বৃহস্পতিবার, ২৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ ইং, ১৪ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৩রা রবিউল-আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরী
বৃহস্পতিবার, ২৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ ইং

মামলার সাক্ষ্য দেয়ায় জাজিরার বিকে নগরে গরুসহ গোয়ালঘর পুড়িয়ে ফেলেছে

মামলার সাক্ষ্য দেয়ায় জাজিরার বিকে নগরে গরুসহ গোয়ালঘর পুড়িয়ে ফেলেছে

জাজিরা উপজেলার বড়কৃষ্ণ (বিকে) নগর পশ্চিম কাজী কান্দি গ্রামে সরোয়ার মাদবর ও তোতা বেপারীর মাঝে জমিজমা নিয়ে দীর্ঘদিনের বিরোধ রয়েছে। এ বিষয়ে পক্ষে বিপক্ষে আদালতে একাধিক মামলা মোকদ্দামা চলছে। জাজিরা থানা পুলিশ ও স্থানীয় গণ্যমান্য লোকজন সহ ইউপি চেয়ারম্যান বিরোধের বিষয়টি সমাধানের লক্ষ্যে একাধিক দরবার শালিসী করেছে। বিরোধের বিষয়টি নিরশণা না হয়ে সংঘাতের দিকে এগুচ্ছে।
সরোয়ার মাদবর ও তোতা বেপারীর পরিবার সহ স্থানীয়রা জানায়, তোতা বেপারী ছরোয়ার মাদবরের চাচাতো বোন সাহেরা বেগমের পৈত্রিক সম্পত্তির ওয়ারিশ অংশ ক্রয় করে। সেই থেকেই দুই পরিবারের মাঝে বিরোধ চলে আসছে। এ নিয়ে থানা পুলিশ সহ আদালতে একাধিক মামলা চলমান রয়েছে। কিছুদিন পূর্বে জাজিরা থানা পুলিশ মামলার বিষয়ে তদন্তে গিয়ে স্থানীয় মুরব্বি কাশেম মাদবর (৮৫) এর সাক্ষ্য গ্রহন করেন। কাশেম মাদবর সাক্ষ্য প্রদান কালে পুলিশের কাছে বলে, তোতা বেপারী কৃত্তিম ভাবে ঘটনা সাজিয়ে প্রতিপক্ষকে ঘায়েলের চেষ্টা করে। এ কারণে ক্ষিপ্ত হয়ে বুধবার রাতে তোতা বেপারী তার সমর্থক লোকজন নিয়ে সাক্ষ্য প্রদানকারী কাশেম মাদবরের গোয়াল ঘরে আগুন ধরিয়ে দেয়। এ সময় গোয়াল ঘরসহ গোয়ালে থাকা একটি গাভি ও একটি বাছুর আংশিক পুড়ে যায়। ঘটনা পরবর্তী জাজিরা থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করেছে।
কাশেম মাদবর জানায়, তোতা বেপারী ও সরোয়ার মাদবরের মধ্যকার মামলার তদন্তে গত কয়েকদিন পূর্বে জাজিরা থানা পুলিশ এলাকায় আসে। তখন পুলিশ কাশেম মাদবরে সাক্ষ্য গ্রহন করে। সাক্ষ্য কাশেম মাদবর বলেছে তোতা বেপারী কৃত্তিম উপায়ে ঘটনা সাজিয়ে এলাকায় অশান্তি ও মামলা মোকদ্দমা সৃষ্টি করে। এ কারণে ক্ষিপ্ত হয়ে গতরাতে তোতা বেপারী তার লোকজন নিয়ে কাশম বেপারীর গোয়াল ঘর ও দুটি গাভি আগুনে পুড়িয়ে দেয়। এতে প্রায় ২ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।
তোতা বেপারীকে বাড়িতে গিয়ে পাওয়া যায়নি। তখন তার স্ত্রী রাজিয়া বেগম জানায়, তার স্বামী তোতা বেপারী সরোয়ার মাদবরের চাচাতো বোন সাহেরা বেগমের থেকে ওয়ারিশ ক্রয় করেছে। সে জমিতে দখল নিতে গেলেই সরোয়ার মাদবর বাঁধা প্রদান করে। এ নিয়ে একাধিক মামলা মোকদ্দামা রয়েছে। গত সোমবার মামলার তারিখ ছিল। কোর্টের থেকে হাজিরা দিয়ে বাড়ি এসে সরোয়ার মাদবর পুনরায় তোতা বেপারীর বাড়িতে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করে। সেই ঘটনা আড়াল করতেই কাশেম মাদবরের গোয়াল ঘরে আগুন দিয়ে তার স্বামীর বিরুদ্ধে অভিযোগ আনছে। এ বিষয়ে তার স্বামী কিছুই জানে না।
সরোয়ার মাদবর বলেন, তোতা বেপারী জাল দলিল করে তার বোনের জমি দখলের চেষ্টা করছে। তাই বিভিন্ন সময় কৃত্তিম ঘটনা সাজিয়ে আমাদের হয়রানির উদ্দেশে মামলা করে। সেই মামলায় পুলিশ আমার চাচা কাশেম মাদবরের সাক্ষ্য গ্রহন করে। আমার চাচা প্রদত্ত সাক্ষ্য তোতা বেপারীর বিপক্ষে যাওয়ায় কাশেম বেপারীর গোয়াল ঘর সহ ২টি গাভী পুড়িয়ে দেয়।
জাজিরা থানা অফিসার ইনচার্জ মো. বেলায়েত হোসেন বলেন, কাল রাতের ঘটনা। সংবাদ পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। স্থানীয় ভাবে একে অপরকে ফাঁসাতে এ ধরনের নাটক করে। এ বিষয়ে কোন অভিযোগ পাওয়া যায় নাই। অভিযোগ পেলে আইন আনুগ ব্যবস্থা গ্রহন করব।


error: Content is protected !!