বৃহস্পতিবার, ২রা এপ্রিল, ২০২০ ইং, ১৯শে চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
আজ বৃহস্পতিবার | ২রা এপ্রিল, ২০২০ ইং

শরীয়তপুরের মেহজাবিন জাতীয় শিশু পুরস্কার প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন

রুদ্রবার্তা প্রতিবেদক

শনিবার, ১৯ মে ২০১৮ | ৪:৫৫ অপরাহ্ণ | 7002Views

শরীয়তপুরের মেহজাবিন জাতীয় শিশু পুরস্কার প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন

শরীয়তপুরের মেহজাবিন রুবা জাতীয় শিশু পুরস্কার প্রতিযোগিতা ২০১৮ তে হামদ ও নাত-এ দেশের আটটি বিভাগ থেকে অংশগ্রহণকারী সব প্রতিযোগীর মধ্যে চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন। মেহজাবিন যখন খুব ছোট, যখন বুঝতে শিখেছে তখন থেকেই তার ইচ্ছে দেশের একজন বড় সঙ্গীতশিল্পী হবে। তার ইচ্ছা পুরণের পথে।
মেহজাবিন রুবা শরীয়তপুর পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ডের কাগদী গ্রামের এসএম ওসমান গণি ও রওনক জাহানের বড় মেয়ে। রুবার বাবা শরীয়তপুরে বেসরকারি একটি এনজিও এসডিএস- এ কর্মরত আছেন। আর মা জাজিরা ৫নং হাওলাদার কান্দি সরাকরি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক। মা এর চাকরির সুবাদে মেহজাবিন, ছোট বোন সারাজাবিন তুবা মায়ের সাথে জাজিরাতে থাকেন। রুবার ছোট বোন তুবা জাজিরা হাট মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ২য় শ্রেণির ছাত্রী। আর রুবা জাজিরা মহর আলী পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ে মানবিক বিভাগের নবম শ্রেণির ছাত্রী।
মেহজাবিন রুবা জাজিরা কিন্ডার গার্টেন থেকে পিএসসি এবং জাজিরা মহর আলী পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় থেকে জেএসসিতে ট্যালেন্টপুলে বৃত্তি পেয়েছেন। ছাত্রী হিসেবে মেধাবী হলেও স্বপ্ন তার নিজেকে একজন সঙ্গীতশিল্পী হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করার।
রুবার এই সাফল্যে তার বাবা, মা খুব খুশি। আগামীতে রুবাকে শরীয়তপুরের মানুষ বড় একজন সঙ্গীতশিল্পী হিসেবে দেখতে চায়।
জাজিরা শিল্পকলা একাডেমির মিজান এবং সেখানে ঢাকা থেকে যাওয়া শিক্ষক অপূর্ব কুমারের কাছে উচ্চাঙ্গসঙ্গীতে তালিম নিচ্ছেন নিয়মিত। এর আগে রুবা জেলাপর্যায়ে মৌসুমী প্রতিযোগিতায় নজরুল সঙ্গীতে এবং শিশু-কিশোর প্রতিযোগিতায় উচ্চাঙ্গসঙ্গীতে প্রথম স্থান অধিকার করেন। সেরাকণ্ঠ ২০১৭’তে রুবা সেকেন্ড রাউন্ড পর্যন্ত অংশগ্রহণ করতে পেরেছিলেন। সে সময় সাবিনা ইয়াসমিনের গাওয়া ‘শতজনমের স্বপ্ন তুমি আমার জীবনে এলে’ গানটি গেয়ে বিচারকদের মুগ্ধ করেছিলেন রুবা।
জাতীয় শিশু পুরস্কার প্রতিযোগিতা ২০১৮ গত সোমবার (১৪ মে) বিকেলে রাজধানীর দোয়েল চত্বরে বাংলাদেশ শিশু একাডেমি মিলনায়তনে মেহজাবিন রুবার হাতে চ্যাম্পিয়নের পুরস্কার তুলে দেয়া হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ।
চ্যাম্পিয়ন হওয়ায় অনুভূতি জানতে চাইলে মেহজাবি রুবা জানায়, ছোট বেলা থেকেই তার বাবা মায়ের স্বপ্ন রুবা একজন সঙ্গীতশিল্পী হবে। বিশেষ করে তার মা এবং খালামনি রূপম সবসময়ই চাইতেন রুবা সঙ্গীতচর্চায় সম্পৃক্ত থাকুক। কারণ রুবার কণ্ঠ সম্পর্কে তারাই সবচেয়ে বেশি অবগত। আগামী দিনের স্বপ্ন পূরণের একটি ধাপ অতিক্রম করেছে হামদ ও নাত এ চ্যাম্পিয়ন হতে পেরে।
মেহজাবিন রুবার বাবা এসএস ওসমান গণি বলেন, সবাই আমার মেয়ের জন্য দোয়া করবেন। রুবা যেন এ দেশের একজন সঙ্গীতশিল্পী হয়ে সঙ্গীতাঙ্গনে অবদান রাখতে পারে।


-Advertisement-
সর্বশেষ  
জনপ্রিয়  

ফেইসবুক পাতা

-Advertisement-
-Advertisement-
error: Content is protected !!