• ব্রেকিং নিউজ

    শরীয়তপুরে নবনির্মিত স্কুল ভবনের সংস্কার কাজ চলছে

    রুদ্রবার্তা প্রতিবেদক

    প্রকাশিত: ০৩ মে ২০১৯ সময়: ৮:৩৯ পূর্বাহ্ণ 133 বার

    শরীয়তপুরে নবনির্মিত স্কুল ভবনের সংস্কার কাজ চলছে

    শরীয়তপুর সদর উপজেলার ৪১ নং চরযাদবপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নব নির্মিত ভবনে ফাটল দেখা দেওয়ায় পূনরায় সংস্কার কাজ শুরু করেছে ঠিকাদার। উপজেলা প্রকৌশলীর নির্দেশে ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে ভবনটির ক্রুটিপূর্ন অংশ। বৃহস্পতিবার (২ মে) দুপুরে স্কুলটি পরিদর্শনে যান জেলা প্রশাসক কাজী আবু তাহের, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহবুর রহমান শেখ ও উপজেলা প্রকৌশলী শাহ আলম মিয়া। এদিকে কর্তৃপক্ষের কাছে হস্তান্তরের পূর্বেই ভবনটির বিভিন্ন অংশে ফাটল দেখা দেয়ায় ক্ষুদ্ধ হয়ে উঠেছেন এলাকাবাসী। নির্মাণ কাজে অনিয়মের খবর জানতে পেরে গত মঙ্গলবার (৩০ এপ্রিল) বিদ্যালয়টি পরিদর্শন করেছে দুর্নীতি দমন কমিশনের একটি দল।
    শরীয়তপুর সদর উপজেলা প্রকৌশলীর কার্যালয় ও বিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, ১৯২৩ সালে ৪১ নম্বর চরযাদবপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠিত হয়। টিনশেড মূল ভবনের পাশে প্রাথমিক শিক্ষা উন্নয়ন প্রকল্প-৩ এর আওতায় ২০১৭-১৮ অর্থ বছরে এলজিইডি ৭৩ লাখ ৮৮ হাজার ৪০০ টাকা ব্যয়ে নতুন একটি ভবন নির্মাণের কাজ শুরু করে। যা গত ২০১৮ সালের জুন মাসে নির্মাণ কাজ শেষ হওয়ার কথা। মাদারীপুরের মেসার্স আবদুল মান্নান লস্কর নামে একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান স্কুল ভবনটি নির্মাণ কাজের আদেশ পায়। মূল ঠিকাদার আবদুল মান্নান লস্কর শরীয়তপুরের আরেক ঠিকাদার সোহেল খানের কাছে কাজটি বিক্রি করে দেন। সাব কন্ট্রাকটর হিসেবে সোহেল খান ২০১৮ সালের ডিসেম্বরে ভবনটির নির্মাণ কাজ শেষ করে। ঠিকাদারের মৌখিক অনুমতিতে চলতি বছরের ফেব্রুয়ারী থেকে ভবনটিতে ক্লাশ শুরু করে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। কিন্তু ক্লাশ শুরু করার দুই মাস না যেতেই ভবনটির দেয়ালসহ বিভিন্ন স্থানে ফাটল দেখা দেয়। ভবনের বিম ও দেয়ালের সংযোগস্থলে ফাটল দেখা দেয়। মেঝের পলেস্তারা উঠে ইট-বালু বের হয়ে যায়। বিষয়টি বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ঊর্ধ্বতন শিক্ষা কর্মকর্তা ও এলজিইডি প্রকৌশলীদের জানায়। এ বিষয়ে বিভিন্ন মিডিয়ায় নিউজ প্রকাশ হলে দুদকের একটি দল ভবনটি পরিদর্শন এসে অনিয়মের প্রমাণ পায়। দুদক এ বিষয়ে আইনী ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানালে টনক নড়ে ঠিকাদার, উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা প্রকৌশলীর। দুদক ভবনটি পরিদর্শন করে চলে যাওয়ার পর ঠিকাদার ক্রুটিপূর্ণ ভবন মেরামতের জন্য নির্মাণ শ্রমিকদের পাঠালে এলাকাবাসী ও স্কুল কর্তৃপক্ষ কাজ করতে দেন নি। ১ মে শ্রমিক দিবসের ছুটির দিন ঠিকাদার লোকজন নিয়ে এসে ক্রুটিপূর্ন অংশ ভেঙ্গে নতুন করে মেরামতের উদ্যোগ নেন। বৃহস্পতিবার দুপুরে স্কুলটি পরিদর্শনে যান জেলা প্রশাসক কাজী আবু তাহের, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহবুর রহমান শেখ ও উপজেলা প্রকৌশলী শাহ আলম মিয়া। এ সময় কাজে অনিমের প্রমান পান জেলা প্রশাসক কাজী আবু তাহের। কি করে কাজে অনিয়ম হলো দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রকৌলশীর কাছে সেই কৈফিয়তও চান জেলা প্রশাসক। এ সময় কাজের যেন আর কোন ক্রুটি না থাকে সেভাবে কাজ করার নির্দেশ দেন জেলা প্রশাসক।
    এ সময় স্থানীয় আনোয়ার শিকদার নামে এক লোক জেলা প্রশাসকের কাছে অভিযোগ করে বলেন, এই স্কুলটি করার জন্য আমরা জমি দান করেছি। নতুন ভবনটি করার সময় কাজের ব্যাপক অনিয়ম দেখে ঠিকাদারকে জানিয়েছি। ঠিকাদার আমাদের কোন কথা শোনেনি। পরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর অভিযোগ করলে ঠিদারের লোকজন আমাকে হুমকি দেয়।
    বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রতন কুমার মন্ডল বলেন, ‘ভবনটি নির্মাণের সময় স্থানীয়রা অনিয়মের অভিযোগে বাঁধা দিয়েছিল। কিন্তু এলজিইডির প্রকৌশলীরা বলেছিলেন কাজ ঠিকমতোই হচ্ছে, কোনও সমস্যা নেই। এখন ভবনের বিভিন্ন অংশে ফাটল দেখা দেওয়ায় পুনরায় কাজ শুরু করেছে। এর মধ্যেই পাঠদান কার্যক্রম চালাতে হচ্ছে।
    এলজিইডির সদর উপজেলা প্রকৌশলী মোহাম্মদ শাহ আলম মিয়া বলেন, আমি ১ মাস হয় সদর উপজেলা যোগদান করেছি। জরুরী বরাদ্দ থেকে এই স্কুলটি ভবনটি বাস্তবায়িত হয়েছে। কাজটি শেষ হওয়ার কথা ২০১৮ সালের জুনে থাকলেও ডিসেম্বরে কাজটি শেষ হয়। কাজ শেষ হওয়ার পর আমাদের কাছে বুঝিয়ে দেওয়ার কোন কাগজপত্র পাইনি। ভবনটি ফাটলের খবর পেয়ে একাধিকবার পরিদর্শন পরীক্ষা নিরিক্ষা করেছি এবং ঠিকাদারকে ক্রুটিপূর্ন অংশ মেরামতের নির্দেশ দিয়েছি।
    জেলা প্রশাসক কাজী আবু তাহের বলেন, বিভিন্ন মিডিয়ার মাধ্যমে খবর পেয়ে স্কুল ভবনটি পরিদর্শনে এসেছি। পরির্দশনে এসে অনিয়মের প্রমাণ পেয়েছি। এ বিষয়ে তদন্ত কমিটি গঠন হয়েছে। তদন্ত রিপোর্ট অনুযায়ী আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

    :: শেয়ার করুন ::

    Comments

    comments

    সংবাদটি ফেইসবুকে শেয়ার করুন

    দৈনিক রুদ্রবার্তা/শরীয়তপুর/০৩ মে ২০১৯/


    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত


    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০
    ১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
    ১৮১৯২০২১২২২৩২৪
    ২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১
  • ফেসবুকে দৈনিক রুদ্রবার্তা

  • error: নিউজ কপি করা নিষেধ!!