মঙ্গলবার, ২রা জুন, ২০২০ ইং, ১৯শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৯ই শাওয়াল, ১৪৪১ হিজরী
মঙ্গলবার, ২রা জুন, ২০২০ ইং

চমক থাকবে আওয়ামী লীগের জাতীয় কাউন্সিলে

চমক থাকবে আওয়ামী লীগের জাতীয় কাউন্সিলে

আগামী ২০ এবং ২১শে ডিসেম্বর আওয়ামী লীগ জাতীয় কাউন্সিলের ঘোষণা করেছে। আওয়ামী লীগের সম্মেলন নিয়ে নানা রকম প্রস্তুতি চলছে। আওয়ামী লীগের একাধিক দায়িত্বশীল সূত্র বলছে, দুই রকমের প্রস্তুতি চলছে। একটি হলো, তৃণমূলের সম্মেলনগুলো আয়োজনের জন্য প্রস্তুতি হচ্ছে। তাঁদেরকে সম্মেলনের তারিখ ঘোষণা করা এবং সম্মেলনের প্রস্তুতি ঘোষণা করার জন্য কেন্দ্রের সঙ্গে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে।
অন্যদিকে সম্মেলনের কেন্দ্রীয় যে কমিটি হবে, সেটার অবয়ব, প্রকৃতি এবং কেন্দ্রীয় কমিটিতে কারা থাকবে না থাকবে ইত্যাদি নিয়ে নানা রকম জল্পনা কল্পনা চলছে। দায়িত্বশীল সূত্রগুলো বলছে এবারের সম্মেলনে নতুনদের নবযাত্রা হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে এবং এই সম্মেলনেও গতবারের মতই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সভাপতির দায়িত্ব ছাড়ার ঘোষণা দেবার কথা থাকলেও, যেহেতু এবছর মুজিব বর্ষ রয়েছে সেই বিবেচনায় আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে শেখ হাসিনাই থাকবেন বলে একাধিক দায়িত্বশীল সূত্র নিশ্চিত করেছে।
তবে এবার দলের প্রেসিডিয়াম এবং সম্পাদক মন্ডলীতে বড় ধরণের পরিবর্তনের ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে। আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা প্রায় প্রতিদিনই দলের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাদের সঙ্গে অনানুষ্ঠানিক আলাপ আলোচনা করছেন এবং এর মধ্যে থেকে তিনি দলের ক্লিন ইমেজের যারা আছেন তাদের তালিকা করছেন।
শুধু ক্লিন ইমেজই নয় বরং তরুণদেরকে জায়গা করে দেয়ার বিষয়টি এবার আওয়ামী লীগের জাতীয় কাউন্সিলের অন্যতম বড় বিবেচ্য বিষয় হবে বলে একাধিক মহল ধারণা করছে। আওয়ামী লীগের একজন নেতা বলেছেন যাদের বিরুদ্ধে কোন সুনির্দিষ্ট দুর্নীতি বা অভিযোগ নেই এবং যারা তরুণ তাদেরকেই এবার দলে প্রাধান্য দেওয়া হবে।
উল্লেখ্য যে, একাধিক প্রেসিডিয়াম সদস্য এবার জাতীয় কাউন্সিলে বাদ পড়বেন। মধ্যস্তরের যারা নেতা রয়েছেন যেমন আওয়ামী লীগের যারা যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, যুগ্ম সম্পাদক বা অন্যান্য সম্পাদক মন্ডলীতে আছেন তাদের একটা বড় অংশ এবার আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য হবেন বলে জানা গেছে।
এবার আওয়ামী লীগে অনেকগুলো চমক আসবে। অনেকের পদোন্নতি হবে এবং তরুণ নির্ভর কমিটি হবে বলে আওয়ামী লীগের একাধিক নেতা নিশ্চিত করেছে এবং তারা বলছেন যে, প্রধানমন্ত্রী এ ব্যাপারটিতে বারবার জোর দিচ্ছেন। এক্ষেত্রে আওয়ামী লীগের বর্তমান সাংগঠনিক সম্পাদকদের মধ্যে একেএম এনামুল হক শামীম, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, আ. ফ. ম. বাহাউদ্দিন নাছিমদের যে পদোন্নতি হবে এটা মোটামুটি নিশ্চিত।
এছাড়া আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটিতে ভালো জায়গা করে করে নিতে পারেন সুভাষ সিংহ রায়, ইকবালুর রহিমসহ আরও যারা তরুণ আছেন, ক্লিন ইমেজ নিয়ে কাজ করছেন তারা নেতৃত্বের সামনের সারিতে আসবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।
আওয়ামী লীগের একাধিক দায়িত্বশীল সূত্র নিশ্চিত করছে যে, এবারের আওয়ামী লীগে যারা প্রেসিডিয়ামে আছেন এদের মধ্যে যারা বয়োপ্রবীণ আছেন তাদেরকে উপদেষ্টা পরিষদে দেওয়া হবে এবং একটা কার্যকর প্রেসিডিয়াম তৈরি করা হবে।
সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো বলছে, আওয়ামী লীগ সভাপতি বারবার বলছেন আমাদের চলে যাওয়ার সময় হয়েছে, নতুনদের হাতে আওয়ামী লীগের নেতৃত্ব তুলে দেওয়াই হবে এবারের কাউন্সিলের প্রধান লক্ষ্য।