রবিবার, ৫ই ডিসেম্বর, ২০২১ ইং, ২০শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১লা জমাদিউল-আউয়াল, ১৪৪৩ হিজরী
রবিবার, ৫ই ডিসেম্বর, ২০২১ ইং

রুদ্রকরের ৬ কেন্দ্রে পুনরায় নির্বাচনের দাবি স্বতন্ত্র প্রার্থী হাবিব ঢালীর

রুদ্রকরের ৬ কেন্দ্রে পুনরায় নির্বাচনের দাবি স্বতন্ত্র প্রার্থী হাবিব ঢালীর

শরীয়তপুর সদর উপজেলার রুদ্রকর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে এজেন্ট বের করে দিয়ে জোরপূর্বক ব্যালট পেপার ছিনতাই করে জাল ভোট দেয়ার অভিযোগ এনে ৬টি কেন্দ্রের ফলাফল স্থগিত করে পুনরায় নির্বাচন দেওয়ার দাবি জানিয়েছেন আনারস প্রতীকের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী হাবিবুর রহমান ঢালী। এ বিষয়ে তিনি শুক্রবার (১২ নভেম্বর) নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা বরাবর লিখিত আবেদন করেছেন।

নির্বাচনের পরদিন শুক্রবার নিজ বাড়িতে আনারস প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী হাবিবুর রহমান ঢালী সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগ করে বলেন, ১১ নভেম্বর দ্বিতীয় ধাপে শরীয়তপুর সদর উপজেলার রুদ্রকর ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ওই নির্বাচনে আমি চেয়ারম্যান পদে আনারস প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী ছিলাম। ভোটগ্রহণ চলাকালে রুদ্রকরের ছয়টি কেন্দ্র থেকে জোরপূর্বক আমার এজেন্টদের বের করে দিয়ে ব্যালট পেপার ছিনতাই করে ব্যালটে নৌকার সিল মেরে বিজয় ঘোষণা করা হয়। কিন্তু চেয়ারম্যান, মেম্বার ও সংরক্ষিত মহিলা মেম্বারদের ভোটের ব্যালট পেপার গণনাকালে মুড়ি বইয়ের মিল না থাকায় ক্রুটি ধরা পড়ে। জোরপূর্বক ব্যালট ছিনতাই করে নৌকা প্রতীকে সিল মারায় আমাকে পরাজিত ঘোষণা করা হয়। সুষ্ঠু ভোট হলে আমার আনারস প্রতীক বিজয় হতো। তাই ব্যালট পেপার গরমিল ও জোরপূর্বক ব্যালট ছিনতাই করে নৌকায় সিল মারা ছয়টি কেন্দ্রের ফলাফল স্থগিত করে পুনরায় নির্বাচন করার জন্য আমি নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা বরাবর আবেদন করেছি।
কেন্দ্রগুলো হলো- রুদ্রকর নীলমনি উচ্চ বিদ্যালয়, ২৭ নং হোগলা মাকসাহার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, বুড়িরহাট উচ্চ বিদ্যালয়, ৫২ নং পশ্চিম সোনামুখী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ২৪ নং বড় সোনামুখী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও ৭৬ নং পূর্ব সোনামুখী বেপারীপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়।
হাবিবুর রহমান ঢালী বলেন, আমি চাই এই ৬ কেন্দ্রের ফলাফল স্থগিত করে পুনরায় নির্বাচন দেওয়া হোক।

রুদ্রকর ইউনিয়নের নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা ও সদর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা তাজুল ইসলাম বলেন, রুদ্রকর ইউনিয়নের ৬টি কেন্দ্রের ফলাফল স্থগিত করে পুনরায় নির্বাচনের দাবিতে আনারস প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী হাবিবুর রহমান ঢালী একটি লিখিত আবেদন করেছেন। আমি আবেদন গ্রহণ করেছি। এখন সে যদি ট্রাইব্যুনালে মামলা করেন তাহলে নির্বাচন কমিশন ব্যবস্থা নিতে পারেন।