বৃহস্পতিবার, ২৮শে জানুয়ারি, ২০২১ ইং, ১৪ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৪ই জমাদিউস-সানি, ১৪৪২ হিজরী
বৃহস্পতিবার, ২৮শে জানুয়ারি, ২০২১ ইং

শরীয়তপুর পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডের উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে ব্লাকবোর্ড মার্কায় ভোট চান সঞ্জিব নাগ

শরীয়তপুর পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডের উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে ব্লাকবোর্ড মার্কায় ভোট চান সঞ্জিব নাগ

শরীয়তপুর পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডে সর্বজন স্বীকৃত জননন্দিত কাউন্সিলর প্রার্থী সঞ্জীব নাগ। তিনি জনগণের ভোটে বার বার নির্বাচিত কাউন্সিলর। এবারও পৌরসভার নির্বাচনে তিনি ব্লাক বোর্ড প্রতীক নিয়ে কাউন্সিলর পদে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেছেন। ৯নং ওয়ার্ডবাসী তাদের মূল্যবান ভোটে সঞ্জীব নাগকে আবারও কাউন্সিলর বানিয়ে উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে ইচ্ছা পোষন করছেন। ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব, ঠিকাদার, ব্যবসায়ী ও সমাজ সেবক এই নেতা মানুষের সুখ-দুঃখে পাশে থেকে সেবা করতে অঙ্গীকারাবদ্ধ।

সঞ্চীব নাগ ভোটারদের সাথে দেখা করে আশির্বাদ চাইতে গেলে এলাকাবাসীর মধ্যে আরও নতুন নতুন স্বপ্ন জাগ্রত হয়। তারা সঞ্জীব নাগকে কাছে পেয়ে জানায়, “আমাদের অন্তরে সঞ্জীব নাগের অবস্থান”। তারা আরও জানায়, সঞ্জীব নাগ একজন জনদরদী। তিনি এলাকাবাসীর স্বপ্ন। সঞ্জীব নাগের মাধ্যমে আমরা উন্নত, আধুনিক, মাদকমুক্ত সমাজ গড়ার স্বপ্ন দেখি। এক কথায় সঞ্জীব নাগ ৯ নং ওয়ার্ডের রূপকার। তিনি বিগত সময়ে এলাকার ব্যাপক উন্নয়ন করেছেন। তিনি গরীব, অসহায়, বৃদ্ধ, শিশু ও প্রতিবন্ধিদের পাশে থেকেছেন। সরকারি সকল সুযোগ সুবিধা থেকে কাউকে বঞ্চিত করেন নাই। সঞ্জীব নাগ সরকারি চাউল দেওয়ার পরেও ব্যক্তিগত অর্থে চাউল কিনেও বিতরণ করেন। এক কথায় সঞ্জীব নাগ একজন প্রকৃত সমাজ সেবক।

কাউন্সিলন প্রার্থী সঞ্জীব নাগ বলেন, আমি শরীয়তপুর পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ড থেকে বারবার কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়ে মানুষের সুখ-দুঃখ ভাগাভাগি করে আসছি। ইতোমধ্যে আমি ধর্ম বর্ন নির্বিশেষে সকল শ্রেণি পেশার মানুষের অন্তরে জায়গা করতে সক্ষম হয়েছি। এবারও ওয়ার্ডবাসী আমাকে নির্বাচনে নামিয়েছে। ওয়ার্ডবাসী আমার মাধ্যমে তাদের স্বপ্নের অবশিষ্ট অংশ পূর্ণ করতে চায়। এবারও যদি ৯নং ওয়ার্ডবাসী তাদের মূল্যবান ভোটের মাধ্যমে আমাকে কাউন্সিলর নির্বাচিত করে তাহলে আমিও তাদের অবশিষ্ট স্বপ্ন পূরণের দায়িত্ব গ্রহণ করব।

তিনি আরও বলেন, আমি বিগত সময়ে শরীয়তপুর পৌরসভার প্যানেল মেয়র ও ভারপ্রাপ্ত মেয়রের দায়িত্ব পালন করেছি। অবহেলিত এই জনপদে সরকারী ও বেসরকারি প্রকল্পের মাধ্যমে অর্ধশত কোটি টাকার উন্নয়নমূলক কাজ করেছি। আগামীতে আরও প্রায় ৭০ কোটি টাকার প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। মানুষের ভোটে এবারও যদি আমি কাউন্সিলর হতে পারি তাহলে পানি নিস্কাশনে ড্রেনেজ ও যোগাযোগ ব্যবস্থার সুগোম করতে অবশিষ্ট রাস্তাঘাট নির্মাণ করব। এবার শরীয়তপুর পৌরসভার ৯ নং ওয়ার্ড হবে একটি আধুনিক, উন্নত সর্বজন স্বীকৃত একটি ওয়ার্ড।