শনিবার, ৩০শে মে, ২০২০ ইং, ১৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৭ই শাওয়াল, ১৪৪১ হিজরী
শনিবার, ৩০শে মে, ২০২০ ইং

জাতীয় দলে এসেই শরীয়তপুরের ছেলে বিপ্লবের চমক

জাতীয় দলে এসেই শরীয়তপুরের ছেলে বিপ্লবের চমক

শরীয়তপুরের ছেলে আমিনুল ইসলাম বিপ্লব জাতীয় দলের অভিষেক ম্যাচেই চমক দেখিয়েছেন। নিয়েছেন গুরুত্বপূর্ন দুটি উইকেট।
বাংলাদেশ ক্রিকেট দলে একজন লেগ স্পিনারের চরম অভাব। সেই জোবায়ের হোসেন লিখন এসেছিলেন একবার। কিন্তু দলে থিতু হওয়ার আগেই হারিয়ে গিয়েছিলেন তিনি। অথচ, এরই ফাঁকে আফগানিস্তানের মত দলও বিশ্বসেরা লেগ স্পিনারের জন্ম দিয়ে ফেলেছে। একের পর এক লেগ স্পিনার দিয়ে প্রতিপক্ষকে বধ করে যাচ্ছে।
এবার বাংলাদেশও পেয়ে গেলো একজন লেগ স্পিনার। আমিনুল ইসলাম বিপ্লব। এইচপি দলে ছিলেন। মূলতঃ তিনিও টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান। কিন্তু লেগ স্পিনে হাত ঘুরাতে পারেন ভালো। এ কারণে জাতীয় দলে নির্বাচকরা তাকে নিয়ে নিলেন লেগ স্পিন কোটায়।
দলে এসেই একাদশে সুযোগ পেয়ে গেলেন বাংলাদেশের এই লেগ স্পিনার। চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে ইনিংসের সপ্তম ওভারেই আমিনুল ইসলাম বিপ্লবকে বোলিংয়ে নিয়ে আসেন অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। এসে প্রথম ওভারের তৃতীয় বলেই উইকেট তুলে নিলেন তিনি।
তার করা লেগ ব্রেক বলের সামনে লং অফে খেলতে গিয়েই ব্যাটের উপরের কানায় লাগান মুতোম্বোদজি। একেবারে বাউন্ডারি লাইনের ওপর ক্যাচ ধরেন নাজমুল হোসেন শান্ত। পরের ওভারে আবারো উইকেট। এবার তার শিকার জিম্বাবুয়ে অধিনায়ক হ্যামিল্টন মাসাকাদজা।
ওভারের চতুর্থ বলটি একেবারে মিডল স্ট্যাম্পে রাখেন বিপ্লব। হালকা সুইং করে ভেতরে ঢুকে যায় বল। মাসাকাদজা ব্যাট লাগাতে পারেননি। বল গিয়ে আঘাত করে প্যাডে। আবেদন করতেই আঙ্গুল তুলে দেন আম্পায়ার। ২৫ বলে ২৫ রান করা মাসাকাদজা ফিরে যান তাতে।
টানা চার ওভার বল করে যান বিপ্লব। ৪ ওভারে মাত্র ১৮ রান দেন তিনি। উইকেট তুলে নিলেন ২টি। অভিষেকটা বলা যায় মোটামুটি স্মরণীয়ই করে রাখলেন শরীয়তপুরের ছেলে একমাত্র লেগ স্পিনার। আমিনুল ইসলাম বিপ্লবের বাড়ি শরীয়তপুর সদর উপজেলার আটং গ্রামে। জাতীয় দলে সুযোগ পেয়ে চমক দেখানোয় বিপ্লবকে নিয়ে গর্বে ভাসছেন শরীয়তপুরবাসী।