বৃহস্পতিবার, ২৮শে মে, ২০২০ ইং, ১৪ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৪ঠা শাওয়াল, ১৪৪১ হিজরী
বৃহস্পতিবার, ২৮শে মে, ২০২০ ইং

শরীয়তপুর সদর হাসপাতালের আইসোলেশনে থাকা সুস্থ ৩ করোনা রোগীকে বিদায়ী শুভেচ্ছা স্বাস্থ্য প্রশাসনের

শরীয়তপুর সদর হাসপাতালের আইসোলেশনে থাকা সুস্থ ৩ করোনা রোগীকে বিদায়ী শুভেচ্ছা স্বাস্থ্য প্রশাসনের
শরীয়তপুর সদর হাসপাতালের আইসোলেশনে থাকা সুস্থ ৩ করোনা রোগীকে বিদায়ী শুভেচ্ছা স্বাস্থ্য প্রশাসনের

শরীয়তপুর সদর হাসপাতালের আইসোলেশনে থাকা সুস্থ ৩ করোনা রোগীকে বিদায়ী শুভেচ্ছা দিলেন শরীয়তপুর স্বাস্থ্য প্রশাসন।

শুক্রবার (২২ মে) বেলা সাড়ে ১২ টার দিকে জেলা সিভিল সার্জন প্রতিনিধি ডা. আব্দুর রশিদ ও সদর হাসপাতাল তত্ত্বাবধায়ক ডা. মুনির আহমেদ খান এ বিদায়ী শুভেচ্ছা দেন।

আইসোলেশনে থাকা সুস্থ করোনা রোগীরা হলেন, সদর উপজেলার চন্দ্রপুর ইউনিয়নের বগাদি গ্রামের মহিজউদ্দিন বেপারীর ছেলে এইচ এম শহিদুল ইসলাম(৩৬), স্ত্রী ছালেহা বেগম(৫৫) এবং নওগা জেলার মহাদেবপুরের পদ্মাপাড় নির্মাণ শ্রমিক আমজাদ হোসেনের ছেলে তানভীর(২০)। এদের মধ্যে করোনা পজিটিভ ছিল এইচ এম শহিদুল ইসলাম ও তানভীর-এর।

এ সময় সদর হাসপাতাল তত্ত্বাবধায়ক ডা. মনির আহমেদ খান বলেন, করোনার বৈশ্বিক মহামারী বাংলাদেশের সব জায়গায় ছড়িয়ে পড়েছে। এর প্রাদুর্ভাব আমাদের শরীয়তপুরেও বিস্তার লাভ করেছে। গতকাল পর্যন্ত নতুন করে এক নারীসহ ৭ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন। পাশাপাশি সুস্থ হয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরেছেন নড়িয়া উপজেলার ভূমখাড়া ইউনিয়নে ৩ জন ও সদর উপজেলার চিতলিয়া ইউনিয়নে ২ জন।

শরীয়তপুর সিভিল সার্জন কার্যালয়ের তথ্যমতে জেলার ৮০ জন করোনা আক্রান্তদের মধ্য থেকে স্বাস্থ্য বিভাগের পরিচর্যায় চিকিৎসাপ্রাপ্ত ৩২ জন সুস্থ হয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে গেছেন।

এ পর্যন্ত জেলায় ২ হাজার ৩১৬ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়। ২ হাজার ৬১ জনের নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট হাতে পেয়েছে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ। জেলায় করোনায় আক্রান্ত মোট ৮০ জন। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে জেলায় তিনজনের মৃত্যু হয়েছে।

সুস্থ হওয়া রোগীরা বলেন, আমরা শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে ভালো চিকিৎসা পেয়েছি। আমরা তাদের প্রতি কৃতজ্ঞ। তবে করোনা রোগী যারাই আসুক না কেন, সবাইকে আরও মানসিক প্রশান্তি দেওয়া প্রয়োজন।