শনিবার, ৩০শে মে, ২০২০ ইং, ১৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৭ই শাওয়াল, ১৪৪১ হিজরী
শনিবার, ৩০শে মে, ২০২০ ইং

শরীয়তপুরে প্রাথমিক শিক্ষকদের মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান

শরীয়তপুরে প্রাথমিক শিক্ষকদের মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান

সাত দফা দাবী আদায়ের লক্ষ্যে বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি শরীয়তপুর সদর উপজেলা শাখা মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছেন। ১৯ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার বিকাল ৪টায় শরীয়তপুর সদর উপজেলা চত্বরে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে উপজেলার বিভিন্ন প্রাথমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। মানববন্ধন শেষে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. মাহাবুর রহমান শেখ এর মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেন শিক্ষক নেতৃবৃন্দ।
মানববন্ধন অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি শরীয়তপুর জেলা শাখার সভাপতি এমদাদুল হক, সদর উপজেলার সভাপতি মো. ফারুক খন্দকার, বাংলাদেশ সহকারী শিক্ষক সমাজের শরীয়তপুর জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক গোবিন্দ চন্দ্র দত্ত, সদর উপজেলার ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক রাজেন্দ চন্দ্র দাস ও মো. মোশারফ হোসেন প্রমূখ।
শরীয়তপুর জেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি মোঃ এমদাদুল হক তার বক্তব্যে বলেন, আমরা আজ সারাদেশের মত প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের ৭ দফা দাবি বাস্তবায়ন উপলক্ষে এখানে সমবেত হয়েছি। আমাদের সাত দফার মধ্যে অষ্টম জাতীয় স্কেল অনুযায়ী সহকারি শিক্ষকদের ১১ তম গ্রেড ও প্রধান শিক্ষকদের দশম গ্রেডে বেতন স্কেল প্রদান করতে হবে। প্রাথমিক শিক্ষায় নিয়োগের ক্ষেত্রে সহকারী শিক্ষকের পদকে এন্ট্রিপদ ধরে শতভাগ বিভাগীয় পদোন্নতি মাধ্যমে পরিচালক পর্যন্ত পদোন্নতির ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। পদোন্নতি প্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকদের বেতন স্কেল সরাসরি নিয়োগপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকদের ন্যায় প্রধান করতে হবে। চলতি দায়িত্ব প্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকদের অবিলম্বে পদোন্নতির ব্যবস্থা করতে হবে। বিদ্যালয়ের পাঠদানের সময়সূচি সকাল দশটা থেকে বিকাল ৩ টা পর্যন্ত নির্ধারণ করতে হবে। প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের চাকুরী ভোকেশনাল সার্ভিস এর পরিবর্তে নন ভোকেশনাল সার্ভিস হিসেবে গণ্য করতে হবে এবং পদোন্নতি প্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকদের টাইম স্কেল সহ সকল প্রকার জটিলতা নিরসন করতে হবে।
মানববন্ধন থেকে বক্তারা আরও বলেন, বাংলাদেশের স্বপ্ন বাস্তবায়নে মানসম্মত প্রাথমিক শিক্ষা উত্তরনের লক্ষ্যে ৯৮ শতাংশ প্রাথমিক শিক্ষকদের সমর্থন নিয়ে বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি মো. নুরুজ্জামান আনসারী কেন্দ্রীয় কার্যকরী কমিটির বিশেষ সভায় ৭ দফা দাবী বাস্তবায়নের জন্য সিদ্ধান্ত গ্রহন করেছেন। এতে উল্লেখ করা হয়েছে, অষ্টম জাতীয় বেতনস্কেল অনুযায়ী সহকারী শিক্ষকদের ১১তম গ্রেডে ও প্রধান শিক্ষকদের ১০ম গ্রেডে বেতন প্রদান, শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে সহকারী শিক্ষকদের পদ এন্ট্রিপদ ধরে শতভাগ বিভাগীয় পদোন্নতিসহ পরিচালক পর্যন্ত পদোন্নতির ব্যবস্থা করা, পদোন্নতি প্রাপ্ত শিক্ষকদের বেতনস্কেল নিয়োগপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকদের ন্যয় প্রদান, চলতি দায়িত্ব প্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকদের অবিলম্বে পদোন্নতির ব্যবস্থা করা, পাঠদান সময়সূচি সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৩টা পর্যন্ত নির্ধারণ করা, চাকুরি ভোকেশনাল সার্ভিসের পরিবর্তে নন-ভোকেশনাল সার্ভিস হিসেবে গণ্য করা ও পদোন্নতি প্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকদের টাইম স্কেলসহ সকল প্রকার জটিলতা নিরশন করতে হবে। বক্তারা আরও বলেন, যেহেতু আমরা শিক্ষার প্রাথমিক স্তরের ভিত তৈরী করি তাই আমাদের দাবী মেনে নিয়ে প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা উন্নত ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে আমাদের উৎসাহিত করবেন।