সোমবার, ১৪ই জুন, ২০২১ ইং, ৩১শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৪ঠা জিলক্বদ, ১৪৪২ হিজরী
সোমবার, ১৪ই জুন, ২০২১ ইং

শরীয়তপুরে পুকুর ভরাটকারিকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেন ইউএনও

শরীয়তপুরে পুকুর ভরাটকারিকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেন ইউএনও

শরীয়তপুরে পুকুর ভরাট করার তথ্য পেয়ে ভরাটকারিকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মনদীপ ঘরাই।

পৌরসভার ধানুকা ৭ নং ওয়ার্ডের অনেক পুরাতন পুকুর সহ সরকারি খাল, বীল ভরাট করে দখল হয়ে যাচ্ছে। নতুন করে মনসা বাড়ির সামনে আরও একটি পুরোনো দীঘি ভরাট করা হচ্ছে। পুকুর ভরাটকারি চোখের আড়ালে ড্রেজার দিয়ে পুকুর ভরাট করতে সরকারি রাস্তা খুঁড়ে পাইপ লাগিয়েছে। জানা যায়, ভরাটের অপেক্ষায় পুকুরটি শতবর্ষি পুরানো। বর্তমান পুকুরের মালিক মরন বেপারী, শিবু ঠাকুর সহ মতি ঢালীর ৪ ভাই।

একের পর এক বেআইনি ভাবে দীঘি ভরাটের তথ্য সংশ্লিষ্টকে জানালে, ভরাটকারি ও ড্রেজার ব্যবসায়ি রাজনৈতিক প্রভাব খাটিয়ে আইন অমান্য করে প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে তা ভরাট করে ফেলেছে।

ভূমির অনিয়মের ব্যাপারে পালং ভূমি অফিসের তহসিলদার জুয়েল হোসেন ঢালীকে জানালেও নেয়া হয় না ব্যবস্থা। উল্টো তিনি তথ্যকারির নাম ড্রেজার ও ভরাটকারিকে বলে দিয়ে বিপদে ফেলেন।

৪ জুন শুক্রবার সকালে এ বিষয়ে দৈনিক রুদ্রবার্তা এর প্রতিবেদক জেলা প্রশাসন শরীয়তপুর এর ম্যাসেঞ্জারে এই বিষয়ে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়ার অনুরোধ জানান।

ঠিক তার কিছুক্ষণ পরেই জেলা প্রশাসক পারভেজ হাসান এর নির্দেশে সদর উপজেলার ইউএনও মনদীপ ঘরাই গিয়ে ড্রেজার পাইপ ধ্বংস করেন। সেই সাথে ঘটনায় অভিযুক্ত নুর ইসলাম সরদারকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে শরীয়তপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মনদীপ ঘরাই দৈনিক রুদ্রবার্তাকে বলেন, ঘটনাস্থলে কাউকে পাওয়া যায়নি। আমি ছাড়াও মোবাইল কোর্টরত ম্যাজিস্ট্রেট ঘটনাস্থলে গিয়েছিল। এলাকার সবাইকে জানাতে বলা হয়েছে। দু একদিনের মধ্যে রাস্তার নিচের পাইপ অপসারন করে মেরামত করতে বলা হয়েছে। ভরাটকারীরে দাপ্তরিকভাবে সতর্ক করার হয়েছে। এই ঘটনায় অভিযুক্তকে নুর ইসলাম সরদার কে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।