Thursday 30th May 2024
Thursday 30th May 2024

Notice: Undefined index: top-menu-onoff-sm in /home/hongkarc/rudrabarta.net/wp-content/themes/newsuncode/lib/part/top-part.php on line 67

ছাত্র-ছাত্রীদের পড়াশোনা ও খেলাধুলার মধ্য দিয়ে আগামী দিনের জন্য প্রস্তুত হতে হবে: ইকবাল হোসেন অপু এমপি

ছাত্র-ছাত্রীদের পড়াশোনা ও খেলাধুলার মধ্য দিয়ে আগামী দিনের জন্য প্রস্তুত হতে হবে: ইকবাল হোসেন অপু এমপি

শরীয়তপুর-১ (পালং-জাজিরা) আসনে নবনির্বাচিত সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির অন্যতম সদস্য ইকবাল হোসেন অপু ছাত্র-ছাত্রীদের উদ্দেশ্যে বলেছেন, বিজ্ঞানের এই চরম উৎকর্ষতার যুগে আজ সারাবিশ্বে জ্ঞান ভিত্তিক সমাজ গড়ার প্রতিযোগিতা চলছে। আর এই প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে হলে নিজেদেরকে যোগ্য হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। এখনই সময় আগামী দিনের জন্য প্রস্তুত হওয়ার। আর এ জন্য প্রয়োজন পড়াশোনা। শিক্ষা ছাড়া কেউ কোন দিন উন্নতি করতে পারেনি। নিজেকে গড়ে তুলতে পাড়াশোনার পাশাপাশি খেলাধুলা ও সংস্কৃতিক অঙ্গনে সম্পৃক্ত হতে হবে। খেলাধুলা অনাবিল আনন্দের চিরন্তন উৎস। এই আনন্দের মধ্যে দিয়ে গড়ে ওঠে মানুষের দেহ, মন ও চরিত্র। সেই চরিত্রই ভবিষ্যত জীবন যুদ্ধে সফলতার সোপান। ক্রীড়াঙ্গণ শৃঙ্খলাবোধের সুতিকাগৃহ। শৃঙ্খলা শুধু ব্যক্তির নয়, সমগ্র দেশ ও জাতির সর্বিক উন্নতির জন্য প্রধান হাতিয়ার। রোববার (২০ জানুয়ারী) বেলা ১১ টায় শরীয়তপুর জেলা শহরের ঐতিহ্যবাহী পালং তুলাসার গুরুদাস সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির চক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
ইকবাল হোসেন অপু ছাত্র-ছাত্রীদের উদ্দেশ্যে আরও বলেন, খেলার মাঠের মতো মানুষের জীবনেও আছে সাফল্যের প্রতিযোগিতা, আছে বিজদের উল্লাস, আছে পরাজয়ের গ্লানি। খেলাধুলা একদিকে মানুষের চরিত্রকে দেয় সংকল্পের দৃঢ়তা, প্রতিযোগিতার একাগ্রতা। অপরদিকে দেয় পরাজয়ের সহনশিলতা ও হৃদয়ের উদারতা। খেলাধুলা জাতীয়তাবোধের জন্ম দেয়। একটি দল যখন অন্য একটি দলের সাথে খেলায় নেয় তখন সেই দলকে ঘিরে দেশের মানুষের আশা আকাঙ্খা, সংগ্রামী চেতনা ও আদর্শ জড়িয়ে থাকে। খেলাধূলা বিশ্ব ভ্রাতৃত্ববোধের সৃষ্টি করে পরকে আপন করে নেয়। খেলাধুলা মানুষে মানুষে প্রীতির সেতুবন্ধন তৈরী করে। তেমনি ভাবে ছাত্র-ছাত্রীদের পড়াশোনা ও খেলাধুলার মধ্য দিয়ে আগামী দিনের জন্য প্রস্তুত হতে হবে।
জেলা প্রশাসক কাজী আবু তাহেরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আল মামুন শিকদার ও পালং তুলাসার গুরুদাস সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক এমারত হোসেন মিয়া।
এ সময় শরীয়তপুর সরকারী কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মো. মনোয়ার হোসেন, শরীয়তপুর সরকারী গোলাম হায়দার খান মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মো. রেজাউল করিম, জেলা ভারপ্রাপ্ত শিক্ষা কর্মকর্তা শ্যামল চন্দ্র শর্মা প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।