারী দায়িত্ব পালন করেছেন উপজেলা প্রকৌশলী তৈয়বুর রহমান

উপজেলা প্রকৌশলী এ.এফ.এম তৈয়বুর রহমান শরীয়তপুরে সাড়ে আট বছরের কর্মজীবনে অত্যন্ত সততা ও নিষ্ঠার সাথে সরকারী দায়িত্ব পালন করেছেন।
তিনি ২০১০ সনের ২৯ জুন শরীয়তপুর জেলা পরিষদে সহকারী প্রকৌশলী হিসেবে যোগদান করেন। জেলা পরিষদে থাকাকালীন সময় জেলা পরিষদের জাজিরা উপজেলায় আধুনিক ডাকবাংলো, ৫শ আসন বিশিষ্ট অডিটরিয়াম, গোসাইরহাট উপজেলায় ৬ তলা ৫শ আসন বিশিষ্ট অডিটরিয়াম কাম ক্লাশ রুম, বিকে নগর কলেজ, চরভাগা বঙ্গবন্ধু হাইস্কুল, গরীবেরচর হাইস্কুল সহ অসংখ্য স্কুল ও ছয়টি উপজেলার গ্রামগঞ্জে বিভিন্ন ধরণের সমজিদ, মাদ্রাসার উন্নয়নে সততা ও নিষ্ঠার সাথে সরকারী দায়িত্ব পালন করেন। শরীয়তপুর শহরের চৌরঙ্গীতে পুরাতন ডাক বাংলার স্থানে ২০ হাজার বর্গফুটের সাত তলা বিশিষ্ট আধুনিক মাল্টিপারপাস বাণিজ্যিক ভবন নির্মাণে তিনি কারিগরি সহায়তা করেন। যার তিন তলার কাজ ইতিমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে। তিনি স্থানীয় সরকার বিভাগের আদেশে বিভিন্ন জেলা পরিষদে বহুতলা বিশিষ্ট মার্কেট ভবনের কনসালটেন্ট নিয়োগ, প্লান, ডিজাইন এর ব্যাপারে কারিগরি বিষয়ে সহকারী প্রকৌশলী হিসেবে কাজ করেছেন। তিনি দক্ষতা, সততা ও নিষ্ঠার সাথে ২০১৭ সালের ১১ জুলাই পর্যন্ত শরীয়তপুর জেলা পরিষদে কাজ করেছেন। এরপর তিনি ২০১৭ সালের ১২ জুলাই শরীয়তপুর সদর উপজেলায় উপজেলা প্রকৌশলী হিসেবে যোগদান করেন। সদর উপজেলায় যোগদানের পর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় উন্নয়নে সরকারী দায়িত্ব পালন করেন সততার সাথে। তার কর্মকালীন সময় প্রায় ৩০টি স্কুল নির্মাণাধীন রয়েছে। ইতিমধ্যে কতগুলির কাজ সমাপ্ত হয়েছে। বহু সড়ক, ঘাট উন্নয়ন ও মেরামত হয়েছে। গ্রামীণ যোগাযোগ ব্যবস্থা উন্নয়নে সরকারী দায়িত্ব পালনে তিনি বিশেষ ভূমিকা রেখেছেন। বিশেষ করে আড়িগাঁও ব্রীজের এপ্রোচ ভেঙ্গে যাওয়ার পর তা পুনরায় প্রতিস্থাপনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন।
তিনি শরীয়তপুর পুলিশ লাইন্স এর গেট, শেসুটিন্ট ডায়াস, পুলিশ লাইন্স মসজিদ, পালং মডেল থানার গেট, উর্ধমূখী সম্প্রসারণ, চারতলা বিশিষ্ট আধুনিক মেছ, ছয়টি থানার বাউন্ডারী ওয়াল নির্মাণসহ অসংখ্য অবকাঠামো নির্মাণে পরামর্শক ও তদারকিতে বিশেষ ভূমিকা রেখেছেন। নড়িয়া উপজেলার নরকলিকাতা সাবেক আইজিপি একেএম শহিদুল হক প্রতিষ্ঠিত মজিদ-জরিনা ফাউন্ডেশন স্কুল এন্ড কলেজের বড় ধরনের তিনটি বিল্ডিং, শিক্ষক বাসভবন, অধ্যক্ষের বাসবভন, নান্দনিক দুটি গেট সহ বিশাল কমপ্লেক্স নির্মাণে পরামর্শক ও তদারিকতে প্রত্যক্ষভাবে কাজ করেছেন। সর্বপরি তিনি শরীয়তপুরের উন্নয়নে সততা, দক্ষতা ও নিষ্ঠার সাথে সরকারী দায়িত্ব পালনে অসিম ভূমিকা রেখেছেন। তিনি গত ৭ ফেব্রুয়ারী শরীয়তপুর সদর উপজেলা থেকে মানিকগঞ্জ জেলার সাটুরিয়া উপজেলায় উপজেলা ইঞ্জিনিয়ার সিসেবে রিলিজ হয়েছেন।
শরীয়তপুরের মাটি ও মানুষকে তিনি দীর্ঘ সাড়ে আট বছরের কর্মজীবনে অকৃতিম ভালোবাসা দিয়েছেন। শরীয়তপুরের স্বর্বস্তরের মানুষকে জানিয়েছেন ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা। জনমানুষের নেতা হিসেবে কাজ করার জন্য জাতীয় সংসদ সদস্য ইকবাল হোসেন অপুর প্রতি তিনি শ্রদ্ধা জানিয়েছেন। বাংলাদেশের পেশাজীবী সংগঠনের মধ্যে অন্যতম সংগঠন আইডিইবি, ইনস্টিটিউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার এর সাড়ে আট বছর শরীয়তপুর জেলা শাখার সভাপতির দায়িত্ব দক্ষতার সাথে পালন করেছেন। দেশের কারিগরি দক্ষতা বৃদ্ধিতে তিনি অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছেন। তিনি শরীয়তপুর পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট ও ভোকেশনাল ট্রেনিং ইনস্টিটিউট এর একাডেমীক মেম্বার ছিলেন। ব্যক্তিগত জীবনে তার বাড়ী ফরিদপুর জেলার ভাঙ্গা উপজেলায়। তিনি ছিলেন সদালাপি। ১৯৮৪ সনে ওয়ার্কস প্রোগ্রাম উইং ফরিদপুরে তিনি চাকুরীতে যোগদান করেন।


error: Content is protected !!