শনিবার, ৮ই আগস্ট, ২০২০ ইং, ২৪শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৮ই জিলহজ্জ, ১৪৪১ হিজরী
শনিবার, ৮ই আগস্ট, ২০২০ ইং

শরীয়তপুরে রাজা বাবু নামে ৪০ মন ওজনের ষাড় উৎপাদন

শরীয়তপুরে রাজা বাবু নামে ৪০ মন ওজনের ষাড় উৎপাদন

শরীয়তপুরে এই প্রথম ১ হাজার ৬০০ কেজি (৪০ মন) ওজনের হলস্ট্যান ফ্রিজিয়ান জাতের “রাজা বাবু” নামে একটি ষাড় উৎপাদন করেছেন চোকদার ডেইরী ফার্ম। এই ষাড়টি কোরবানির হাটে তুলবেন বলে জানিয়েছেন ফার্মের পরিচালক খবির হোসেন চোকদার। তিনি প্রাথমিক অবস্থায় ১৫ লাখ টাকা মূল্য হাকছেন ৪০ মন ওজনের ষাড়টির। এই ষাড়টি দেখতে প্রতিদিন দর্শনার্থীদের ভীড় পড়ে যায় ফার্মে। ষাড়টি সম্পর্কে কৌতুহলী জনতা ০১৯৫৩ ৭৫১ ১৮৪ ও ০১৯৫২ ৫০৫ ৩১৩ নম্বরে কল করে খামারীর সাথে যোগাযোগ রক্ষা করছেন।

শরীয়তপুর সদর উপজেলার উত্তর ভাষানচর গ্রামের চোকদার ডেইরী ফার্মের স্বত্ত্বাধিকারী দেলোয়ার হোসেন চোদকার জানায়, ২০১০ সালে তিনি এই খামারটি প্রতিষ্ঠা করেন। এখন তার খামারে ১৪ টি গাভী, ৭ টি ষাড় ও ৯ টি বকনা বাছুর রয়েছে। পাশাপাশি তিনি ছাগল পালন করেন। এই বছর তিনি ৭ টি ষাড় রাজধানীর নয়া বাজার কোরবানির হাটে তুলবেন। এর মধ্যে একটি হলস্ট্যান ফ্রিজিয়ান জাতের ৪ বছর বয়সী ষাড় রয়েছে। ষাড়টির দৈঘ্য ১২ ফিট, উচ্চতা ৬ ফিট ও ওজন প্রায় ১ হাজার ৬০০ কেজি বা ৪০ মন। তিনি ষাড়টির ১৫ লাখ টাকা মূল্য পাওয়ার প্রত্যাশা করছেন। এই মূল্যে ষাড়টি বিক্রি হলে তিনি ন্যায্য মূল্য পাবেন।

খামারের পরিচালক খবির হোসেন বলেন, সবুজ ঘাস ও খৈল-ভূষি আমাদের ফার্মের গাভী ও ষাড়ের প্রধান খাদ্য। আমরা পশু চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী খামার পরিচালনা করি। প্রাকৃতিক খাবার ছাড়া কোন কৃত্তিম খাবার আমাদের খামারে ব্যবহার করা হয় না।

দর্শনার্থী আব্দুর রহমান বলেন, একই এলাকায় আমার বসবাস। দেলোয়ার চোকদারের খামারে বেশকিছু উন্নত জাতের গাভী ও ষাড় গরু রয়েছে। এর মধ্যে রাজা বাবু নামে যে ষাড়টি রয়েছে সেটি বেশ বড়। আমার ৮০ বছর বয়সে শরীয়তপুর ছাড়াও আশপাশের কোন জেলায় এত বড় ষাড় দেখি নাই। এই ষাড়টি যেমন লম্বা তেমনি উচা। গত কোরবানির ঈদে এই ষাড়টি ঢাকার একটি বাজারে তোলা হয়েছিল। ৭ লাখ টাকা পর্যন্ত দাম উঠছিল। আশানুরূপ না হওয়ায় ষাড়টি ফিরিয়ে আনে। এই বছর ষাড়টির মূল্য ১৫ লাখ টাকা দাবী করছেন ফার্মের মালিক। আমি সময় পেয়ে রাজা বাবু নামের ষাড়টি দেখার জন্য ফার্মে আসি।