রবিবার, ১৭ই অক্টোবর, ২০২১ ইং, ১লা কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১১ই রবিউল-আউয়াল, ১৪৪৩ হিজরী
রবিবার, ১৭ই অক্টোবর, ২০২১ ইং

শরীয়তপুরে চোরাই মালামালসহ আন্তঃজেলা চোরচক্রের ৭ সদস্য গ্রেফতার করেছে জেলা পুলিশ

শরীয়তপুরে চোরাই মালামালসহ আন্তঃজেলা চোরচক্রের ৭ সদস্য গ্রেফতার করেছে জেলা পুলিশ

চোরাই মালামাল ও চুরির কাজে ব্যবহৃত সরঞ্জামসহ আন্তঃজেলা চোর চক্রের ৭ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে শরীয়তপুর পুলিশ। সম্প্রতি পালং মডেল থানার আংগারিয়া ও চরসুন্দি এলাকায় দিনদুপুরে ঘরের তালা কেটে দুর্ধষ দুটি চুরির ঘটনা ঘটায় এই চক্রের সদস্যরা। পুলিশ সিসি ক্যামেরার ফুটেজ ও উন্নত তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় শরীয়তপুর ও মাদারীপুর জেলার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে চক্রের ৭ সদস্যকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন মো. আবুল কালাম (৪০), শহিদুল হাওলাদার (৩৮), সঞ্জয় হালদার (৫২), হেমায়েত মাদবর প্রকাশ (৪৪), গিয়াস উদ্দিন হাওলাদার (৪১), বাচ্চু খান (৪১) ও শাওন মুন্সি (৩২)। গ্রেফতারকৃতদের কাছ থেকে চুরি যাওয়া নগদ অর্থ ও স্বর্ণালংকার এবং তালা ভাঙ্গার কাজে ব্যবহৃত সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়েছে। ৩০ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার দুপুরে শরীয়তপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তানভির হায়দার শাওন সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানিয়েছে। এসময় পালং মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ আকতার হোসেন, পুলিশ পরিদর্শক আতিক উল্লাহ ও আংগারিয়া ফাড়ি ইনচার্জ আকুল চন্দ্র বিশ্বাস উপস্থিত ছিলেন।

জানাগেছে, পালং মডেল থানাধীন আংগারিয়া বাজারের কাপড়পট্টি এলাকার লিটন মাদবরের ঘরে বিকাল ৩টায় চুরির ঘটনায় পালং মডেল থানায় ২১ জুন একটি মামলা করে। একই থানাধীন চরসুন্দি গ্রামে দুপুর আড়াইটায় আরো একটি চুরির ঘটনা ঘটে। এই ঘটনায়ও মামলা হয়। দুটি মামলার রহস্য উদ্ঘাটনে মাঠে নামে পুলিশ। পালং মডেল থানা পুলিশ ও জেলা গোয়েন্দা পুলিশ দীর্ঘদিনের অব্যাহত চেষ্টায় আসামীদের গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।

প্রেস ব্রিফিং থেকে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তানভীর হায়দার শাওন বলেন, আসামীরা আন্তঃজেলা চোর চক্রের সদস্য। সিসি ক্যামেরার ফুটেজ ও আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার করে মাদারীপুর ও শরীয়তপুরের বিভিন্ন স্থান থেকে আসামীদের গ্রেফতার করা হয়েছে। আসামীদের কাছ থেকে নগদ অর্থ, স্বর্ণালংকার ও চুরির কাজে ব্যবহৃত সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়েছে। আসামীদের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে চোর চক্রের মূলহোতাদের গ্রেফতার করা সম্ভব হবে।