সোমবার, ২৩শে মে, ২০২২ ইং, ৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২২শে শাওয়াল, ১৪৪৩ হিজরী
সোমবার, ২৩শে মে, ২০২২ ইং

শরীয়তপুরে “উগ্রবাদ প্রতিরোধে ছাত্র, গণমাধ্যমকর্মী ও সুশীল সমাজের ভূমিকা” বিষয়ক দিনব্যাপি সেমিনার

শরীয়তপুরে “উগ্রবাদ প্রতিরোধে ছাত্র, গণমাধ্যমকর্মী ও সুশীল সমাজের ভূমিকা” বিষয়ক দিনব্যাপি সেমিনার

শরীয়তপুর জেলার বিভিন্ন উপজেলার ছাত্র, গণমাধ্যমকর্মী ও সুশীল সমাজের অংশগ্রহণে বাংলাদেশ পুলিশের সন্ত্রাস দমন ও আন্তর্জাতিক অপরাধ প্রাতিরোধ কেন্দ্র নির্মাণ প্রকল্প “উগ্রবাদ প্রতিরোধে ছাত্র, গণমাধ্যমকর্মী ও সুশীল সমাজের ভূমিকা” বিষয়ে দিন ব্যাপি সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। মঙ্গলবার ১৮ জানুয়ারি সদর পৌরসভা অডিটোরিয়ামে জেলা পুলিশের সার্বিক সহযোগিতায় এ সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়।

এ সময় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন শরীয়তপুর জেলার সুযোগ্য পুলিশ সুপার এস. এম. আশরাফুজ্জামান। পুলিশ সুপার বলেন, উগ্রবাদ ও জঙ্গিবাদ দমন করে বাংলাদেশ তথা শরীয়তপুরকে একটি শান্তির জেলা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করবো। কেউ যদি মাথাচাড়া দিয়ে উগ্রবাদ ও জঙ্গিবাদ সৃষ্টি করতে চায়, আমরা সকলে মিলে তা প্রতিহত করবো এবং রাষ্ট্রের পৃষ্ঠপোষকতায় যেন উগ্রবাদী কার্যক্রম না হয়, সে পুলিশ প্রশাসন সবসময় সজাগ ছিল, ভবিষ্যতেও থাকবে।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রসাশন ও অপরাধ) মোঃ সাইফুর রহমান পিপিএম-এর সভাপতিত্বে ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার(সদর) তানভীর হায়দার-এর সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ হারুন-অর-রশিদ, জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও শরীয়তপুর জেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি অনল কুমার দে, শরীয়তপুর পৌরসভা মেয়র এডভোকেট পারভেজ রহমান জন, গোসাইরহাট উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ফজলুর রহমান ঢালী, নড়িয়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান একেএম ইসমাইল হক, নড়িয়া পৌরসভা মেয়র এডভোকেট আবুল কালাম আজাদ ও শরীয়তপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সামাদ তালুকদার সহ ছাত্র, শরীয়তপুর জেলার কর্মরত গণমাধ্যমকর্মী ও জনপ্রতিনিধি সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দ প্রমূখ।

এ সময় ঢাকা ডিএমপি অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আতিকুল হক প্রধান প্রজেক্টরের মাধ্যমে “উগ্রবাদ প্রতিরোধে ছাত্র, গণমাধ্যমকর্মী ও সুশীল সমাজের ভূমিকা” নিয়ে আলোচনা করেন।