বুধবার, ৫ই অক্টোবর, ২০২২ ইং, ২০শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৯ই রবিউল-আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরী
বুধবার, ৫ই অক্টোবর, ২০২২ ইং

জাজিরায় শিশু ধর্ষণের অভিযোগে মামলা, আসামী পলাতক

জাজিরায় শিশু ধর্ষণের অভিযোগে মামলা, আসামী পলাতক

শরীয়তপুরের জাজিরা উপজেলার নাওডোবা ইউনিয়নের আহম্মদ চোকদার কান্দি গ্রামে পাঁচ বছরের এক শিশুকে ধর্ষনের অভিযোগে পদ্মা সেতু (দক্ষিণ) থানায় মামলা হয়েছে। গত (০৮ সেপ্টেম্বর) রোজ বৃহস্পতিবার পদ্মা সেতু (দক্ষিণ) থানায় ভুক্তভোগী শিশুর বাবা শাহীন বেপারী মামলাটি করেন।মামলা নং ০১।

অভিযুক্ত সালাম মোড়ল (৬০)পশ্চিম নাওডোবা গফুর মোড়লের কান্দির বাসিন্দা মৃত সহু মোড়লের ছেলে।

মামলার এজাহার সুত্রে জানা যায়,সালাম মোড়ল শাহীন বেপারীর প্রতিবেশি।সালাম মোড়ল তার ঘরের পাশেই একটি মুদি দোকানের ব্যবসা করে।ঐ ৫ বছরের শিশুটিকে দাদুভাই বলে ডাকতো সে। বিভিন্ন সময়ে শিশুটিকে চিপস্ আইসক্রীম সহ বিভিন্ন মুখরোচক খাবার খাইতে দিতো। প্রতিদিনের মত’ গত ০৭ সেপ্টেম্বর বুধবার দুপুর ২ টার সময় শিশুটি সালাম মোড়লের দোকানে মজা কিনতে যায়। পরে খাবারের প্রলোভন দেখিয়ে দোকানের ভিতরে নিয়ে যান তিনি।পরে মেয়ের যৌনাঙ্গে হাতের আঙ্গুল দেয় ও জোর পূর্বক ধর্ষণ করে। শিশুটি তাহার যৌনাঙ্গে ব্যাথা অনুভব করলে দ্রুত বাড়ীতে এসে বাবা – মা কে জানায়। পরে তার বাবা মা চিকিৎসার জন্য শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করেন।

স্থানীয়রা জানায়, এই সালাম মোড়লের পরিবার নাওডোবার ইউনিয়নের আলোচিত চাঁদনী ধর্ষন ও হত্যা মামলায় দন্ডপ্রাপ্ত হয়েছিলো। পরিবারটি ক্ষমতাশীন হওয়ায় প্রভাব খাটিয়ে ঐ এলাকার মানুষের উপর নির্যাতন নিপিড়ন চালিয়ে যাচ্ছে দীর্ঘ দিন।নাওডোবা ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের আহম্মদ চোকদার কান্দি গ্রামে ৭ সেপ্টেম্বর বুধবার দুপুরে শিশুটি বাড়ির কাছে (৬০)বছর বয়সী সালাম মোড়লের দোকানে গেলে সালাম মোড়ল শিশুটিকে খিচুরী খাওয়ানোর লোভ দেখিয়ে দোকানের ভেতর ফ্রিজের আড়ালে নিয়ে ধর্ষন করে।

শিশুটির মা বলেন আমার মেয়ে কাঁদতে কাঁদতে বাড়িতে আসলে আমি দেখি ওর পায়ে রক্ত তখন কি হয়েছে জিঙ্গেস করলে প্রথমে কিছু বলতে চায়নি তারপর রাগারাগি করলে আমার মেয়ে ঘরে এসে আমাকে সব দেখায়, এবং দোকানদার সালাম মোড়লের কথা বলে। সাথে সাথে আমরা জাজিরা হাসপালে নিয়ে যাই, ডাঃ শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে পাঠিয়ে দেয়। আমি এই নর পিচাশ সালাম মোড়লের ফাঁসি চাই।

শিশুর বাবা শাহীন বেপারী বলেন,আমার মেয়ে এখনো বাবা মায়ের কোলে ঘুমায়। আর বৃদ্ধ সালাম মোড়ল ওর দাদা হয়।তবে সে যেই ঘটনাটি ঘটিয়েছে।সেটা আমি তো নাই আমার সমাজ মেনে নিবে না। আমি মামলা করেছি আদালতের কাছে বিচার করবে ইনশাল্লাহ।

প্রতিবেশী মাসু বেগম জানান, সালাম মোড়ল এর আগেও অনেক জায়গায় এমন ঘটনা ঘটিয়েছে, এছাড়া তার পরিবারের লোকজনরা চাঁদনীকে ধর্ষন ও হত্যার ঘটনায় জেল খাটতেছে। আমরা এই ধর্ষকের বিচার চাই।শিশুটির মা-বাবা, চাচা, আত্নীয়-স্বজন প্রতিবেশীসহ স্থানীয়রা এই পৈচাশিক ঘটনার বিচার দাবি করেন।

এবিষয়ে পদ্মা দক্ষিণ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ( ওসি) মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ঘটনাটি আমি জানার সাথে সাথে পুলিশ পাঠিয়েছি আসামী পালিয়েছে, শিশুটির বাবা গত (০৮ সেপ্টেম্বর) দুপুরে সালাম মোড়লকে আসামী করে মামলা দায়ের করেছে। আমরা আসামীকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চালাচ্ছি।


error: Content is protected !!