বৃহস্পতিবার, ২৯শে জুলাই, ২০২১ ইং, ১৪ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৮ই জিলহজ্জ, ১৪৪২ হিজরী
বৃহস্পতিবার, ২৯শে জুলাই, ২০২১ ইং

ভেদরগঞ্জ সম্পত্তি আত্মসাত করে মেরে ফেলার অভিযোগে ৪ ছেলের বিরুদ্ধে বৃদ্ধ বাবার মামলা

ভেদরগঞ্জ সম্পত্তি আত্মসাত করে মেরে ফেলার অভিযোগে ৪ ছেলের বিরুদ্ধে বৃদ্ধ বাবার মামলা

শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জ উপজেলার ছয়গাও ইউনিয়নে সোবহান সিকদার নামে এক বৃদ্ধ তার চার ছেলের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন। কৌশলে সম্পত্তি আত্মসাত, চুরি ও মেরে ফেলার হুমকির অভিযোগ এনে শরীয়তপুর চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমলী আদালতে সি আর ৩১/২১ভেদরগঞ্জ এই মামলাটি দায়ের করেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ভেদরগঞ্জ উপজেলার ছয়গাও ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের সোবহান সিকদার এর বসতবাড়ি জোরপূর্বক লিখে দিতে বলে সোবহান সিকদার এর প্রথম পক্ষের চার ছেলে। সোবহান সিকদার এর প্রথম স্ত্রী কয়েক বছর আগে মারা গেলে তিনি পূনরায় আবার বিয়ে করেন সেই ঘরে তিনটি মেয়ে সন্তান রয়েছে এই সোবহান সিকদারের। সোবহান সিকদার বলেন,, তার চার ছেলে *সোলাইমান *সিরাজ *সেলিম ও মোহাম্মদ আলী সহ কেউ তার সঙ্গে ভালো ব্যবহার করতেন না এবং তাকে কোন ভরনপোষণ দেননা। এ বিষয়ে সোবহান সিকদার বলেন, আমি বৃদ্ধ মানুষ সারাদিন অনেক পরিশ্রম ও খাটাখাটি করে কিছু পুই শাক, ও নানা প্রকার সবজি চাষ করে জীবন নির্বাহ করি। কিন্তু আমার আপন চার ছেলে আমার সম্পত্তি পাওয়ার উদ্দেশ্য করে গালিগালাজ ও মারধর করে আমি নিরুপায় হয়ে ছয়গাও ইউনিয়নের চেয়ারম্যান, মেম্বার ও এলাকার কিছু গন্য মান্য ব্যাক্তিবর্গদের জানাইলে তারা অনেক বার বিচার সালিশ করে, কিন্তু কিছুদিন পরে তারা আবার আমাকে মারধর করে এবং আমার সব সম্পত্তি ঐ চার ছেলের নামে লিখে দিতে বলে। আমি অসম্মতি প্রকাশ করলে প্রতিদিন মাইরাফালানোর হুমকি দেয় তারা। তাই আমি নিরুপায় হয়ে কোর্টে আমার চার ছেলের বিরুদ্ধে মামলা করেছি। আমি এখন আইন, আদালতের কাছে এর সঠিক বিচার প্রার্থী।

এবেপারে তার মেঝো ছেলে সোলাইমান ও ছোট ছেলে মোহাম্মদ আলীর কাছে জানতে চাইলে তারা এটা মিথ্যা অভিযোগ বলে দাবী করেন। তারা বলেন আমরা বাবাকে ভরনপোষণ দিতে পারিনা তাই তিনি আমাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ এনে মামলা করেছে।

তবে সোবহান সিকদার নামে এই বৃদ্ধ লোকটি পেশায় একজন সবজি বিক্রেতা, তিনি প্রতিদিন ভ্যানে করে গ্রামে গ্রামে গিয়ে সবজি বিক্রি করে জীবিকা নির্বাহ করেন। সারাদিন পরিশ্রম করে বাসায় আসার পর তার ছেলেরা বিভিন্ন উৎপাদনকৃত ফসলি গাছ ও ফলমূল নষ্ট করা সহ বৃদ্ধ পিতা সোবাহান সিকদার কে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে এবং মারধর করে। এই বিষয় নিয়ে কয়েক বার দরবার শালিস করেও কোন লাভ হয়নি। পরে বৃদ্ধ সোবহান সিকদার নিরুপায় হয়ে শরীয়তপুর চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমলী আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন।

তখন এ বিষয়ে উপস্থিত এলাকাবাসীদের নিকট সঠিক ঘটনা সম্পর্কে জানতে চাইলে, সিরাজ মাল, মোঃমোস্তফা হাদি ও নিজাম সরদার সহ আরো অনেকেই দৈনিক রুদ্রবার্তাকে বলেন, সোবাহান সিকদার একজন গরীব ও অসহায় হতদরিদ্র লোক। তার চার ছেলে সোলাইমান, সিরাজ, সেলিম ও মোহাম্মদ আলী তাকে সম্পত্তি লিখে দেওয়ার জন্য প্রতিনিয়ত অনেক অত্যাচার ও মারধর করে, আমরা এবিষয়টা সমাধান করার জন্য কয়েকবার চেষ্টা করেছি কিন্তু সোবহান সিকদার এর ছেলেরা কারো কোন কথা শুনেননি,এবং আবারও তাকে নির্মমভাবে অত্যাচার করতে শুরু করে এবং ঐ চার ছেলে বৃদ্ধ পিতা সোলাইমান সিকদার কে হত্যার হুুুমকিও দিয়েছে।