Friday 1st March 2024
Friday 1st March 2024

Notice: Undefined index: top-menu-onoff-sm in /home/hongkarc/rudrabarta.net/wp-content/themes/newsuncode/lib/part/top-part.php on line 67

নড়িয়ার ঘড়িসার বাজারে ভাইয়ে ভাইয়ে শত্রুতায় ক্ষতিগ্রস্থ দুই দোকানি

নড়িয়ার ঘড়িসার বাজারে ভাইয়ে ভাইয়ে শত্রুতায় ক্ষতিগ্রস্থ দুই দোকানি

নড়িয়া উপজেলা ঘড়িসার বাজারে বেপারী মার্কেটে মৃত মো. জালাল বেপারীর ছেলেদের মাঝে দোকানের মালিকানা নিয়ে বিরোধ সৃষ্টি হয়। তার জেরে গত ২১ এপ্রিল রাতে তার ছেলে ছোবাহান বেপারী লোকজন নিয়ে সন্ত্রাসী ভাবে দুই ভারাটিয়ার দোকানে জোরপূর্বক তালা লাগিয়ে দেন। এবং হুমকি দিয়ে বলেন, এখন থেকে আমার সাথে দোকানঘর চুক্তি করতে হবে, আমাকে ভারা দিতে হবে।
ঘটনার সুত্রে জানা যায়, ভারাটিয়া দরিদ্র চায়ের দোকানদার কামাল মাঝি, ৬৩ হাজার টাকা, ফার্নিচার দোকানদার শামীম গাজী ১ লক্ষ ৭৪ হাজার টাকা অগ্রিম প্রদান করে ৩ বছরের মেয়াদে দোকান ঘর ভারা নেন ছোবাহান বেপারীর বড় ভাই প্রবাসী জয়নাল বেপারীর কাছ থেকে। যার মেয়াদ ১লা বৈশাখ ১৪২৫ থেকে ১৪২৭ বাংলা সন পর্যন্ত।
ভুক্তভোগি কামাল মাঝি ও শামীম গাজী বলেন, আমরা দোকান ভাড়া নিয়েছি জয়নাল বেপারীর কাছ থেকে এখন তারা ভাইয়ে ভাইয়ে দোকানের জমি নিয়ে মামলা চলছে, ১৪৪ ধারায়ও জারি হয়েছে। কিন্তু আমরা গরিব দোকানদার আমাদের অপরাধ কি আজ এক মাস হয় রাস্তায় বসে দোকান করছি দেখার কেউ নেই।
এ বিষয় শামীম গাজী বলেন, আমাদের ছোবাহান বেপারী বলেন তার সাথে ঘর ভাড়া চুক্তি করলে দোকানের তালা খুলে দিব। আমরা বাজার কমিটি কে জানিয়েছি ও মালিকের ভাই দ্বিলইসলাম বেপারী কে নিয়ে থানায় অভিযোগ করি এখন পর্যন্ত কোন সমাধান হয়নি। আমরা খুব কষ্টে আছি।
ঘটনার ব্যাপারে ঘড়িসার বাজার বণিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক রুমান হাওলাদার বলেন, এজমালি দোকান নিয়ে তাদের ভাইদের মাঝে বিরোধ চলছে মার্কেট গাজিদের কাছে বিক্রয় করা হয়েছিল। সেখান থেকে টাকা দিয়ে ছোবাহান বেপারী ফিরত এনেছে তার নামে বর্তমান দলিল। তাই সে ভারাটিয়াদের উচ্ছেদ করেছে এখন নতুন চুক্তি করতে রাজি হলে বিষয়টি সমাধান করা যাবে।
দোকানের বিষয় মালিকের ছোট ভাই দ্বিন ইসলাম বলেন, আমরা জমির দলিলে দাখিল করেছি আদালতে মামলা চলছে। আদালত অমান্য করে আমাদের ভাড়াটিয়াদের রাতের আধারে সন্ত্রাসী ভাবে তালা মেরে উচ্ছেদ করেন। আমি বলেছি আমার বড় ভাই জয়নাল বেপারী ইতালী থেকে আশার পর দেখা যাবে। তা না শুনে জোরপূর্বক তালা মেরে আইন ভঙ্গ করেছ ছোবাহান।
এ বিষয় ভাড়াটিয়া ও মালিক পক্ষ প্রশাসনিক সহযোগিতা চান।
ঘটনার বিষয় নড়িয়া থানা পুলিশের এসআই ইমরান বলেন, আমি ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করেছি। সমাধানের চেষ্টা চলছে। মালিক পক্ষকে তাদের কাগজপত্র নিয়ে থানায় আসতে বলেছি।