বৃহস্পতিবার, ৬ই মে, ২০২১ ইং, ২৩শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৪শে রমজান, ১৪৪২ হিজরী
বৃহস্পতিবার, ৬ই মে, ২০২১ ইং

শরীয়তপুরে নারী চিকিৎসককে যৌন হয়রানির অভিযোগে কথিত সাংবাদিক সহ ৩ জন গ্রেফতার

শরীয়তপুরে নারী চিকিৎসককে যৌন হয়রানির অভিযোগে কথিত সাংবাদিক সহ ৩ জন গ্রেফতার

শরীয়তপুর সদর হাসপাতালের এক নারী চিকিৎসককে যৌন হয়রানির অভিযোগে তথাকথিত এক সাংবাদিক সহ ৩ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। সোমবার (১৯ এপ্রিল) তাদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন, শরীয়তপুর সদর উপজেলার তুলাসার গ্রামের শাজহান কবীরের ছেলে রিদওয়ান কবীর (২৯), তিনি নিজেকে কিউ টিভি বাংলা’র শরীয়তপুর জেলা প্রতিনিধি পরিচয় দেন। অপর আসামিরা হলেন চিতলিয়া ইউনিয়নের ফজলুল হক মোল্লার ছেলে বিল্লাল হোসেন মোল্লা (৫১) ও তুলাসার গ্রামের আব্দুল মালেক বেপারীর ছেলে আব্দুল আলীম বেপারী (৩৬)।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, রোববার (১৮ এপ্রিল) বিকেলে শরীয়তপুর জেলা শহরের সদর রোডে তামিম ফ্যামিলি ফুড সেন্টারে শপিং করতে যান ওই নারী। এ সময় দাম নিয়ে বিক্রয়কর্মীর সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয় তার। পরে সেখানে উপস্থিত গ্রেপ্তারকৃত আসামীরা ফুড সেন্টারের বাইরে তাকে যৌন হয়রানি করে বলে অভিযোগ করা হয়েছে।

ভুক্তভোগেী ওই চিকিৎসক বলেন, ‘আমি তামিম ফ্যামিলি ফুড সেন্টারে শপিং করতে গেলে সেখানে পণ্যের দাম নিয়ে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায় তারা আমাকে শ্লীলতাহানির চেষ্টা করে এবং নানা রকম হয়রানি করে।’

শরীয়তপুর সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. মুনির আহম্মেদ খান বলেন, ‘ঘটনাটি শুনেছি। এটি তার ব্যক্তিগত ব্যাপার। ঘটনাটি আমাদের হাসপাতলে ঘটেনি। সে ব্যক্তিগতভাবে থানায় মামলা করেছে।’
এ বিষয়ে পালং মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: আখতার হোসেন জানান, শরীয়তপুর সদর হাসপাতালের এক চিকিৎসককে যৌন হয়রানির অভিযোগে তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। সোমবার সকালে পালং মডেল থানায় একটি মামলা করার পরিপ্রেক্ষিতে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।