বৃহস্পতিবার, ২৮শে মে, ২০২০ ইং, ১৪ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৪ঠা শাওয়াল, ১৪৪১ হিজরী
বৃহস্পতিবার, ২৮শে মে, ২০২০ ইং

গোসাইরহাটে উত্তরণ ফাউন্ডেশন ও চৌধুরী ক্যাম ট্রেক্সটাইলের উদ্যোগে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করলেন পুলিশ সুপার

গোসাইরহাটে উত্তরণ ফাউন্ডেশন ও চৌধুরী ক্যাম ট্রেক্সটাইলের উদ্যোগে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করলেন পুলিশ সুপার
গোসাইরহাটে উত্তরণ ফাউন্ডেশন ও চৌধুরী ক্যাম ট্রেক্সটাইলের উদ্যোগে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করলেন পুলিশ সুপার

শরীয়তপুরের গোসাইরহাট উপজেলার গোসাইরহাট পৌরসভা ও নলমুড়ি ইউনিয়নে দুঃস্থ অসহায় মানুষের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। শরীয়তপুরের পুলিশ সুপার এস, এম আশরাফুজ্জামান কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন।

১৪ মে বৃহস্পতিবার সকালে গোসাইরহাট পৌর এলাকা ও নলমুড়ি ইউনিয়নের ৮০০ পরিবার যারা হত দরিদ্র ভ্যানচালক, রিকশা চালক, অটো রিকশা চালক, চা বিক্রেতা ও কর্মহীন নিম্নআয়ের হত দরিদ্র লোক, নিম্ন মধ্যবিত্ত তাদের মাঝে চাল, ডাল, আলু, লবন, সাবান দেয়া হয়। ডিআইজি হাবিবুর রহমান, ঢাকা রেঞ্জ, প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান, উত্তরণ ফাউন্ডেশন ও চৌধুরী ক্যাম ট্রেক্সটাইলের উদ্যোগে ঘর বন্দি মানুষের ৮০০ পরিবারের হাতে খাদ্য সমাগ্রী তুলে দেয়া হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন চৌধুরী ক্যাম ট্রেক্সটাইলের ব্যবস্থপনা পরিচালক মো. মিজানুর রহমান চৌধুরী, সহকারী পুলিশ সুপার গোসাইরহাট সার্কেল মো. আমিনুর রহমান, গোসাইরহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) মোল্লা সোহেব আলী, গোসাইরহাট থানা আ.লীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক, দেওয়ান মো. শাজাহান, নলমুড়ি ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম উকিল, নলমুড়ি ইউনিয়নের আ.লীগের সাধারন সম্পাদক মো. আজাহার সরদার, যুবলীগের নলমুড়ি ইউনিয়ন সভাপতি আফতাব মুন্সী, জাহিদুল ইসলাম উপল, সাবেক সভাপতি পৌর ছাত্রলীগ প্রমুখ।

চৌধুরী ক্যাম ট্রেক্সটাইলের ব্যবস্থপনা পরিচালক মো. মিজানুর রহমান চৌধুরী বলেন, এলাকার হত দরিদ্র ভ্যানচালক, চা বিক্রেতা ও কর্মহীন নিম্নআয়ের হত দরিদ্র লোক যারা শ্রমজীবি, যারা হোম কোয়ারিন্টেনে আছেন বা সহযোগিতা করছেন সে সমস্ত মানুষের জন্য ডিআইজি হাবিবুর রহমান (ঢাকা) রেঞ্জ চেয়ারম্যান উত্তরণ ফাউন্ডেশন ও চৌধুরী ক্যাম ট্রেক্সটাইলের উদ্যোগে এলাকার ৮০০ পরিবারকে খাদ্য সহায়তা করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, করোনা ভাইরাস নিয়ে আতঙ্কিত না হয়ে ঘরে অবস্থান করুন সচেতন থাকুন, সামাজিক দুরত্ব মেনে চলুন। দুর্যোগসহ সব সময় আপনাদের পাশে থাকার চেষ্টা করব।