শুক্রবার, ৫ই মার্চ, ২০২১ ইং, ২০শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২০শে রজব, ১৪৪২ হিজরী
শুক্রবার, ৫ই মার্চ, ২০২১ ইং

নড়িয়ায় বিয়ে দেয়ার আশ্বাসে ডেকে এনে দলবেঁধে ধর্ষণ

নড়িয়ায় বিয়ে দেয়ার আশ্বাসে ডেকে এনে দলবেঁধে ধর্ষণ

শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলায় জোরপূর্বক বেতের ঝোপে নিয়ে ৩১ বছর বয়সের এক নারীকে দল বেঁধে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় শুক্রবার (১৫ ডিসেম্বর) ভোরে মামলার পর ২ ও ৩ নম্বর আসামি নড়িয়া উপজেলার রাজনগর ইউনিয়নের মালতকান্দি গ্রামের বকসু ফকিরের ছেলে শুভ ফকির (২৫) ও আজিজুল কাজির ছেলে আরিফ কাজিকে (২৪) গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

এর আগে বৃহস্পতিবার (১৪ ডিসেম্বর) রাতে ভুক্তভোগী নারী বাদী হয়ে নড়িয়া থানায় মামলা করেছেন।

মামলার এজাহারে ওই নারী উল্লেখ করেন, ওই নারী ২০২০ সালের ২৪ অক্টোবর রাজনগর ইউনিয়নের ঠাকুকান্দি গ্রামের মোতালেত মালতের ছেলে রাশেদ মালতের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে (ধর্ষণ) মামলা করেন। সেই মামলার উত্তোলন ও মিমাংসার জন্য বর্তমান মামলার প্রধান আসামি বিল্লাল কাজি (৩৫) মাঝে মধ্যেই ওই নারীকে ফোন করতো। বৃহস্পতিবার (১৪ ডিসেম্বর) ওই নারীকে বিল্লাল ফোন করে ডেকে নিয়ে রাজনগর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আলীউজ্জামান মীর মালত ও তার ছেলে সজিব মীর মালতের উপস্থিতিতে রাশেদ মালতের সঙ্গে রেজিস্ট্রারি কাবিন (বিয়ে) পড়ানোর কথা বলে।

বিকেল ৫টার দিকে ওই নারী রাশেদ মালতের বাড়ি গিয়ে অপেক্ষা করে। চেয়ারম্যান ও তার ছেলে এলাকায় না থাকায় সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে বিল্লাল, আরিফ ও শুভসহ অজ্ঞাত ২/৩জন ওই নারীকে জোরপূর্বক বাড়ির পূর্বপাশের সড়িষা ক্ষেত সংলগ্ন বেতের ঝোপে নিয়ে গিয়ে তাঁকে পালাক্রমে ধর্ষণ করেন।

নড়িয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. হাফিজুর রহমান বলেন, নারী বাদী হয়ে তিনজনকে আসামি করে মামলা করেছেন। মামলার ২ ও ৩ নম্বর আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ওই নারীকে মেডিকেল পরিক্ষার জন্য শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। অন্যান্য আসামিদের গ্রেপ্তারের জন্য অভিযান অব্যাহত আছে।